• শিরোনাম

    মানসিক কষ্টে জর্জরিত

    উখিয়ার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল হুদা গুরুতর অসুস্থ্য

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৩ মার্চ ২০১৯ | ১১:৫৪ অপরাহ্ণ

    উখিয়ার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল হুদা গুরুতর অসুস্থ্য

    নির্বাচনে প্রতারণার শিকার হয়ে মানসিকভাবে জর্জরিত হয়ে পড়েছেন উখিয়া ্উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল হুদা। তিনি মানসিকভাবে কষ্ট পেয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষনা দেয়ার পর হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে এখন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছেন।
    গতকাল ২৩ মার্চ দুপুরে নিজ বাড়িতে হঠাৎ বুকের যন্ত্রণায় অসুস্থ্য হয়ে পড়েন নুরুল হুদা। তাকে প্রথমে কক্সাবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন নুরুল হুদার অবস্থা আশংকাজনক। তার পরিবার জানিয়েছেন , নির্বাচনে তার সাথে সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদি বেঈমানি করার কারনে নুরুল হুদা খুবই টেনশন করেন। এক পর্যায়ে তিনি বুকে ব্যথা বলে বিছানায় শুয়ে পড়েন।
    এদিকে তিনি উখিয়া উপজেলা নির্বাচনের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল হুদা ২২ মার্চ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িনোর কথা ঘোষনা করেন। ঐ দিন সন্ধ্যায় কোট বাজারে সরে দাঁড়ানোর কারন হিসেবে নুরুল হুদা জানান, আমি সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদির কথায় নির্বাচন করতে মাঠে নেমেছি । তিনি প্রথমে আমাকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে বলেন, আবার পরে ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে জোর করেন। সেই সাথে তিনি আমার নির্বাচনি ব্যয় ভার বহন করার দায়িত্ব নেন। আমর পক্ষে তিনি কাজ করবেন বলে আশ^াস দেন।
    বদির জোরাজুরি আর তার আশ^াসের কারনে তৃণমুল পর্যায়ে সর্বোচ্চ পেয়ে নির্বাচনে অংশ নেন নুরুল হুদা। চেয়ারম্যান পদে অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কামরুন্নার ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে নুরুল হুদাকে জিতিয়ে আনার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হন আবদুর রহমান বদি। এমন কি বিনা প্রতিদন্ধিতায় নুরুল হুদাকে নির্বাচিত করার জন্য প্রত্যেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাথে এবং অন্যান্য প্রতিদন্ধি প্রার্থীদের বৈঠকে বসবেন বলে জানান বদি।
    কিন্তু আবদুর রহমান বদি কথা রাখেননি। বিশ^াসঘাতকতা করেছেন। এমন কি একদিন প্রত্যেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের সাথে বৈঠকের জন্য খাবার ব্যবস্থা করতে বলেন বদি। কিন্তু বদি সেই দিন আসেননি। এরপর বদি নুরুল হুদাকে ২০ মার্চ পর্যন্ত নির্বাচনি প্রচারণনা চালিয়ে যেতে বলেন। এসব নাটকিয়তার অবশেষে ২২ মার্চ বিএনপি নেতা নাটের গুরু খাইরুল আলম চৌধুরীর বাসায় বসে নুরুল হুদার বদলে জাহাঙ্গীর আলমকে জিতানোর জন্য সিদ্ধান্ত হয়। এ বৈঠকে অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরীও উপস্থিত ছিলেন। এ পর্যন্ত তার থেকে ৯ লাখ টাকা নির্বাচনি খরচ হয়েছে। এসব কথা বলে উপস্থিত সকলের সামনে পবিত্র কোরান শরীফ মাথায় নিয়ে নুুুুুুুরুল হুদা নির্বাচন সরে দাঁড়ানোর কথা ঘোষনা দেন।
    নুরুল হুদার নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবুল মনসুর চৌধুরী।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ