শুক্রবার ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম
‘ক্যাম্পে ত্রাস সৃষ্টি জন্য ‘আরসার’ নাম ব্যবহার করছে’

এক বছরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্ত্র ও মাদকসহ ৪৭৮ আটক

আবদুর রহমান   |   বুধবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২২

এক বছরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্ত্র ও মাদকসহ ৪৭৮ আটক

উখিয়া ১১টি ক্যাম্পে অস্ত্র ও মাদক বিরোধী অভিযানে ৪৭৮জন তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) সদস্যরা। এসময় তাদের কাছ থেকে দেশী বিদেশী ১৪০টি অস্ত্রসহ সাড়ে ৮ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার উদ্ধার করা হয়েছে।

বুধবার(১৯ জানুয়ারি) দুপুরে উখিয়ায় কর্মরত গণমাধ্যম কর্মীদের মতবিনিময় সভায় এসব তথ্য তুলে ধরেন ৮ এপিবিএন-এর অধিনায়ক (পুলিশ সুপার) মোহাম্মদ সিহাব কায়সার খান।

এদিকে একের পর এক হত্যাকান্ডসহ শরণার্থী শিবিরে বিভিন্ন অপরাধের জন্য দীর্ঘদিন থেকেই আরসাকে দায়ী করে আসছেন ভুক্তভোগীরা। তার বিষয়ে জানতে চাইলে, বাংলাদেশে আরসা কোন অস্তিত্ব নেই উল্লেখ করে পুলিশ সুপার সিহাব কায়সার খান জানান, “ক্যাম্পে ‘আরসার’ কার্যক্রমের কোন প্রশ্নে আসে না। কিছু অপরাধী ক্যাম্পে ত্রাস সৃষ্টি অথবা ভয়ভীতির দেখনোর জন্য আরসার নাম ব্যবহার করছে। এর বাইরে কিছু না। ক্যাম্প পুরোপুরি আমাদের নিয়নন্ত্রণে। কোন অপরাধী পাড়া পাবে না।’

তিনি জানান, ‘সম্প্রতি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ঘটেছে। ক্যাম্পে যেকোনো দুর্যোগময় মুহুর্তে সবার আগে দায়িত্বরত এলাকায় কিছু হলে তাৎক্ষণিক ৮এপিবিএন সাড়া দেয়। অগ্নিকাণ্ডের সময় ফায়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টার কারনে প্রাণ হানির ঘটনা কমেছে।”

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরো জানান, গেলো বছরে উখিয়া ১০টি ক্যাম্পে প্রায় ২০০টি অভিযানে ১৪০টি অস্ত্র-গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া অবৈধভাবে পাচারকালে ৯০৮ কেজির বেশি স্বর্ণলংকার, মাদকের লেনদেনের ৫৮ লাখ টাকা, ৩ লাখ ৩৫ হাজার মিয়ানমার কিয়াতসহ ৫০ হাজার টাকা জাল নোট উদ্ধার করা হয়েছে। এসব ঘটনায় ৪৭৮ জন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ক্যাম্পে অপরাধমুক্ত রাখতে অভিযান চলমান থাকবে।

মিডিয়া কর্মকর্তা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরান হোসেন জানায়, মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত হয়ে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা জনগোষ্টী আশ্রিত হওয়ার পর ঢাকা থেকে ৮-এপিবিএনকে সেখানে স্থানান্তরিত করা হয়। এরপর থেকে আমরা ১১টি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রাত-দিন কাজ করে যাচ্ছি। এসব ক্যাম্পে ৬৪টি ব্লক এবং ৭৭৩টি সাব ব্লক রয়েছে। সেখানে ৭৫ হাজার ৯৩০টি বাড়ির মধ্য ৩ লাখ ৬২ হাজার ২১৮জন মানুষের বসতি। তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে ক্যাম্পে প্রতিরাতে সাড়ে ৩ হাজার রোহিঙ্গা (স্বেচ্ছাসেবক) স্বেচ্ছায় পাহারার পাশাপাশি ৫টি পুলিশ ক্যাম্পের সদস্যরা কাজ করে যাচ্ছেন। ’

তিনি জানান, ‘আমরা গত এক বছরে বিপুল পরিমান মাদক ও অস্ত্রসহ তালিকাভুক্ত ৪৭৮ জন সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। ক্যাম্পের পরিস্থিতি শান্ত রাখতে জীবন-বাজি রেখে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে এপিবিএন পুলিশ সদস্যরা।

Comments

comments

Posted ১০:৩৩ অপরাহ্ণ | বুধবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২২

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

(466 বার পঠিত)

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

প্রকাশক
তাহা ইয়াহিয়া
সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
01870-646060
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com