• শিরোনাম

    আদালতে মামলা থাকা স্বত্বেও রুমালিয়ারছড়ায় ভবন দখলের চেষ্টা

    বার্তা পরিবেশক | ৩০ জুন ২০১৯ | ১:১০ পূর্বাহ্ণ

    আদালতে মামলা থাকা স্বত্বেও রুমালিয়ারছড়ায় ভবন দখলের চেষ্টা

    আদালতে মামলা থাকা স্বত্বেও কক্সবাজার শহরের উত্তর রুমালিয়ারছড়া এলাকায় চিহ্নিত দখলবাজররা ভবন দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত কয়েকদিন ধরে ভবনটি সরওয়ার নামে এক ব্যক্তি তার দখল নেয়ার জন্য বিভিন্ন উপায়ে দখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে অভিযোগ ভোক্তভুগি পরিবারের। দখলবাজ সরওয়ার কামাল সদরের ঝিলংজা ইউনিয়নে খুরুলিয়া কোনাপাড়া এলাকার মৃত ছৈয়দ আহমদের ছেলে। কক্সবাজার আদালতে মামলাধীন এবং সদর মডেল থানায় বিচারাধীন থাকা স্বত্বেও পুলিশের সহায়তায় হামলা চালাচ্ছেন সরওয়ার কামালের নেতৃত্বে একদল দখলবাজ। কক্সবাজার আদালতের মামলা নং- ১৭৩/১৯।
    এ বিষয়ে ভবনের ওয়ারিশদার কক্সবাজার আদালতে শিক্ষানবিশ আইনজীবী হিসেবে কর্মরত থাকা এনামুল হক বলেন, প্রথমেই উক্ত ভবনের জায়গার একাংশ অর্থাৎ ৬ শতক জায়গা আমার ভাই মোক্তার আহমদ ও শামসুল আলম ক্রয় করেছিল। পরবর্তীতে আমি এনামুল হক, মনজুর আলম ও শহিদুল্লাহ ও শামসুল আলমসহ পাঁচ ভাই মিলে আরও ৮ শতক জায়গা ক্রয় করছি। আমাদের মোট ক্রয়কৃত জায়গা ১৪ শতক। কিন্তু আমার ভাই মোক্তার আহমদ দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরব থাকে। একই ভাবে সরওয়ার কামালের ভাই আবছারও সোদি আরব রয়েছে। সৌদি আরবে মোক্তার আহমদ ও আবছার পাটনারশীপ ব্যবসা করতো। সে ব্যবসার খাতিরে সৌদি আরব আমার ভাই মোক্তার আহমদকে জিম্মি করে খালী চেক ও ষ্ট্যাম্প নিয়েছে। তারপর থেকে সৌদি আরবে আমার ভাইকে মোক্তারকে বিভিন্ন ধরণের হুমকি ধমকি দিত আবছার। পাশাপাশি আবছার দাবি করে বলেন, আমার ভাই সরওয়ার কামালের নামে ৩ শতক জায়গা দিতে হবে। পরবর্তীতে সেই নিরুপায় হয়ে আবছারের পাওয়ার অব ইনটেন্ট মূলে সরওয়ার কামালকে ৩ শতক জায়গা দিলো। সেই ৩ শতকের জন্য ১৪ শতকের অর্থাৎ পুরো ভবন দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে সরওয়ার। উক্ত জায়গা ও ভবনের বিষয় নিয়ে আমাদের আসামী করে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা থানায় হাজির হয়। এরপর থানায় উভয়পক্ষকে নিয়ে গত ২৭ জুন একটি বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে সমাধান হয়নি। সমাধান না হওয়া পর্যন্ত ওই ভবনে কোন কাজ করা যাবে না, পাশিপাশি ভবনের নিচে একটি ফার্নিচানের দোকান আছে তাও বন্ধ রাখতে হবে। সে অনুযায়ী ওই ভবনে কোন ধরণের কাজ হচ্ছে না এবং দোকানও বন্ধ রাখছি। পরবর্তীতে উভয়ের সম্মতিক্রমে আগামী ২ জুলাই মঙ্গলবার একটি বৈঠকের সিদ্ধান্ত হয়। সেই মঙ্গলবার আসার আগেই ২৯ তারখি পুলিশের সহায়তায় হামলা চালিয়েছে সরওয়ার তার সিন্ডিকেটরা। ভবনে থাকা আমি ও আমার মাকে নাজেহাল ও মারধর করতে চেয়েছে তারা। এ বিষয়ে আমরা প্রশাসনের কাছে নিরাপত্তার জন্য হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ