শুক্রবার ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম
ফসল বাঁচাতে কৃষি বিভাগের মাইকিং, দিশেহারা কৃষক

উখিয়ায় বোরো ধানে মহামারি আকারে ধারণ করেছে ব্লাস্ট রোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি,উখিয়া   |   রবিবার, ১৭ মার্চ ২০১৯

উখিয়ায় বোরো ধানে মহামারি আকারে ধারণ করেছে ব্লাস্ট রোগ

উখিয়ায় বোরো ধান ক্ষেতে মরামারি আকারে ধারণ করেছে ‘ব্লাস্ট’ রোগ। কৃষি বিভাগ শত চেষ্ঠা করেও ফসল বাঁচাতে ব্যর্থ হচ্ছে। দিন দিন এই রোগের মাত্রা বেড়ে যাওয়া কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে দায় ছাড়ানোর জন্য উখিয়া সদরে শনিবার সন্ধ্যা থেকে শুরু করেছে মাইকিং। এছাড়াও কৃষি অফিসে যেগাাযোগ করার কৃষকদের মাইকিং করে বলা হচ্ছে। এই রোগের কারনে কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। সরজমিন উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ঘুরে বোরো চাষাবাদ মারাত্মক ভাবে ব্লাস্ট রোগের আক্রান্ত একটি প্রতিবেদন গত ১৪ মার্চ জেলার বহুল প্রচারিত দৈনিক আজকের দেশবিদেশ পত্রিকায় প্রকাশিত হলে ঘুম ভাঙ্গে কৃষি বিভাগের।
কৃষকেরা জানিয়েছেন, ব্লাস্ট রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ায় ফলন বিপর্যয়ের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে স্থানীয় কৃষকদের মধ্যে। ফলে স্থানীয় কৃষকেরা এ নিয়ে দুশ্চিতায় পড়েছে। ছত্রাকনাশক ওষুধ স্প্রে করেও কৃষকরা রোগের বিস্তার থামাতে পারছেন না। তারা জানান, বিআর-২৮ ধান এ রোগে আক্রান্ত হয়েছে বেশি। এর থেকে অন্য ধানে রোগ ছড়াচ্ছে বলে তাদের অভিমত।
উখিয়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানা যায়, চলতি বোরো মৌসুমে উখিয়ার ৫টি ইউনিয়নের ৬ হাজার ৪শ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষ হয়েছে। তৎমধ্যে প্রায় আড়াই হাজার হেক্টর বিআর-২৮ ধান। এসব ক্ষেতের বেশির ভাগ ব্লাস্ট রোগ দেখা দিয়েছে। তবে এ রোগ থেকে বোরো চাষাবাদ বাঁচানোর জন্য অপ্রাণ চেষ্ঠা করেও সম্ভব হচ্ছেনা। বালাইনাশক ছিটিয়েও ঠিক কাজ হচ্ছে না। শীষের গোড়া পচে চিটা হয়ে যাচ্ছে। এ যেন ‘পাকা ধানে মই দেওয়া’! অর্থ, শ্রম, ঘাম এক করে ফলানো ধানে শেষ সময়ে ব্লাস্টের প্রাদুর্ভাবে চরম উদ্বেগে দিন কাটাচ্ছেন কৃষকেরা।
উখিয়া উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা মোঃ শাহাজাহান জানান, ক্ষেতে প্রয়োজন মত পানি না দেয়ায় এবং বৈরী আবহাওয়ার কারনে ব্লাস্ট রোগ দেখা দিয়েছে বোরো চাষবাদে। তিনি জানান, ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হতে পারে এমন আশংখা করে কৃষি বিভাগ কৃষকদের বিআর-২৮ ধান চাষাবাদ না করার জন্য বলেছিল। কিন্তু তা শুনেনি কৃষকেরা, যার ফলে এই ক্ষতি সম্মূখীন হতে হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, ব্লাস্ট রোগ থেকে ফসল বাঁচাতে উখিয়ার সর্বত্রে মাইকিং করে প্রতিষেধক ব্যবহারের নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে। তিনি উপজেলা কৃষি অফিসার শরিফুল ইসলামের বরাত দিয়ে বলেন, মাঠ পর্যায়ে স্বস্ব ব্লকে (ইউনিয়নে) উপ-সহকারি কৃষি কর্মকতাদের অবস্থান করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Comments

comments

Posted ২:০৫ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ১৭ মার্চ ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

প্রকাশক
তাহা ইয়াহিয়া
সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
01870-646060
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com