• শিরোনাম

    ইসলামপুরের বঙ্গবন্ধু পাগল শের আলীর শেষ ইচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করা!

    সেলিম উদ্দীন,ঈদগাঁহ | ২০ আগস্ট ২০১৯ | ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ

    ইসলামপুরের বঙ্গবন্ধু পাগল শের আলীর শেষ ইচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করা!

    জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এই নামটির সঙ্গে মিশে আছে বাঙ্গালীর অনন্য আবেগ। তাইতু দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে আছে বঙ্গবন্ধু পাগল কিছু মানুষ। জাতির পিতার জন্য অন্তহীন শ্রদ্ধা মিশে আছে যাদের দৈনন্দিন কর্মকান্ডে।
    কক্সবাজার সদরের ইসলামপুর জুমনগরের তেমনি একজন বঙ্গবন্ধু ভক্ত বয়োবৃদ্ধ শের আলী। শের আলী গত ৪২ বছর ধরে প্রতি ওয়াক্তে বঙ্গবন্ধুর হয়ে নফল নামাজ পড়েন। কিছু চাওয়ার নেই তার। হতদরিদ্র শের আলী শুধু চান, আল্লাহ যেনো বঙ্গবন্ধুকে বেহেস্তে নসীব করেন। আর বঙ্গবন্ধু পাগল শের আলী মৃত্যুর আগে প্রধানমন্ত্রীর সাথে একবার দেখা করতে চান। বয়স ঠিক গুনে গুনে বলা না গেলেও অনুমান করা হয় ৭৬ পার হয়েছে। চেহারায় সারল্য ও এক কঠিন ব্যক্তিত্বের মিশ্রন তার সর্বাঙ্গে। তিনি একজন বঙ্গবন্ধু ভক্ত। পৃথিবীর কাছে তার খুব বেশী কিছু চাওয়ার নেই। তিনি শুধু একটিবার, শুধু একটিবার দেশের প্রধানমন্ত্রীকে দেখতে চান। যে বঙ্গবন্ধুর ডাকে দেশ স্বাধীন হয়েছে, একটি স্বাধীন বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে, সেই বঙ্গবন্ধুর রক্ত আছে আজকের প্রধামন্ত্রীর শরীরে। সেই রক্তের ডাক তিনি তার ভিতরে শুনতে পান। একটিবার, শুধু একটিবার তিনি প্রধানমন্ত্রীকে দেখতে চান।

    ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফরিদুল আজিম দাদা বলেন, শের আলী ইসলামপুরের একটি হতদরিদ্র পরিবারের হয়েও দলের জন্য কাজ করছেন। তিনি এখনো ১৫ আগস্ট আসলে বঙ্গবন্ধুর জন্য মুরগী জবাই করে ফাতেহা দেন, বঙ্গবন্ধু ও তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হায়াত বৃদ্ধির জন্য নামাজ ও দোয়া করেন। শের আলী সময় পেলে এখনো আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ সংগঠনের কোন মিটিং মিছিল বাদ দেন না। এখনো প্রতি বছর শোক র‌্যালীতে তার সরব উপস্থিতি লক্ষ্যনীয়।

    ঈদগাঁহ সাংগঠনিক উপজেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ঠিকাদার মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, ইসলামপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড জুমনগর (অরলতলি) এলাকায় একমাত্র পুত্র নিয়ে বনবিভাগের জমির উপর বসবাস করছেন শের আলী। ছেলের বাড়িতে আবাস তার। এই বাড়ীতেই গত তিন বছর আগে তিনি স্ত্রীকে হারিয়েছেন। নিঃসঙ্গতাকে সঙ্গী করে সাদাসিধে মানুষটি জীবন অতিবাহিত করছেন। বঙ্গবন্ধু পাগল এই শের আলীর সাথে নতুন অফিস বাজারে দীর্ঘ আলাপে উঠে এসেছে, সাধারণ এই মানুষের অসাধারণ অনুভুতি আর আবেগ বলে দেয় মৃত্যু জাতির জনককে করেছে অমর। সাদা মনের সরল মানুষটি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আর্দশ বুকে আগলে রেখেছেন। বঙ্গবন্ধুর হয়ে সারাটি জীবন নফল নামাজ আদায় করছেন।

    ১ ছেলে ও ৫ মেয়ের জনক শের আলী প্রতিটি সন্তানকে বিয়ে দিয়েছেন। ৭৬ বছর উর্ধ্ব মানুষটি আজ পাগল প্রায় হন্যে হয়ে ঘুরছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে দেখা করবেন বলে। প্রিয় নেতার সন্তানকে এক নজর দেখে দুটি কথা বলবেন বলে । ইতোপূর্বে কক্সবাজারে বিভিন্ন সভায় প্রধানমন্ত্রীকে খুব কাছ থেকে দেখার ইচ্ছা থাকলেও সুযোগ না হওয়ায় দেখা মেলেনি প্রিয় নেত্রীর। জীবনের শেষ অধ্যায়ে একজন বঙ্গবন্ধু পাগল মানুষটির তার ইচ্ছেটা পূরণ করতে পারলে তার আত্মা শান্তি পাবে, এমনই দাবী তার। জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানকে আর শেখ হাসিনাকে কতোটা ভালোবাসে-মানুষ কতোটা ভক্ত হতে পারে তার উদাহরণ শের আলী। বঙ্গবন্ধুর ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মৃত্যু নামের কবিতায়ও তার নাম স্থান পেয়েছে।

    তাকে নিয়ে বাংলাদেশ টেলিভিশনে “কক্সবাজারে কয়েকজন বঙ্গবন্ধুভক্তের কথা’ শিরোনামে প্রতিবেদন হয়েছে। তিনি অসুস্থ, চোখে ঝাপসা দেখেন, কানে কম শুনেন, তিনি নিজেকে মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে মনে করছেন।
    তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে তার কোন চাওয়া-পাওয়া নেই। তবে তার একটাই ইচ্ছে তা হল মৃত্যুর আগে ‘শেখ হাসিনার সাথে দেখা করা’ শুধু একই ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন শের আলী। তাকে দেখলেই বুঝা যায় সে কতোটা বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ভক্ত। জানিনা তার ইচ্ছেটা পূর্ণ হবে কিনা তবুও তার এই মানবিক আবেদন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টিগোচর হবে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    মাতারবাড়ী ঘিরে মহাবন্দর

    ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ