• শিরোনাম

    টেকনাফ সীমান্তে আত্মসমর্পণ বাণিজ্য

    আত্মসমর্পণ না করেই ফিরে গেলেন ইয়াবা কারবারি শামশু মেম্বার

    দেশবিদেশ রিপোর্ট | ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ | ১২:৪৩ পূর্বাহ্ণ

    আত্মসমর্পণ না করেই ফিরে গেলেন ইয়াবা কারবারি শামশু মেম্বার

    শামশুল আলম মেম্বার (২৮) আতœসমর্পণের মাঝ পথ থেকে ফিরে গেছেন ঘরে। টেকনাফের সাবরাং ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার ও সাবরাং ইউনিয়নের এক নম্বর প্যানেল চেয়ারম্যান তিনি। বৃহষ্পতিবার আতœসমর্পণের উদ্দেশ্যে শামশু মেম্বার সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদির গাড়িতে চড়েছিলেন সাবরাং নিজ এলাকায়। সেই শামশু মেম্বারকে এলাকাবাসী বিদায়ও দিয়েছিলেন। অথচ গতকাল শুক্রবার শামশু মেম্বার স্বশরীরে নিজ ঘরে ফিরে গিয়ে এলাকাবাসীকে রিতীমত হতবাক করে দিয়েছেন।
    অভিযোগ উঠেছে, সাত লাখ টাকার লেনদেন নিয়ে এই ইয়াবা কারবারি পুলিশের আতœসমর্পণের পাইপ লাইন থেকে পেছনে ফিরে যাবার সুযোগ পেয়েছে। কক্সবাজারে কর্মরত একজন সাংবাদিকের মোবাইলে আসা একটি ক্ষুদে বার্তায় এরকম খবরটি মিলেছে। টেকনাফ পৌর আওয়ামী লীগের পরিচয় দাতা একজন নেতা শামশু মেম্বারের নিকট থেকে এ টাকা হাতিয়ে নেন বলেও অভিযোগে বলা হয়েছে।
    তবে পুলিশের তরফে এ জাতীয় লেনদেন অস্বীকার করা হয়েছে। টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ গতকাল এ বিষয়ে জানান-‘পুলিশ এ ধরণের কাজে জড়িত নেই। তবে অনেকেই এধরনের সুযোগের অপেক্ষায় থাকেন এটাও সত্যি।’ অভিযোগ রয়েছে, পুলিশের কাছে কারবারিদের আতœসমর্পণ করিয়ে দেয়ার সুযোগ নিয়ে এখন এক শ্রেণীর দালাল গিজ গিজ করছে। কারবারিদের বাঁচিয়ে দেয়ার কথা বলেই এসব দালালগন হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা পয়সা। টেকনাফ থানায়ও দালালদের ভীড় রয়েছে।
    সাবরাং পাচুরি পাড়ার বাসিন্দা আলী আহমদের পুত্র শামশু মেম্বার বেশ কয়েকটি ইয়াবা পাচার মামলার আসামী। এ ছাড়াও তার বিরুদ্ধে রয়েছে সাম্প্রতিক কথিত বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় দায়ের করা মামলারও অভিযোগ। শামশু মেম্বার তার অপর তিন ভাইয়ের বিরুদ্ধেই রয়েছে ইয়াবা কারবারের অভিযোগ। বছর খানেক আগে পুলিশ শামশু মেম্বার সহ তার কারবারি ভাইদের আটক করতে গিয়ে অভিযান চালিয়েছিল তার ঘরে।
    পুলিশের অভিযানকালে শামশু মেম্বার ও তার কারবারি ভাইদের না পেয়ে পুলিশ তাদের পিতা আলী আহমদকে আটকের পর নিক্ষেপ করেছিলেন কারাগারে। ইয়াবা কারবারি শামশু মেম্বার বৃহষ্পতিবার পুলিশের কাছে আতœসমর্পণের জন্য রওয়ানা দেয়ার কথা গতকাল শুক্রুবারের আজকের দেশবিদেশ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। আর গতকাল টেকনাফ সীমান্ত থেকে খবর এসেছে সেই শামশু মেম্বার একদম নিরাপদেই হাসিখুশিতে ফিরে গেছেন ঘরে।
    এলাকাবাসীর কাছে এখন বড় প্রশ্ন হয়ে দেখা দিয়েছে-এটা কি রকমের আতœসমর্পণ ? ইয়াবা কারবারি পুলিশের হেফাজত থেকে কিভাবে ফিরে আসেন ? ইয়াবা কারবারি শামশু মেম্বার আতœসমর্পণ করতে গিয়ে পূণরায় ঘরে ফিরে আসার কথা গতকাল অকপটে স্বীকার করেছেন তার (শামশু) শ^শুর হাজী নুরুল আমিন ওরফে নুরু। এই নুরু হচ্ছেন সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদির ভগ্নিপতি অবসরপ্রাপ্ত ওসি আবদুর রহমানের ভাই। নুরু টেকনাফ থানার অন্যতম একজন সোর্স হিসাবেও এলাকায় পরিচিত।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ