মঙ্গলবার ২২শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

উখিয়ার ভাঙাচোরা সড়ক কাঁদা মাটিতে একাকার, তীব্র যানজট, দুর্ভোগে যাত্রীরা

শফিক আজাদ, উখিয়া   |   বুধবার, ১৫ জুলাই ২০২০

উখিয়ার ভাঙাচোরা সড়ক কাঁদা মাটিতে একাকার, তীব্র যানজট, দুর্ভোগে যাত্রীরা

কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি পানি জমে সৃষ্টি হয়েছে গর্ত। এই সংক্রান্ত একটি সংবাদ স্থানীয় দৈনিক আজকের দেশবিদেশসহ বিভিন্ন নিউজ পোর্টালে প্রকাশ করা হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কাঁচা মাটি দিয়ে গর্ত গুলো ভরাট করে দেয় কিন্তু কিছুক্ষণে মধ্যে বৃষ্টি হলে কাঁদায় একাকার হয়ে সড়কটি। যার ফলে স্থানে চলাচলকারী যানবাহনে যানজট সৃষ্টি সহ দুর্পাল্লার যাত্রীদের চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে।
মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) সকালে উখিয়া স্টেশন থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্থানে সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে জনদুর্ভোগের এ ভয়াবহ চিত্র। এমনিতেই টানা বৃষ্টিতে পানি জমে সড়কের অবস্থা নাজুক এর মধ্যে সড়কে চারলাইন নির্মাণকাজে অনেক জায়গায় রাস্তা খুঁড়ে করা হয়েছে। তাই এই এলাকায় যানজট ও জলজট নিত্যদিনের চিত্র হয়ে উঠেছে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উখিয়ার মরিচ্যা লাল ব্রিজ থেকে পালংখালী ব্রিজ পর্যন্ত দীর্ঘ ১৫ কিলোমিটার এলাকায় উখিয়া-টেকনাফ মধ্যে স্টেশন কেন্দ্রিক কিছু অংশ ছাড়া বাকী স্থানে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্তের। সেই গর্তে ভরাট হয়ে রয়েছে পানি। চলাচলকারী বাস, ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন গর্তে পড়ে দূর্ঘটনায় পতিত হচ্ছে। যাতায়াতকারীরা দাঁড়ানোর জায়গা পাচ্ছেন না। অনেকে পায়ে হেঁটে রাস্তা পার হওয়ার সময় কাঁদা এসে লাগছে গায়ে। এতে পথচারী পড়ছেন বিব্রতকর পরিস্থিতিতে।সড়কে গর্তের কারণে যানবাহনগুলো অত্যন্ত ধীরগতিতে চলাচল করছে। ফলে এইসব এলাকায় সৃষ্টি হচ্ছে যানজট।
এছাড়া সড়কের বিভিন্ন স্থানে ইটের বøক, কংক্রিটসহ বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী পড়ে থাকায় সড়কটি খুবই সংকীর্ণ হয়ে গেছে। যার ফলে সংকীর্ণ ভাঙ্গাচোরা সড়কে সৃষ্টি হচ্ছে তীব্র যানজট। এ যানজটে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং অফিসগামী যাত্রীদের দুর্ভোগ লক্ষ্য করা যায়। গাড়ী থেকে নেমে এনজিওকর্মীরা ক্যাম্পে যেতে দেখা গেছে।
একাধিক পথচারী বলেন, বৃষ্টিতে কাঁদা আর শুষ্ক মৌসুমে ধুলায় আমাদের জীবন আর ব্যবসা শোচনীয়। দুই দিন পরপর ইট দিয়ে লোক দেখানো কাজ করে, সেটা কয়েকদিন পরেই নষ্ট হয়ে যায়। আর ভোগান্তিতে পড়ে সাধারণ মানুষ। স্থানীয়রা আরো জানায়,অল্প টুকু জায়গার জন্য আমাদের প্রতিনিয়তই ভোগান্তির শিকার হতে হয়। এই জোড়াতালির কাজ না করে স্থায়ী মেরামত করার দাবি জানান তারা।
তারা আরো বলেন, মঙ্গলবার সকালে পানি জমে সৃষ্টি হওয়া গর্তে কাঁচা মাটি দেওয়ায় বৃষ্টিতে কাঁদায় একাকার হয়ে আরকার সড়ক।
উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নিকারুজ্জামান চৌধুরী জানান, কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কটি সংস্কার কাজ চলমান রয়েছে। টানা বৃষ্টির কারনে সড়কের কিছু অংশে পানি জমে খানা-খন্দকের পাশাপাশি কাঁদা সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেছি, আশাকরি দ্রুত সময়ের মধ্যে সড়কটি সংস্কার কাজ হয়ে যাবে। এরপর সড়কে বর্তমানে যে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে তা আর থাকবেনা।
এবিষয়ে সড়ক ও জনপদ বিভাগরে নির্বাহী কর্মকর্তা পিন্টু চাকমার সাথে কথা হলে তিনি বলেন- সড়ক সংস্কার কাজ চলমান। কিন্তু বৃষ্টির কারণে কাজ করা সম্ভব হচ্ছেনা। তাই একটু ভোগান্তি হচ্ছে। কয়েকদিন আশা করি এই পরিস্থিতি থাকবেনা।

Comments

comments

Posted ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ১৫ জুলাই ২০২০

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com