বুধবার ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

উখিয়ায় ধানক্রয় কার্যক্রম হতাশাব্যঞ্জক

রফিক উদ্দিন বাবুল   |   রবিবার, ২০ জুন ২০২১

উখিয়া সরকার দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করার মহান উদ্যোগ নিয়ে সারা দেশব্যাপী কৃষকদের নিকট থেকে ন্যায্য মূল্যে ধান সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু করলেও উখিয়ায় তা আশানুরূপ ফলপ্রসু হয়নি। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের বেঁধে দেওয়া সময়সীমার মধ্যে লক্ষ্যমাত্রা ধান ক্রয় সম্ভব হয় কিনা তা নিয়ে হতাশায় ভোগছেন সংশ্লিষ্টরা। উখিয়া খাদ্য গুদাম সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতি মৌসুমের ন্যায় এবারও খাদ্য মন্ত্রণালয় ধান চাল সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু করেছে। ২৫ এপ্রিল ৫৫৪ মে.টন ধান কেজি প্রতি ২৭টাকা দরে ক্রয় করার লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিয়ে প্রজ্ঞাপন প্রাপ্তির ধারাবাহিকতায় উখিয়া খাদ্য গুদাম কর্তৃপক্ষ ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে ধান সংগ্রহ অভিযানের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করে। এমনকি খাদ্য গুদাম কর্তৃপক্ষ স্থানীয় মিলারদের সহযোগীতায় কৃষকদের খাদ্য গুদামে ধান বিক্রয়ে উদ্ধুদ্ধ করলেও তা কাজে আসেনি। মিলারদের অভিমত সরকারের বেঁধে দেওয়া ধানের ক্রয় মূল্যের চাইতে স্থানীয় বাজার দর বেশি হওয়ার কারণে কৃষকেরা খাদ্য গুদামে ধান বিক্রয় করতে অনিহা প্রকাশ করছে। তাছাড়া খাদ্য গুদামের ধান বিক্রি করতে গিয়ে বেশ কিছু নীতিমালা অনুসরণ করতে হয়। যা সাধারণ কৃষক এটাকে উদ্বৃত ঝামেলা মনে করে ধান বিক্রি করতে অনিচ্ছা প্রকাশ করে। স্থানীয় কৃষক হাজী আব্দুর রহমান জানায়, সে আমন ও বোরো মৌসুমে চাষাবাদ করে আসছেন দীর্ঘদিন থেকে। অন্যান্য বার তার উৎপাদিত ধান খাদ্য গুদামে বিক্রি করলেও এবার সে গুদামে ধান দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। এর কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ওই কৃষক বলেন, সরকার ধান ক্রয় করছে মন প্রতি ১০৮০ টাকা, কেজি প্রতি ২৭টাকা দরে। অথচ বেপারীরা এর চাইতে উচ্চ মূল্য দিয়ে বাড়ী থেকে ধান ক্রয় করে নিয়ে যাচ্ছে। তাই খাদ্য গুদামে ধান দেওয়ার কোন যুক্তি নাই। এভাবে একাধিক কৃষক খাদ্য গুদামেধান বিক্রয়ে অনিচ্ছা প্রকাশ করতে দেখা গেছে। মিলার সমিতির সভাপতি আলহাজ¦ কবির আহমদ জানায়, বোরো ধানের বাজার দরের চাইতে সরকারের বেঁধে দেওয়া মূল্যের ব্যবধানের কারণে কৃষকেরা খাদ্য গুদামে ধান বিক্রয় করতে চাইছে না। তাছাড়া বর্ষাকালীন সময়ে স্থানীয় কৃষকেরা ধান নিয়ে অযথা ঝক্কি ঝামেলা পোহাতে চাইছে না। উখিয়ার ওসি এলএসডি সুজিত বিহারী বলেন, লক্ষ্যমাত্রা ধান ক্রয়ের জন্য শুরু থেকে এ পর্যন্ত ব্যাপক প্রচারণা চালানো হয়েছে। তাছাড়া কৃষকদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ করার পরও এ পর্যন্ত ৩৫ মে.টন ধান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছে। তিনি বলেন, ধান ক্রয়ের শেষ তারিখ ১৭ই জুনের মধ্যে লক্ষ্যমাত্রা ধান ক্রয়ে না হলেও সন্তোষজনক ধান সংগ্রহের ব্যাপারে মাঠ পর্যায়ে সক্রিয় রয়েছে। কৃষকেরা যাতে স্বইচ্ছায় খাদ্য গুদামে ধান বিক্রয়ে উৎসাহী হয় সে ব্যাপারে কাজ করা হচ্ছে।

Comments

comments

Posted ১২:৩৯ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২০ জুন ২০২১

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

(326 বার পঠিত)

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com