• শিরোনাম

    এক সপ্তাহেই ৪ শতাধিক এলএ চেক ইস্যু

    দেশবিদেশ রিপোর্ট | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

    এক সপ্তাহেই ৪ শতাধিক এলএ চেক ইস্যু

    মাত্র এক সপ্তাহেই কক্সবাজার ভুমি অধিগ্রহণ অফিসের দায়িত্বে থাকা একজন ভুমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা (এলএও) চার শতাধিক অধিগ্রহণের টাকার চেক ইস্যু করেছেন। এসব চেকের মধ্যে রয়েছে মহেশখালী দ্বীপের একটি এলএ (মামলা-০৪/২০১৩-২০২১৪) মামলার আওতায় ১৩৬ টি চেক। কক্সবাজার জেলা ট্রেজারি অফিসের একজন কর্মকর্তা গতকাল শনিবার এমন তথ্য নিশ্চিত করে বলেছেন, ১৩৬ টি চেকের বিষয় নিয়ে কাজ করা হচ্ছে।

    জানা গেছে, র‌্যাবের হাতে আটক এবং র‌্যাবের ধাওয়ায় পালিয়ে যাওয়া বেপরোয়া সার্ভেয়ারগন অত্যন্ত তড়িঘড়ি করে এসব চেক ইস্যু করেন। ভুমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম পদোন্নতি পেয়ে বদলির নির্দ্দেশ পেলে সার্ভেয়ারগন অত্যন্ত তড়িঘড়ির মাধ্যমে রাতারাতি এসব চেকগুলো ইস্যু করেন। কোটি কোটি টাকার এসব চেক দিতে গিয়েই সার্ভেয়ারগন ভ’মির ক্ষতিগ্রস্থদের নিকট থেকে ব্যাংক চেক পর্যন্ত হাতিয়ে নেন। এসব চেকই র‌্যাবের অভিযানে উদ্ধার করা হয়েছে।

    গত ১১ ফেব্রæয়ারি এলএও রেজাউল করিম হাতিয়া দ্বীপের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হিসাবে যোগ দিতে যান গত ১৭ ফেব্রুয়ারি। এসময়ের মধ্যেই চেকগুলো ইস্যু করা হয়। জানা গেছে, এলএও রেজাউল করিম অত্যন্ত ভদ্র এবং ন¤্র স্বভাবের একজন সরকারি কর্মকর্তা। চেষ্টাও করেছেন তিনি আন্তরিকতার সাথে সেবা গ্রহীতাদের সেবা দিতে। আর এমন সুযোগটি কাজে লাগিয়েছেন বেপরোয়া সার্ভেয়ারগন। তার সরলতার সুযোগ নিয়েই বেপরোয়া সার্ভেয়ারগন স্বল্প সময়্রে মধ্যেই এত বিপুল সংখ্যক চেক ইস্যু করে নিয়েছেন।

    গতকাল রাতে কক্সবাজার থেকে বিদায় হয়ে হাতিয়ার ইউএনও হিসাবে দায়িত্ব নেওয়া রেজাউল করিম জানিয়েছেন-‘আমি সেবা গ্রহীতাদের আন্তরিকতার সাথে সেবা দিতে গিয়েই এমন ঘটনার বদনামে জড়িয়ে পড়েছি।’

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    মাতারবাড়ী ঘিরে মহাবন্দর

    ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ