• শিরোনাম

    সাইফুলের মৃত্যুর পর সুবিধা ভোগী এক পুলিশ কর্মকর্তার এখন কি হবে ?

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ০১ জুন ২০১৯ | ১:৫৬ পূর্বাহ্ণ

    সাইফুলের মৃত্যুর পর সুবিধা ভোগী এক পুলিশ কর্মকর্তার এখন কি হবে ?

    দেশের ইয়াবা মাফিয়ার তালিকায় ১ নম্বরে থাকা সাইফুল করিম পুলিশের সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধে নিহত হওয়ার পরই এখন ঘুরে ফিরে আসছে তার সাঙ্গ-পাঙ্গদের নাম। যাঁদের অধিকাংশই এদেশের উপর তলার মানুষ। রাজনীতিবিদ, জনপ্রতিনিধি, আমলা, পুলিশ, ব্যাংকার থেকে শুরু করে সাংবাদিকরাও রয়েছেন এই তালিকায়।
    যে কারণে দুই দশকের অধিক সময় ইয়াবা মাফিয়া হিসেবে দুর্দান্ত প্রতাপে নিজ ইয়াবা সা¤্রাজ্য দেশব্যাপী বিস্তৃত করলেও ছিলেন গণমাধ্যমের আড়ালে। এদেশের মূল ধারার গণমাধ্যমগুলো বরাবরই তাকে এড়িয়ে যেতো। সাইফুল করিমের মৃত্যুর পর এখন বিষয়টি খোলাসা হচ্ছে।
    সবচেয়ে বেশি আলোচিত হচ্ছে কক্সবাজার সদর মডেল থানার সাবেক এক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নাম। অন্য সবাইকে ছাড়িয়ে সাইফুল করিমের সাথে সরাসরিই ব্যবসাতেই জড়িয়ে পড়েন পুলিশের এই কর্মকর্তা। তাঁদের যৌথ মালিকানায় কক্সবাজার শহরের কলাতলী হোটেল-মোটেল জোনে নির্মাণ করেন একটি বিলাসবহুল আবাসিক হোটেল।
    এছাড়াও তাঁদের দুই জনের মধ্যে হয়েছে বিপুল পরিমাণ অর্থের লেনদেন। সাইফুল করিমের ম্যানেজারের দায়িত্বপালনকারী কক্সবাজার জেলা ছাত্রদলের সাবেক এক নেতা এই লেনদের মধ্যস্ততা করতেন। দীর্ঘদিন ধরে সাবেক এই ছাত্রদল নেতাও আত্মগোপনে চলে গেছেন। কথিত আছে, কক্সবাজার জেলার প্রাক্তন এক বিতর্কিত পুলিশ সুপারের সঙ্গেও ছিলো সাইফুল করিমের সখ্যতা। তিনিও বিভিন্ন সময় এক সাংবাদিকের মাধ্যমে সাইফুল করিমের কাছ থেকে নেন বিপুল পরিমাণ অর্থ।
    সাইফুল করিমের মৃত্যুর পর তাই এখন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, তার প্রকাশ্য দোসর ঐ ওসির এখন কি হবে? তাকে কি আনা হবে আইনের আওতায়। নাকি অন্য অনেক দোসরের মতো তিনি থেকে যাবেন ধরা ছোঁয়ার বাইরে?

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ