বৃহস্পতিবার ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

১৩ মার্চে ইস্যু করা পত্র দেওয়া হয় গতরাতে

এলাকা ত্যাগের নির্দেশ না মানায় এমপি জাফর অবরুদ্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   সোমবার, ১৮ মার্চ ২০১৯

এলাকা ত্যাগের নির্দেশ না মানায় এমপি জাফর অবরুদ্ধ

যথা সময়ে সংসদীয় এলাকা ত্যাগ না করায় কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলমকে চকরিয়াস্থ তাঁর গ্রামের বাড়িতে আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা অবরুদ্ধে করে রেখেছেন। নির্বাচন কমিশন সচিবালয় থেকে প্রেরিত নির্দেশনা অনুযায়ী চকরিয়া নির্বাচন উপলক্ষে তার সংসদীয় এলাকা ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ পালন না করায় গতকাল রবিবার রাত ৯টা থেকে চকরিয়া পালাকাঠাস্থ তাঁর বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। এ সময় তিনি বাড়িতেই অবস্থান করছিলেন এবং উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনিত নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর লোকজনদের সাথে বৈঠক করছিলেন বলে স্বতন্ত্রপ্রার্থী অভিযোগ করেন। গত রাত এই রিপোর্ট লেখার সময় আইন-শৃংখলার বাহিনীর একটি সংস্থার একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জানান, যেহেতু নির্বাচন কমিশন সচিবের নির্দেশনা রয়েছে সংসদ সদস্য জাফর আলমের এলাকা ত্যাগের। তাকে অবশ্যই সংসদীয় এলাকা ছেড়ে অন্যত্র চলে যেতে হবে। ইতিপূর্বে কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলমকে নির্বাচনী এলাকা চকরিয়া ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এই নির্দেশ অমান্য করেও যদি এলাকায় তিনি অবস্থান করেন তাহলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণেরও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জেলা পুলিশ সুপারকে। গতকাল রবিবার সন্ধ্যার পর এ সংক্রান্ত একটি পত্র জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে প্রেরণ করা হয়। পরে সেই পত্র পৌঁছে দেওয়া হয় চকরিয়া থানার ওসির কাছে। নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উপসচিব মাহফুজা আক্তার স্বাক্ষরিত এই পত্রটি গত ১৩ মার্চ ইস্যু করা হয় এমপি জাফর আলমকে। তবে রহস্যজনক কারণে এই পত্রটি গোপন করা হয়।
এদিকে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা ও চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সাখাওয়াত হোসেন।
সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, ‘অদ্য (গতকাল) রাত আটটার দিকে এ সংক্রান্ত পত্রটি জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. বশির আহমদ এর কাছে প্রেরণ করা হয়। পরে সেই পত্র প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রেরণ করা হয় চকরিয়া থানার ওসির কাছে।’
সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা সাখাওয়াত জানান, নির্বাচন কমিশনের এই নির্দেশনার পরও যদি এমপি এলাকা ত্যাগ না করেন তাহলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার অংশ হিসেবে তাকে গ্রেপ্তারেরও নির্দেশনা রয়েছে। এই পত্র প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া থানার ওসি মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী।
এদিকে গতকাল সন্ধ্যার পর থেকে উপজেলার ৯৯টি কেন্দ্রের মধ্যে বেশ কয়েকটি কেন্দ্র দখলে নিয়ে ব্যালটে সিল মারতে সরকারদলীয় প্রার্থী গিয়াস উদ্দিনের লোকজন তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে বলে অভিযোগ করেছেন দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ফজলুল করিম সাঈদী।তবে কক্সবাজার জেলা পুলিশের জ্যেষ্ঠ সহকারি পুলিশ সুপার কাজী মো. মতিউল ইসলাম বলেন, ‘এ ধরণের চেষ্টা যারাই করুক তাদেরকে প্রতিহত করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মাঠে রয়েছে। প্রতিটি ইউনিয়নে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট’র নেতৃত্বে স্ট্রাইকিং ফোর্স কাজ করছে।’ সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. সাখাওয়াত হোসেন আরো বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের আদেশ অনুযায়ী আমরা পুলিশ-বিজিবিসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে সাথে নিয়ে এমপি জাফর আলমকে বাড়িতে অবরুদ্ধ করে রেখেছি। সেখানে পুলিশী পাহারায় রাখা হয়েছে এমপিকে। এর পরও তিনি বাইরে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাকে গ্রেপ্তারের মৌখিক নির্দেশনা রয়েছে নির্বাচন কমিশনের।

Comments

comments

Posted ১২:৪৪ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ১৮ মার্চ ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com