• শিরোনাম

    ভারী বর্ষন ও কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা

    কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন সম্পন্ন

    দেশবিদেশ রির্পোট | ২৬ জুলাই ২০১৮ | ১:০৮ পূর্বাহ্ণ

    কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন সম্পন্ন

    বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ছাড়া কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন গতকাল বুধবার মোটামুটি শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনে প্রবল বর্ষণ উপেক্ষা করেও ভোটারগণ ভোট প্রদান করেছেন। বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে ভোট আদায়ের প্রতিযোগিতাকে কেন্দ্র করে ২ জন কাউন্সিলর প্রার্থী সহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। বিএনপি ও জামায়াত সমর্থিত মেয়র প্রার্থীদ্বয় প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থীর বিরুদ্ধে কেন্দ্র দখল করে ব্যালটে সীল মারার অভিযোগ করেছেন। এমন অভিযোগও উঠেছে, কয়েকটি কেন্দ্রে ভোটারগন ব্যালটের অভাবে তাদের ভোটাধিকারও প্রয়োগ করতে পারেননি। এমনিতেই পৌরসভার এবারের নির্বাচনে কাংখিত মেয়রের পদে প্রতিদ্বন্ধিতা হচ্ছিল বলতে গেলে এক প্রকার এক তরফা। মেয়রের পদে ৫ জন প্রতিদ্বন্ধি থাকলেও নির্বাচনের তফশীল ঘোষণার পর থেকেই ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সমর্থিত মেয়র পদপ্রার্থী মুজিবুর রহমান নির্বাচনী প্রচারণা থেকে সমর্থনেও এগিয়ে ছিলেন। গতকাল বুধবার ভোট গ্রহণের পরই তা ষ্পষ্ট হয়ে উঠে। গতকাল বুধবার যথারীতি সকাল ৮ টা থেকে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহন শুরু হয়। ভোট গ্রহণ দুপুর ১২ টা পর্যন্ত একদম শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্টিত হয়।

    এরপর কয়েকটি কেন্দ্রে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটে। দুপুরে পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের তৈয়বিয়া মাদ্রাসা ভোট কেন্দ্রে জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মনির উদ্দিনের পক্ষে ব্যালট ছেঁড়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিদ্বন্ধি আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী ও বর্তমান পৌর কাউন্সিলর মিজান উদ্দিন বেদম মারধরের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গুরুতর আহত মিজান উদ্দিনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্ত্তি করা হয়েছে। অপরদিকে পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ওমিদিয়া মাদ্রাসা ভোট কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর পদপ্রার্থীর পক্ষে ব্যালটে সীল মারার ঘটনাকে কেন্দ্র করে আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী আমিনুল ইসলাম মুকুল। তাকেও হাসপাতালে ভর্ত্তি করা হয়েছে। পৌরসভার প্রিপ্যারেটরি হাই স্কুল কেন্দ্রে অনুরুপ দুই প্রতিদ্বন্ধি কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। গতকাল সকাল থেকে পৌরসভার ১২ টি ওয়ার্ডের বিভিন্ন ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনকালে দেখা গেছে প্রবল বর্ষণ উপেক্ষা করেও ভোটারগন উৎসবমূখর পরিবেশে ভোট প্রদান করেছেন।

    সকাল ১০টার দিকে পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের খাজা মঞ্জিলের আল আমিন একাডেমী কেন্দ্রে গিয়ে বিপুল সংখ্যক নারী-পুরুষ ভোটারের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। অনুরুপ হার্ভাড কলেজ কেন্দ্র, সিটি কলেজ কেন্দ্র, হাসেমিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্র, সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, বদরমোকাম কেন্দ্র, কলাতলি কেন্দ্র সহ ইত্যাদি ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনে ভোটারের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। অপরদিকে গতকালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মুজিবুর রহমানের সমর্থনে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীকে সরব দেখা গেছে। তবে জামায়াতে ইসলামী সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সরোয়ার কামাল ও বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী রফিকুল ইসলামের সমর্থিত নেতা কর্মীদের তেমন চোখে পড়েনি। মেয়র পদে ৫ জন প্রার্থী থাকলেও মূলত এই তিনজনই মাঠে ছিলেন। ভোট গ্রহণের শেষের দিকে বিএনপি মনোনিত মেয়র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম এবং জামায়াত সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সরোয়ার কামাল পৃথক সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচনে প্রতিটি কেন্দ্রে ভোট ডাকাতির অভিযোগ তুলে নির্বাচন প্রত্যাখান করেন। তারা দু’জনেই পূণরায় ভোট গ্রহণের দাবি করেছেন। নির্বাচনে ৫ জন মেয়র প্রার্থী, ১৮ জন সংরক্ষিত আসনে নারী কাউন্সিলার ও ৬৪ জন পুরু“ষ কাউন্সিলার পদপ্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করেন।

    গতকালের নির্বাচন উপলক্ষে কক্সবাজার শহরকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়। নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা জানান, পৌরসভা নির্বাচনে ১২ টি ওয়ার্ডে ৩৯ টি কেন্দ্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য ১ হাজার পুলিশ সদস্য, ২ প্লাটুন বিজিবি, ৬টি দলে ৯০ জন র‌্যাব সদস্য ও প্রতিটি কেন্দ্রে ১০ জন করে আনসার সদস্য মোতায়েন ছিল। এছাড়াও বিচারিক দায়িত্বপালনের জন্য ১২ জন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত ছিলেন। নির্বাচন পরিচালনার জন্য প্রিজাইডিং, পোলিং ও সহকারি পোলিং সহ নিয়োজিত ছিলেন ৭০১ জন কর্মকর্তা। প্রসঙ্গত, নির্বাচনে ৫ জন মেয়র প্রার্থী, ১৮ জন সংরক্ষিত আসনে নারী কাউন্সিলার ও ৬৪ জন পটুরুষ কাউন্সিলার পদপ্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। কক্সবাজার পৌরসভার ১২ টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ৮৩ হাজার ৭২৮ জন। তার মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ৪৪ হাজার ৩৭৩ জন ও নারী ভোটার রয়েছেন ৩৯ হাজার ৩৫৫ জন। কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচনের ১২টি ওয়ার্ডে ভোট কেন্দ্র ৩৯টি। তন্মধ্যে ৩টি কেন্দ্রের ১৫টি বুথে ইভিএম পদ্ধতিতে পরীক্ষামূলকভাবে ভোট গ্রহণ করা হয়েছে।

    দেশবিদেশ /২৬ জুলাই ২০১৮/নেছার

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ