• শিরোনাম

    আর্তকে কর্মকর্তা-কর্মচারী-সেবা গ্রহীতা

    মহেশখালীকে ঝুকিঁপূর্ণ ভবণে ডাক বিভাগের কার্যক্রম

    মোহাম্মদ শাহাব উদ্দীন,মহেশখালী | ০৮ জুলাই ২০১৯ | ১১:০০ অপরাহ্ণ

    মহেশখালীকে ঝুকিঁপূর্ণ ভবণে ডাক বিভাগের কার্যক্রম

    মহেশখালীর গোরকঘাটা পোস্ট অফিসের ছাঁদ ধ্বসে পড়ার দৃশ্য।

    মহেশখালী উপজেলার গোরকঘাটা পোস্ট অফিসের ভবণটি ঝুকিঁপূর্ণ হওয়ায় আতংকে রয়েছে কর্মকর্তা- কর্মচারী এবং সেবা গ্রহীতরা।যে কোন মূহুর্তে ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।
    গোরকঘাটা মৌজায় ১৪ শতক জমির উপর গোরকঘাটা বাজারের পুরাতন থানা সংলগ্ন ৭টি কক্ষ নিয়ে গোরকঘাটা প্রধান পোস্ট অফিস। একদিকে যেমন দরজা জানালা অরক্ষিত তেমনী ছাদের উপর বড় বড় পেলাস্তোরা খসে পড়ছে। প্রাণ ভয়ে কোন মতে কর্মকর্তাকর্মচারীগণ অফিস টাইম অতিবাহিত করলে ও সাধারণ গ্রাহকগণ সহজে এ পোস্ট অফিসে প্রবেশ করতে ভয় পায়। যারা একবার পোস্ট অফিসটির ছাদের দিকে তাকায় তারা আর সহজে পোস্ট অফিসে আসতে চায় না। ভবনটি যেন হাড্ডিসার কংকাল। সরকারী বেসরকারী গ্রাহকদের প্রয়োজনীয় কোটি টাকা মূল্যর ডকুমেন্ট ছাদের পানি পড়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে দিনের পর দিন। মরার উপর খরার গা, একদিকে ঝুকিপূর্ন পোস্ট অফিস ভবন অপরদিকে জনবলেল অভাব। পোস্ট মাস্টার একজন থাকলে ও ৩ অপারেটর শূণ্য, পোস্টম্যান ২ জনের স্থলে আছে ১জন। একজন পেকার পদ শূন্য, সহকারী পরিদর্শক পদে পোস্ট অফিসের যাত্রা থেকে খালি। ঝাডুদার আর নৈশপ্রহরী পদায়ন থাকলেও অনেক কর্মকর্তা বর্মচারী পদশূন্য।
    মহেশখালীর সাংবাদিক আবুল বশর পারভেজ জানান, দ্রুত বর্তমান পোস্ট অফিসটি পরিত্যাক্ত ঘোষনা করে নতুন ভবন তৈরী করা না হলে যে কোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনার শিকার হতে পারে কর্মকর্তা কর্মচারী ও সাধারন গ্রাহক।
    এব্যাপারে গোরকঘাটা পোস্ট অফিসের পোস্ট মাস্টার কানুরাম দে জানান, ঝুকিঁপূর্ণ ভবণের বিষয়ে বিগত সময়ে অনেক বার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পত্র দিয়ে জানানো হয়েছে। এখনো কোন ধরনরে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। এভাবে ঝুকিঁ নিয়ে কাজ করা হয়তো বর্ষায় যাবে না। কারণ ভবণে পানি পড়ে যে কোন মুহুর্তে বড় বিপদ হতে পারে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ