মঙ্গলবার ১৬ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১লা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম
উখিয়ায় পল্লীবিদ্যুতের অসহনীয় লোডশেডিং

এক ঘন্টার বৃষ্টিতে ২৪ ঘন্টা অন্ধকারে উখিয়া

শফিক আজাদ,উখিয়া   |   সোমবার, ২৭ মে ২০১৯

এক ঘন্টার বৃষ্টিতে ২৪ ঘন্টা অন্ধকারে উখিয়া

উখিয়ায় পল্লীবিদ্যুতের অসহনীয় লোডশেডিংয়ে সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। গত শুক্রবার রাতে হঠাৎ জড়ো হাওয়া ও বৃষ্টির পর থেকে উখিয়া ২৪ঘন্টা অন্ধকারে থাকে। শনিবার বিকেলে উখিয়া সদর স্টেশনে বিদ্যুতের দেখা মিললেও গ্রামীন জনপদের এখনো বিদ্যুৎ পৌঁছেনি বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা। এছাড়াও মুসলিম সম্প্রদায়ের সর্বোত্তম মাস পবিত্র রমযানে সেহরী, ইফতার এবং তারাবির নামাজের সময় ঘণঘণ বিদ্যুৎ যাওয়া-আসা নিয়ে বিদ্যুতের দায়িত্বরত কর্তাব্যক্তিদের প্রতি বিরূপ মন্তব্য করতে দেখা গেছে।
উখিয়া সদর স্টেশন থেকে ১ কিলোমিটার পশ্চিমের গ্রাম হাজীরপাড়ায় শুক্রবার রাতে বিদ্যুৎ চলে গেলেও রবিবার রাত ১০টা পর্যন্ত দেখা মেলেনি। পাশাপাশি একই ভাবে ওইদিন রাতে বৃষ্টির কারনে উখিয়ার চাকবৈঠা, গয়ালমারা, করইবনিয়া, পূর্বডিগলিয়াপালং, পশ্চিম ডিগলিয়া, কুতুপালং, পাতাবাড়ী, লম্বাঘোনা, দরগাহবিল, টাইপালং, পশ্চিম ডিগলিয়া, সিকদারবিলসহ অন্তত ২০/২৫টি গ্রামে ৩দিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও বিদ্যুৎ সংযোগ চালু হয়নি। যার ফলে পবিত্র রমযানে নামাজ,রোজা, ইবাদত,বন্দেগী করতে মারাত্মক কষ্টের শিকার হচ্ছে।
হাজীরপাড়া এলাকার বাসিন্দা ও বিদ্যুৎ গ্রাহক আব্দু শুক্কুর (৩০) নামের এক ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন, শুক্রবার বৃষ্টির সাথে সাথে বিদ্যুৎ চলে গেলেও অদ্যবধি আসেনি। এ নিয়ে পল্লীবিদ্যুতের অভিযোগ কেন্দ্রে বারবার অভিযোগ করেও কোন কাজ হয়নি। পরিশেষে সে রোববার উখিয়া পল্লীবিদ্যুতের ডিজিএমের নিকট অভিযোগ করা হয়েছে বলে সে জানিয়েছেন।
চাকবৈঠা এলাকার বাসিন্দা মাস্টার নুরুল আবছার জানান, শুক্রবার রাতে বিদ্যুৎ চলে যাওয়ার পর অনেক চেষ্টা করে রোববার বিকেলে বিদ্যুৎ পেয়েছি। কিন্তু এরপর থেকে ঘণঘণ বিদ্যুতের লোডশেডিং অসহনীয় পর্যায়ে চলে গেছে।
টাইপালং এলাকার বিদ্যুৎ গ্রাহক নুরুল ইসলাম প্রকাশ সালাম সিকদার বলেন, শুক্রবার থেকে বিদ্যুৎ না থাকার কারনে ফ্রিজের মাছ,মাংস,তরি-তরকারীসহ গুরুত্বপূর্ণ মালামাল নষ্ট হয়ে গেছে। দায়সারা বিদ্যুৎ যাওয়া-আসার কারনে গ্রাহকেরা এ ধরনের ক্ষতি সম্মূখীন হচ্ছে।
উখিয়া পল্লীবিদ্যুতের জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) গোলাম সরওয়ার মুর্শেদ জানান, শুক্রবার প্রচন্ড জড়ো হাওয়া ও বৃষ্টির কারনে অনেক স্থানে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। তা মেরামত না করা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করা সম্ভব হচ্ছেনা। আর যে সমস্ত লাইনে সমস্যা নেই তাতে সংযোগ দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

Comments

comments

Posted ১:৪৮ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ২৭ মে ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

প্রকাশক
তাহা ইয়াহিয়া
সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
01870-646060
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com