শুক্রবার ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

কক্সবাজার শহরে মোটরসাইকেল চুরির হিড়িক

তারেকুর রহমান   |   বৃহস্পতিবার, ২৮ এপ্রিল ২০২২

কক্সবাজার শহরে মোটরসাইকেল চুরির হিড়িক

পর্যটন নগরী কক্সবাজার শহরে হঠাৎ মোটরসাইকেল চুরির হিড়িক পড়েছে। সপ্তাহের ব্যবধানে ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল চুরি হয়েছে। মালিক মোটরসাইকেল পার্কিং করে প্রয়োজনীয় কাজ সেরে আসলে পার্কিংয়ে দেখতে পান না তার মোটরসাইকেল।

ভুক্তভোগীদের দাবি, মোটরসাইকেলের ঘাড় লক করা থাকলেও অভিনব কৌশলে লক ভেঙ্গে চুরি করে নিয়ে যায়। ওঁৎ পেতে থাকা চোর সিন্ডিকেট পার্কিংয়ের কয়েক মিনিটের ব্যবধানে মোটরসাইকেল চুরি করে নিয়ে যায় বলে তাদের অভিযোগ।

এ বিষয়ে তারা সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা ও সাধারণ ডায়েরি করলেও চুরি যাওয়া মোটরসাইকেল উদ্ধার হয়নি বলে জানায় একাধিক ভুক্তভোগী।

শহরের ঘোনাপাড়ার বাসিন্দা তরুণ পাল বলেন, ‘বুধবার (২৭ এপ্রিল) পুলিশ সুপারের কার্যালয় মোড়ে টেইলার্সের সামনে আমার ডিসকভার মোটরসাইকেলটি পার্কিং করি। কিছুক্ষণ পরে এসে দেখি মোটরসাইকেলটি নেই। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও মোটরসাইকেলটি পেলাম না। এ ব্যাপারে সদর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি।’

তাছাড়া একই কায়দায় মোটরসাইকেল চুরির অভিযোগ করেন সাংবাদিক শাহেদ মিজান।

তিনি বলেন, ‘বুধবার (২৭ এপ্রিল) জজ আদালতে সংবাদ সংগ্রহের কাজে গিয়ে আমার মোটরসাইকেলটি আদালত ভবনের সামনে পার্কিং করি। সংবাদের কাজ শেষ করে এসে দেখি মোটরসাইকেল এর জায়গায় নেই। অনেক খোঁজাখুঁজি করলাম। পেলাম না শেষ সম্বল প্রিয় মোটরসাইকেলটি। এ ব্যাপারে পুলিশ সুপারকে মৌখিক জানিয়েছি।’

এদিকে গত ১ সপ্তাহের ব্যবধানে শহর থেকে ৫টিরও বেশি মোটরসাইকেল চুরি হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। শহরের ঘোনারপাড়া, বইল্যাপাড়া, রুমালিয়ারছড়া, লারপাড়া, কলাতলী নুনিয়ারছড়া ও বাহারছড়া এলাকায় মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেটের আনাগোনা রয়েছে বলে অনেক ভুক্তভোগীরা জানায়।

সচেতন মহল বলছেন, শহরের যে পয়েন্টগুলোতে সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে তা বেশির ভাগ অকেজো। যার কারণে মোটরসাইকেল চুরি হয়ে গেলে চোরকে সনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না। যেভাবে পর্যটন নগরী থেকে মোটরসাইকেল চুরি হচ্ছে এতে সকলকে সাবধানতার সঙ্গে গাড়ি রাখতে হবে। যে সিসি ক্যামেরা কাজ করে সেই সিসি ক্যামেরার ফুটেজেও অনেক সময় চোরকে দেখলে বা শনাক্ত করলে তাকে আটক করা সম্ভব হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি তদন্ত মো. সেলিম উদ্দিন বলেন, ‘পবিত্র রমজান মাসে কক্সবাজারের অবস্থা নিরাপদ ও স্বাভাবিক রাখতে আমরা অক্লান্ত পরিশ্রমম করে যাচ্ছি। মোটরসাইকেল চুরির ব্যাপারে আমরা কোনো অভিযোগ পাইনি। যদি অভিযোগ পাই অবশ্যই আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো। আর অপরাধীদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে

 

Comments

comments

Posted ৯:৩৮ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৮ এপ্রিল ২০২২

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

প্রকাশক
তাহা ইয়াহিয়া
সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
01870-646060
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com