• শিরোনাম

    শিডিউল বিপর্যয়ে বিমান

    দেশবিদেশ অনলাইন ডেস্ক | ০৯ মে ২০১৯ | ১১:২২ অপরাহ্ণ

    শিডিউল বিপর্যয়ে বিমান

    শিডিউল বিপর্যয়ে পড়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। মিয়ানমারে সংঘটিত দুর্ঘটনায় একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ বিকল হওয়ার জেরে বৃহস্পতিবার (৯ মে) তিনটি ফ্লাইট বাতিল করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাটি। এতে দুর্ভোগে পড়েন যাত্রীরা। আগামী তিন দিনে আরও সাতটি ফ্লাইট বাতিল হবে বিমানের। অন্যদিকে বিমানের বহরে থাকা একটি বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজ মেরামতের জন্য গ্রাউন্ডেড রয়েছে।
    প্রতিবছর ঈদের সময় অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতে অতিরিক্ত ফ্লাইট পরিচালনা করে বিমান। উড়োজাহাজ নিয়ে সংকট তৈরি হওয়ায় বিমানের সম্ভাব্য অতিরিক্ত ফ্লাইট পরিচালনাও পড়েছে অনিশ্চয়তার মুখে।
    অবশ্য কাতারের আলাফকো এভিয়েশন লিজ অ্যান্ড ফাইন্যান্স কোম্পানির কাছ থেকে ছয় বছরের জন্য লিজ নেওয়া দুটি বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজ এ সপ্তাহেই বিমানের বহরে যুক্ত হওয়ার কথা।
    বর্তমানে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এই সংস্থার বহরে ১৩টি উড়োজাহাজ আছে। এর মধ্যে দুটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার, চারটি বোয়িং ৭৭৭-৩০০, চারটি ৭৩৭-৮০০ ও তিনটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ। এর মধ্যে মিয়ানমারে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে বিকল হয়ে পড়েছে একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ। আর বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজ গ্রাউন্ডেড রয়েছে মেরামতের জন্য।
    দেশের অভ্যন্তরে ঢাকা থেকে সৈয়দপুর, রাজশাহী, বরিশাল, যশোর, সিলেট, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার রুটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স তিনটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ দিয়ে ফ্লাইট পরিচালনা করে। তবে সিলেট, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার বিমানবন্দরে বড় উড়োজাহাজ অবতরণের সক্ষমতা থাকায় বোয়িং ৭৮৭, ৭৭৭ ও ৭৩৭ উড়োজাহাজ ব্যবহার করা হয়। একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ বিকল হওয়ায় সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়বে সৈয়দপুর, রাজশাহী, বরিশাল ও যশোর রুটে।
    তবে কাতারের আলাফকো এভিয়েশন লিজ অ্যান্ড ফাইন্যান্স কোম্পানির কাছ থেকে ছয় বছরের জন্য দুটি বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজ লিজ নিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস। এ সপ্তাহে এ দুটি উড়োজাহাজ দেশে আসার কথা রয়েছে। আলাফকো থেকে লিজ নেওয়া উড়োজাহাজ দুটির প্রতিটি ১৬২ জন যাত্রী ধারণে সক্ষম। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাস ১২টি ও ইকোনমিক আসন ১৫০টি।
    প্রতিবছর ঈদের সময় অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতে অতিরিক্ত ফ্লাইট পরিচালনা করে বিমান। এর মধ্যে ঈদের সময় সৈয়দপুর, যশোর ও রাজশাহী রুটের টিকিটের চাহিদা থাকে সবচেয়ে বেশি। উড়োজাহাজ নিয়ে সংকট তৈরি হওয়ায় বিমানের অতিরিক্ত ফ্লাইট পরিচালনা অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে।
    বিমানের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও ক্যাপ্টেন ফারহাত হাসান জামিল বলেন, ‘আমাদের রিসোর্স খুবই লিমিটেড। প্রতিটি উড়োজাহাজের নির্ধারিত শিডিউল আছে। এত স্বল্প সময়ে উড়োজাহাজ সংগ্রহ করাও সহজ নয়। তারপরও সংকট নিরসনে আমরা কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসবো, কীভাবে সমাধান করা যায়।’

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    মাতারবাড়ী ঘিরে মহাবন্দর

    ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ