শুক্রবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

আদালতেই নিজের বুকে গুলি করলেন বিচারপতি!

দেশবিদেশ অনলাইন ডেস্ক   |   রবিবার, ০৬ অক্টোবর ২০১৯

আদালতেই নিজের বুকে গুলি করলেন বিচারপতি!

খুনের ঘটনায় অভিযুক্তদের বেকসুর খালাস দেওয়ার পর ভরা আদালতে নিজের বুকে গুলি চালিয়েছেন এক বিচারপতি। থাইল্যান্ডের ওই বিচারপতির নাম কানাকর্ন পিয়ানাচানা ৷ সম্প্রতি থাইল্যান্ডের একটি প্রভিন্সিয়াল আদালতে এ ঘটনা ঘটে। থাইল্যান্ডের ইতিহাসে এমন ঘটনা অভূতপূর্ব।

ব্যাংকক পোষ্টের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, থাইল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলীয় ইয়ালা শহরে অবস্থিত আদালতে বিচারপতি কানাকর্ন পিয়ানাচানা একটি পিস্তল দিয়ে নিজের বুকে গুলি চালান। নিজেকে গুলি করার আগে দেশের বিচার ব্যবস্থার কড়া সমালোচনাও করেন তিনি ৷  তিনি এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৷ চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তিনি এখন বিপদমুক্ত।

জানা গেছে, পুরো ঘটনাটাই ফেসবুকে লাইভ হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে দক্ষিণ থাইল্যান্ডের ইয়ালা আদালতে খুনের মামলায় রায় দান চলছিল ৷ মামলায় পাঁচ অভিযুক্তের সাজা ঘোষণা হওয়ার কথা ছিল ৷ কিন্তু উপযুক্ত প্রমাণের অভাবে পাঁচজনকেই বেকসুর খালাস করে দেন বিচারপতি কানাকর্ন পিয়ানাচানা। তারপর দেশের বিচার ব্যবস্থার তীব্র সমালোচনা করে পকেট থেকে পিস্তল বের করে নিজের বুকে গুলি করেন ৷

বিচারপতি বলেন, আমাদের দেশের বিচারব্যবস্থা ত্রুটিপূর্ণ। যাঁরা ধনী ও প্রভাবশালী, তাঁরা গুরুতর অপরাধ করলেও অর্থ ও ক্ষমতার জোরে পার পেয়ে যান । সাধারণ মানুষ সামান্য অপরাধ করলেও তাঁদের কঠোর শাস্তি হয়।

তিনি বলেন, আমি বলছি না যে, খুনের মামলায় যাদের বেকসুর খালাস করলাম তারা অপরাধ করেনি ৷ তারা খুন করতেই পারে ৷ কিন্তু আমাদের ত্রুটিপূর্ণ বিচারব্যবস্থার জন্য তাদের সাজা দেওয়া সম্ভব নয় । উপযুক্ত প্রমাণ ছাড়া কাউকে সাজা দেওয়া যায় না। কারণ তেমনটা করলে অনেক নির্দোষ মানুষ বলির পাঁঠা হবে। ভিড়ে ঠাসা আদালত কক্ষে বিচারপতির পুরো বক্তব্য ফেসবুক লাইভে সম্প্রচারিত হয় ৷

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, নিজের বক্তব্য শেষ করার পরেই বিচারপতি সাবেক রাজার ছবির সামনে দাঁড়িয়ে আইনি শপথ নেন এবং নিজের বুকে গুলি চালান।

আদালতের মুখপাত্র সুরিয়ান হংভিলাই জানান, ওই বিচারপতি বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাঁর দাবি, ব্যক্তিগত অবসাদের জেরেই তিনি নিজেকে গুলি করেছেন ৷ তবে সেই অবসাদের কারণ কী, তা এখনও স্পষ্ট নয় ৷ ঘটনার তদন্ত হবে।

সূত্র : দ্য গার্ডিয়ান, ইটিভি ভারত, ইরান ডেইলি

 

Comments

comments

Posted ৫:১৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, ০৬ অক্টোবর ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com