• শিরোনাম

    করোনাভাইরাস ঠেকাতে বিয়ে করতে মানা

    দেশবিদেশ অনলাইন ডেস্ক | ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

    করোনাভাইরাস ঠেকাতে বিয়ে করতে মানা

    চীনের নাগরিকদের বিয়ের জনপ্রিয় তারিখ আগামী কাল (০২/০২/২০২০)। প্রচুর চীনা নাগরিক বিয়ে করার জন্য এই দিনটিকে বেছে নেন। কিন্তু এবার প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সহায়তার জন্য চীন সরকার দেশটির জনগণকে ওই দিন বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া থেকে বিরত থাকতে ও শেষকৃত্য অনুষ্ঠান দ্রুত সম্পন্ন করতে আহ্বান জানিয়েছে। শনিবার দেশটির নাগরিক কল্যাণবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানানো হয়।

    দেশটিতে প্রাণঘাতী নতুন এই করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৫৯ জনে দাঁড়িয়েছে এবং অন্তত ১২ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন।

    ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে হিমশিম খাওয়া দেশটির সরকারের নাগরিক কল্যাণবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, চলতি বছরের ২ ফেব্রুয়ারি (০২/০২/২০২০) যারা বিবাহ নিবন্ধনের ঘোষণা দিয়েছেন কিংবা অঙ্গীকার করেছেন; তাদের সকলকে এটি বাতিল করে অন্যান্যদের কাছে পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

    এ বছরের ২ ফেব্রুয়ারিকে বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য সৌভাগ্যের তারিখ হিসাবে বিবেচনা করা হচ্ছে; কারণ ০২০২২০২০ সংখ্যাটি উভয়দিক থেকে পড়তে একই রকম। চীনে রোববার অফিস বন্ধ থাকলেও এ বছর দেশটির রাজধানী বেইজিং, সাংহাই এবং অন্যান্য কিছু শহর এই দিনে বিয়ে নিবন্ধন সেবা চালু রাখার ঘোষণা দিয়েছিল।

    সাময়িকভাবে বিবাহ পরামর্শ সেবাগুলো বন্ধ রাখার কথা জানিয়ে মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বিয়ের ভূরিভোজের অনুষ্ঠান না করার জন্য জনসাধারণের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, জনসমাগম এড়ানোর জন্য সাদামাটা ও তড়িতগতিতে শেষকৃত্য সম্পন্ন এবং করোনাভাইরাসে নিহতদের মরদেহ যত দ্রুত সম্ভব দাহ করা উচিত।

    দেশটির সরকারি এই বিবৃতিতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচতে শেষকৃত্য সম্পন্নকারী কর্মীদের সুরক্ষামূলক সামগ্রী পরিধান এবং শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষার পরামর্শ দেয়া হয়।

    গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হুবেই প্রদেশের উহানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগী শনাক্ত হওয়ার পর দেশটির নতুন চন্দ্রবর্ষ উদযাপন ও ভ্রমণে ব্যাপক কড়াকড়ি আরোপ করা হয়। করোনাভাইরাসের দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে দেশটির সরকার স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়গুলো বন্ধ এবং অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মক্ষেত্রে না ফেরার নির্দেশ দেয়।

    শুধু তাই নয়; জনসমাগম এড়িয়ে চলার জন্য সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। শহরটির সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করায় সেখানে কার্যত অচলাবস্থা তৈরি হয়েছে। শনিবার হুবেই প্রদেশের সরকারি কর্মকর্তারা আগামী সোমবার থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সব ধরনের বিবাহ নিবন্ধন বন্ধ থাকবে বলে ঘোষণা দিয়েছে।

    এদিকে, গত দুই সপ্তাহের মধ্যে চীন সফরকারী বিদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া-সহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ। এছাড়া ইতোমধ্যে চীন থেকে নিজ দেশের নাগরিকদের ফিরিয়ে নেয়া শুরু করেছে বাংলাদেশ, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়াসহ বিশ্বের অনেক দেশ।

    কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা বলছে, চীনের নতুন করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত দেশটিতে অন্তত ২৫৯ জন নিহত ও ১১ হাজার ৭৯১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আরও হাজার হাজার মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। উহানের এই প্রাণঘাতী ভাইরাস ইতোমধ্যে বিশ্বের ২০টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

    দেশবিদেশ/নেছার

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ