• শিরোনাম

    ২৩ ডিসেম্বর নির্বাচন ভাবনায় কক্সবাজার

    আওয়ামী লীগ- জাতীয় পাটি প্রস্তুত, বিএনপি- জামায়াত নিশ্চুপ

    দীপক শর্মা দীপু | ১০ নভেম্বর ২০১৮ | ১:১৫ পূর্বাহ্ণ

    আওয়ামী লীগ- জাতীয় পাটি প্রস্তুত, বিএনপি- জামায়াত নিশ্চুপ

    আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করা হয়েছে। আগামি ২৩ ডিসেম্বর নির্বাচন। মনোয়নপত্র সংগ্রহ ও দাখিলের শেষ সময় ১৯ নভেম্বর, মনোয়নপত্র বাছাই ২২ নভেম্বর, প্রত্যাহার ২৯ নভেম্বর। তফশিল ঘোষনার পর কক্সবাজারে রাজনৈতিক দলের মধ্যে নানা প্রতিক্রিয়া সৃষ্ট হয়। আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পাটি ঘোষিত এই তফসিলকে স্বাগত জানালেও বিএনপি এবং জামায়াতে ইসলামী নিশ্চুপ রয়েছে।
    আসন্ন সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে কক্সবাজারের ৪ আসনে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পাটির সম্ভাব্য মনোয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীরা দীর্ঘদিন আগে থেকে মাঠে চষে বেড়াচ্ছেন। এছাড়া নির্বাচনে অংশগ্রহন নিয়ে আওয়ামী লীগের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। এই দলের নেতারাও নৌকা মার্কার প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করছেন সভা সমাবেশে।
    অন্যদিকে বিএনপির মধ্যে নির্বাচনের আমেজ নেই বললেই চলে। প্রত্যাশিত তাদের কোন প্রার্থী নির্বাচনকে লক্ষ্য করে মাঠে ছিলনা, এখনো নেই। তবে রাজনৈতিক নানা আন্দোলন নিয়ে বিএনপি সক্রিয় ছিল। জামায়াতে ইসলামীর নির্বাচনি প্রতীক বাতিল ও সর্বশেষ নিবন্ধন বাতিল হয়ে যায়। এর পর থেকে তাদের কার্যক্রম নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ে। তারা নিজস্ব প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে না পারলেও স্বতন্ত্র প্রতীক নিয়ে উপজেলা, ইউনিয়ন ও পৌরসভা নির্বাচনে অংশগ্রহন করে। কিন্তু আসন্ন সংসদ নির্বাচন নিয়ে তাদের কোন নড়াচড়া নেই। যদিও অভ্যন্তরে ভোটারদের কাছে তাদের যোগাযোগ রয়েছে। একইভাবে প্রচার প্রচারনা না থাকলেও বিএনপির কাঙ্খিত প্রার্থীরা ভোটারদের কাছে যোগাযোগ রেখেছেন।
    নির্বাচন কমিশন আগামি ২৩ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচন ঘোষনা করার পর কক্সবাজারে নির্বাচন ভাবনায় তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন কক্সবাজারের বিভিন্ন দলের নেতৃবৃন্দ।
    জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান জানান, আসন্ন সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে এক বছর আগে থেকে কক্সবাজারে নির্বাচনি প্রচার প্রচারনা শুরু হয়েছে। ২৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে জেলার ৪ আসনে নৌকা প্রতীককে জেতাতে আওয়ামী লীগ প্রস্তুত। নির্বাচনি মাঠের অবস্থাও খুব ভালো। নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগ যে ঐক্যবদ্ধ তা গত কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচনে প্রমান দেয়া হয়েছে। এবারের সংসদ নির্বাচনেও ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবে আওয়ামী ।
    জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী জানান, নির্বাচন নিয়ে এখনো ভাবছেনা কক্সবাজারের বিএনপি। দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে নির্বাচন করাটা আমাদের কাছে গুরুত্ব নেই। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার আন্দোলন নিয়ে সক্রিয় বিএনপি। তবে দলের কেন্দ্রিয় কমিটির নির্দেশনা আসলে নির্বাচন নিয়ে মাঠ নামবে কক্সবাজারের নেতা কর্মিরা। তবে এখনো সিরিয়াসলি নির্বাচনমুখি নয় বিএনপি। নির্বাচনের অংশগ্রহনের প্রস্তুতি সামনে নেয়া হলেও মাঠ আগে থেকেই বিএনপির ধানের শীর্ষের পক্ষে রয়েছে।
    ঘোষিত নির্বাচনি তফসিলকে স্বাগত জানিয়ে জাতীয় পাটির সিনিয়র সহ সভাপতি এডভোকেট মো: তারেক জানান, জাতীয় পাটি নির্বাচনমুখি দল। আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে দীর্ঘদিন আগে মাঠে কাজ করছে জাতীয় পাটি। কক্সবাজারের ৪ টি আসনে জাতীয় পাটি নির্বাচনে অংশগ্রহন করতে প্রস্তুত রয়েছে এবং ৪টি আসনেই জাতীয় পাটির প্রার্থী দেয়া হবে।
    জেলা জামায়াতে ইসলামীর আমীর মৌলানা মোস্তাফিজর রহমান জানান, রাজনৈতিক সংলাপ করার আগে ন্যাক্কারজনক ভাবে গজবী মামলা দিয়ে সারাদেশে বিরোধী নেতাকর্মীদের বন্দি করা হয়েছে। এরপর সংলাপ নিয়ে নাটক মঞ্চস্থ করা হয়। এই সংলাপ থেকে কোন ফলাফল পায়নি দেশের জনগন।
    আগামি নির্বাচন থেকে জাতি কোন সুফল আশা করতে পারছেনা। এই নির্বাচন জাতির জন্য কল্যানকর হবেনা। তাই এখনো পর্যন্ত কক্সবাজারে নির্বাচনে অংশগ্রহন নিয়ে ভাবছেনা । তবে কেন্দ্রিয় সিদ্ধান্ত আসলে তখন জামায়াতের পক্ষ থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী দিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহনের প্রস্তুতি নেয়া হবে। ###

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ