• শিরোনাম

    কোটি টাকার ফুল বিক্রি চকরিয়ায়

    আজ বিশ্ব ভালবাসা দিবস

    ছোটন কান্তি নাথ, চকরিয়া | ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১২:২৬ পূর্বাহ্ণ

    আজ বিশ্ব ভালবাসা দিবস

    গোলাপনগর খ্যাত চকরিয়ার বরইতলী ইউনিয়নের ফুল বাগান থেকে আগাম অর্ডারের ফুল বিক্রির ধুম পড়ে। ছবিটি গতকাল তোলা।

    আজ বিশ্ব ভালবাসা দিবস। প্রতিটি মানুষ তার প্রিয়জনকে আলাদা করেই ভালবাসতে পছন্দ করেন। বিশেষ করে এই দিবসকে স্মরণীয় করে রাখতে তরুণ-তরুণীদের আয়োজনের কমতি থাকেনা। আর ফুল ছাড়া তো এই ভালবাসা দিবস উদযাপনের কথা চিন্ত করা যায়না। তাই চাহিদা মেটাতে চট্টগ্রাম, কক্সবাজারসহ দেশের বিভিন্ন জায়গার ব্যবসায়ীরা কক্সবাজারের চকরিয়ার গোলাপ নগর খ্যাত বরইতলী ও হারবাং থেকে আগেভাগেই বিভিন্ন প্রজাতির ফুল কিনে নিয়েছেন। কয়েকদিন আগে থেকেই পাইকাররা আগাম অর্ডারও দিয়ে রেখেছিলেন। এবারের ভালবাসা দিবস উপলক্ষে চকরিয়ার চাষিরা বিক্রি করেছেন বিভিন্ন প্রজাতির অন্তত কোটি টাকার ফুল।
    বরইতলী ও হারবাং ইউনিয়নের ফুল চাষিরা জানান, গোলাপ নগরখ্যাত বরইতলী ও হারবাং ইউনিয়নে প্রায় পাঁচ শতাধিক নারী-পুরুষ শ্রমিক বাণিজ্যিকভাবে সৃজিত রকমারী ফুলের বাগানে পালাক্রমে শ্রম দিয়েছেন। বিশ্ব ভালবাসা দিবসকে ঘিরে ফুল বেচাকেনার ধুম পড়ে যায় এখানে। বিশেষ করে গোলাপ ও গøাডিওলাস ফুল বিক্রি বেশি হয়েছে বেশি। এবারও লাভের মুখ দেখেছে চাষিরা।
    চকরিয়ার রকমারী ফুলের চাহিদা রয়েছে বেশি চট্টগ্রামের কাজীর দেউরি, চেরাগী পাহাড়, আগ্রাবাদসহ মহানগরের বড় বড় ব্যবসায়ীদের। তারা এখানকার চাষিদের কাছে অন্তত একমাস আগেই নানা রঙের গোলাপ, গøাডিওলাস, রজনীগন্ধাসহ রকমারী ফুলের চাহিদা দিয়ে থাকেন। এবারের বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষেও এর ব্যতিক্রম হয়নি। সেই হিসেবে চট্টগ্রাম, কক্সবাজারসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের অন্তত তিন শতাধিক পাইকার কোটি টাকার ফুলের অর্ডার দিয়ে রাখেন। এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন চকরিয়ার বরইতলী গোলাপ বাগান মালিক সমিতির আহবায়ক মো. মঈনুল হোসেন।
    চকরিয়ার বরইতলী থেকে পাইকারি দরে কিনে চট্টগ্রাম মহানগরীর চেরাগী পাহাড় মোড়ে ফুল বিক্রি করেন বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী। তাদেরই একজন সুভাষ দে বলেন, ‘প্রতিদিন গড়ে ৫-১০ হাজার পিস ফুল কেনা হয় চকরিয়ার বরইতলী থেকে। আর বিশেষ দিবসে তা কয়েকগুন ছাড়িয়ে যায়। এবারের ভালবাসা দিবস উপলক্ষ্যে আগাম অর্ডার দেওয়া হয়েছে প্রায় ৫০ হাজার গোলাপ ও গøাডিওলাস ফুল সংগ্রহ করা হয়েছে।’
    বরইতলী একতা বাজার এলাকার ফুলচাষি নজির আহমদ বলেন, ‘আমি একসময় তামাকের চাষ করতাম। তখন মুনাফাও ভাল পেয়েছিলাম। কিন্তু হাড়ভাঙা খাটুনি ও দিন-রাত পরিশ্রমের কারণে শরীরের অবস্থা তেমন ভাল যাচ্ছিল না। তাই অন্যের দেখাদেখিতে তামাক চাষ ছেড়ে গত সাতবছর ধরে উদ্যোগী হই ফুল চাষে। বর্তমানে দেশে শান্তি বিরাজ করায় দুইকানি জমিতে গোলাপ ও গøাডিওলাস ফুলের চাষ করেছি। ফলনও ভাল এবং দামও পাওয়ায় বেশ খুশি লাগছে।’
    নজির আহমদ আরো বলেন, ‘প্রতিদিন সকালে বাগান থেকে ফুল তোলার পর চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের পাইকাররা সরাসরি এসে কিনে নিয়ে যাচ্ছে। অনেকে পাইকার আগাম অর্ডারও দিয়ে রেখেছেন ভালবাসা দিবস উপলক্ষে। এবারের ভালবাসা দিবস উপলক্ষে প্রায় তিন লাখ টাকার ফুল বিক্রি করেছি।’
    চাষিরা জানান, দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীল পরিবেশ বজায় থাকা প্রতিটি গোলাপের দাম মানভেদে পাইকারিভাবে বিক্রি হচ্ছে ৮ থেকে ১০ টাকায়। আর রকমারী রংয়ের গøাডিওলাস ফুল বিক্রি হচ্ছে ১০ থেকে ১৫ টাকায়। এতে চাষির পাশাপাশি বাগান পরিচর্যা ও ফুল তোলায় নিয়োজিত প্রায় পাঁচ শতাধিক নারী-পুরুষ শ্রমিকের মুখেও হাসি ফুটেছে নিয়মিত পারিশ্রমিক পাওয়ায়।
    বাগান শ্রমিক বরইতলী পূর্ব পাড়ার আকলিমা বেগম, বুড়ি খাতুন বলেন, ফুল বাগানে শ্রম দিয়ে প্রতিদিন রোজগার করছি। এতে পরিবারের অভাব-অনটন বলতে গেলে আর নেই।’
    সরজমিন ফুল চাষি ও শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দক্ষিণ চট্টগ্রামের গোলাপ ফুলের গ্রাম কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ও হারবাং ইউনিয়নের দেড় শতাধিক বাগান থেকে প্রতিদিন চট্টগ্রাম-কক্সবাজারসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গোলাপ ও গøাডিওলাস ফুল সরবরাহ করা হয় পাইকারদের কাছে। বিশেষ বিশেষ দিনগুলোতে এসব বাগানের ফুলের ব্যাপক কদর রয়েছে। গত দুই দশক ধরে এখানকার চাষীরা রুটি-রুজির একমাত্র অবলম্বন হিসেবে ফুল চাষ করে আসছেন। প্রথমদিকে সামান্য জমিতে নানা জাতের ফুলের চাষ হলেও বর্তমানে দুই ইউনিয়নের অন্তত ১২০ একর জমিতে চাষ হচ্ছে ফুলের।
    বরইতলী ফুল বাগান মালিক সমিতির আহবায়ক মো. মইনুল ইসলাম বলেন, ‘বরইতলী ও হারবাং ইউনিয়নের ১২০ একর জমিতে পুরোদমে ফুলের চাষ করছে হাজারো চাষি। বর্তমানে রাজনৈতিক উত্তাপ না থাকায় এবারের ভালবাসা দিবসসহ সবকটি দিবসে ফুল বিক্রিও ভাল হয়েছে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ