• শিরোনাম

    বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবাষির্কী উপলক্ষ্যে বছরব্যাপি অনুষ্ঠানমালায়

    কক্সবাজার থিয়েটারের ‘ত্রয়ী নাট্য সন্ধ্যা’র সফল আয়োজন

    বার্তা পরিবেশক | ১৫ জানুয়ারি ২০২০ | ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ

    কক্সবাজার থিয়েটারের ‘ত্রয়ী নাট্য সন্ধ্যা’র সফল আয়োজন

    বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশান ভূক্ত জেলার অন্যতম নাট্য সংগঠন কক্সবাজার থিয়েটার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বছরব্যাপি অনুষ্টানমালার অংশ হিসেবে গত ১১ জানুয়ারি থেকে ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত স্থানীয় কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্র মিলনায়তনে তিনদিনব্যাপি ‘নাট্য ত্রয়ী সন্ধ্যা”র আয়োজন করে। ১১ জানুয়ারি এ নাট্যসন্ধ্যার উদ্বোধন করেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন। কক্সবাজার থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক তাপস রক্ষিতের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা প্রসাশক মোঃ কামাল হোসেনকে পুষ্পস্তবক দিয়ে বরণ করে নেন নাট্যকর্মি রেহেনুমা কামাল কাশপিয়া। উত্তরীয় পরিয়ে সম্মাননা জানান নাট্যকর্মি বনানী চক্রবর্ত্তী। মঞ্চে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ শাহজাহান আলী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, আইসিটি আমিন আল পারভেজ, কৃষকলীগ সভাপতি রেজাউল করিম ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সভাপতি সত্যপ্রিয় চৌধুরী দোলন।
    উদ্বোধনী বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, নাটক হচ্ছে সমাজের দর্পন। সুস্থ সংস্কৃতি চর্চার কোন বিকল্প নেই। নাট্য ও সংস্কৃতি কর্মিরা সমাজ প্রগতির উন্নয়নে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। সংস্কৃতি চর্চার সকল শাখায় তাঁর সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি সবাইকে আশ্বস্থ করেন। অতিথিদের উত্তরীয় পরিয়ে দেন নাট্যকর্মি আবুল মঞ্জুর, সুশান্ত পাল বাচ্চু ও স্বপন ভট্টাচার্য্য। মঞ্চে ‘ডানা ভাঙা পরী’ নাটক পরিবেশন করে উত্তরীয় থিয়েটার, ঢাকা। নাটকটি রচনা ও নির্দেশনায় ছিলেন দিব্যেন্দু উদাস। দ্বিতীয় দিন মঞ্চে‘তৃতীয় একজন” নাটক পরিবেশন করে শব্দ নাট্য চর্চা কেন্দ্র, ঢাকা। সমীর দাশগুপ্ত’র রচনায় নাটকটি নির্দেশক ছিলেন অনন্ত হিরা।
    তৃতীয় দিন ছিল ত্রয়ী নাট্য সন্ধ্যার সমাপনী অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশান এর সেক্রেটারি জেনারেল কামাল বায়েজিদ। অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বেতার কক্সবাজার কেন্দ্রের আঞ্চলিক পরিচালক ফখরুল করিম এবং মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও বিশিষ্ট্য নাট্যজন মোঃ শাহজাহান। প্রধান অতিথিকে পুষ্পস্তবক দিয়ে বরণ করেন নাট্যকর্মি তমা পাল। উত্তরীয় পরিয়ে দেন নাট্য নির্দেশক স্বপন ভট্টাচার্য্য। তাপস রক্ষিতের সঞ্চালনায় সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির তার বক্তব্যে বলেন বাংলাদেশে একমাত্র নাট্য কর্মিরাই কোন প্রকার চাওয়া পাওয়া ছাড়া সমাজ পরিবর্তনের জন্য নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। একটা নাটক মঞ্চায়নের খরচ যোগাড় করতেই দলগুলো হিমশিম খেয়ে পড়ে। তারপরও দর্শকদের ভালবাসা ও পৃষ্ঠপোষকতার কারনে এখনো নাটকের দলগুলো নাটক মঞ্চায়নের সাহস করছে। তিনি আগত দর্শকদের নাটকের দলের প্রতি সহযোগিতার হাত প্রসারিত করার আহ্বান জানান। মঞ্চে কক্সবাজার থিয়েটার পরিবেশন করে দর্শক নন্দিত নাটক কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গল্প অবলন্বনে ‘যখন বৃত্তের বাইরে’। নাটকটির নাট্যরূপ ও নির্দেশনায় ছিলেন বিশিষ্ট নাট্য নির্দেশক স্বপন ভট্টাচার্য্য। নাটক শেষে ‘ত্রয়ী নাট্য সন্ধ্যা’র আনুষ্ঠানিক সমাপনী ঘোষনা দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, আইসিটি আমিন আল পারভেজ। তিনি সমাপনী বক্তব্যে কক্সবাজার থিয়েটারের তিনদিন ব্যাপি সুন্দর আয়োজনের জন্য সকল নাট্য ও সংস্কৃতি কর্মিকে অভিনন্দন জানান এবং আগামীতে সকল আয়োজনে প্রশাসনের সহযোগিত অব্যাহত রাখার আশ্বাস দেন। কক্সবাজার থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক আগত দর্শকদের ধন্যবাদ জানান।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ