• শিরোনাম

    উখিয়ার চাকরি মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এনজিও ব্যুরোর মহাপরিচালক

    রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরে না যাওয়া পর্যন্ত মানবিক আচারণ করতে হবে

    শফিক আজাদ,উখিয়া | ০৭ জুলাই ২০১৯ | ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

    রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরে না যাওয়া পর্যন্ত মানবিক আচারণ করতে হবে

    উখিয়ায় চাকরি ও দক্ষতা উন্নয়ন মেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) কে.এম আবদুস সালাম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মিয়ানমারের বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা নাগরিকদের আশ্রয় দিয়ে বিশ্বের দরবারে মাদার অব হিউমিনিটি পুরস্কারের ভূষিত হয়েছেন। তার এই সম্মান আপনাদের আমাদের তাই এইটি রক্ষার দায়িত্ব আমাদের সকলের। প্রধানমন্ত্রী সম্প্রতি চীন সফরে গিয়েছিলেন সেখানে আমাদের দেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের স-সম্মানে ফিরিয়ে নিতে চীনের সহযোগিতা চাইলে চীন মিয়ানমারকে রাজী করানোর দায়িত্ব নিয়েছেন। যতদিন রোহিঙ্গা এদেশে থাকবে ততদিন আমাদেরকে তাদের প্রতি মানবিক আচরণ করতে হবে।
    রোহিঙ্গাদের সেবা দিতে আসা দেশি-বিদেশী এনজিও-আইএনজিওদের প্রতি মহাপরিচালক বলেন, আমরা যে সব অর্থ রোহিঙ্গা এবং স্থানীয়দের জন্য ব্যয় করছি তা যেন যথাযথ ভাবে ব্যয় হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। আর সরকারের নির্দেশনা মত কাজ করবেন।
    চাকরি মেলায় অংশ গ্রহনকারী ছেলে/মেয়েদের উদ্দেশ্যে অতিরিক্ত সচিব বলেন, শুধু এনজিওতে কেন দেশের যেকোন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরে চাকরি করার দক্ষতা বা যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। সে ব্যাপারে আমি বেশ কিছু এনজিওর সাথে কথা বলেছি যাতে দক্ষতা উন্নয়নের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেন। তবে আমরাও চাকরি করি, চাকরির ক্ষেত্রে নিদিষ্ট নিয়ম-নীতি শৃংখলা মেনে চাকরি করতে হয়। সেটি সবার মেনে চলা উচিত।
    এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহাপরিচালক এসময় উখিয়া-টেকনাফের মানুষ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে যে উদারতা দেখিয়েছে তা যেন অটুট থাকে। কারণ এতে সরকারের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে। শনিবার (৬ জুলাই) উখিয়া হাইস্কুল মাঠে দুপুর ১২টায় তিনি এসব কথা বলেন।
    সভাপতির বক্তব্যে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন বলেন, চাকরির পাশাপাশি দক্ষতা অর্জনের জন্য এই মেলার আয়োজন। আজকে এই মেলার মাধ্যমে বিভিন্ন এনজিওতে আমরা ৩১৮জনকে চাকরির ব্যবস্থা করেছি। পরবর্তী বাকী যে ৩ হাজার সিভি (জীবন বৃত্তান্ত) রেজিষ্ট্রেশন করেছেন তাদেরকে চাকরির ব্যবস্থা করা হবে। এই মেলার যেন ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকে তাই ২/৩ মাস পর পর আয়োজনের চেষ্ঠা করা হবে। তিনি আরো বলেন, মিয়ানমার থেকে আগত বলপূর্বক বাস্তুচ্যূত রোহিঙ্গার কারণে কক্সবাজারের স্থানীয় জনগোষ্ঠী ও পরিবেশ বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তাই চাকুরির ক্ষেত্রে যোগ্যতাসম্পন্ন স্থানীয় জনগোষ্ঠীর অগ্রাধিকার পাওয়ার বিষয়টি খুবই যৌক্তিক এবং তাদের চাহিদার বিষয় বিবেচনায় রেখে বাকীদের চাকরি দিতে হবে।
    অনুষ্ঠানে আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আশরাফুল আফসার স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত শরনার্থী ত্রাণও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) মোঃ মোজাম্মেল হক, কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, ইন্টারসেক্টর কো অর্ডিনেটর গ্রুপ (আইএসসিজি) এর সিনিয়র কো অর্ডিনেটর মিস নিকুল এপটিং, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নিকারুজ্জামান চৌধুরী এবং উখিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী।
    প্রসঙ্গত, গত ৪ মে এই চাকুরি ও দক্ষতা উন্নয়ন মেলা হওয়ার কথা থাকলেও ঘূর্ণিঝড় ‘ফনিথ আঘাত হানার আশংকায় তা পরে স্থগিত হয়ে যায়।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ