• শিরোনাম

    মেধাবী ছাত্র আনাস ইব্রাহিম খুন

    কাঁদছে চকরিয়া, মানববন্ধন-বিক্ষোভ খুনিদের ফাঁসি দাবি, গ্রেপ্তার-১

    নিজস্ব প্রতিবেদক, চকরিয়া | ২৭ মে ২০১৯ | ১:৪৮ পূর্বাহ্ণ

    কাঁদছে চকরিয়া, মানববন্ধন-বিক্ষোভ খুনিদের ফাঁসি দাবি, গ্রেপ্তার-১

    চকরিয়ার ঈদবাজারে সওদা করতে গিয়ে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে মেধাবী ছাত্রলীগ কর্মী খুন হওয়ায় কাঁদছে পুরো উপজেলার মানুষ। ভদ্র ও মেধাবী এই ছাত্রের এমন নৃশংস হত্যাকা-কে কোনভাবেই মেনে নিতে পারছেন তারা। ঘটনার পর শনিবার রাতে এবং গতকাল রবিবার বিকেলেও এই হত্যাকা-ের ঘটনায় জড়িত সকলকে গ্রেপ্তার এবং তাদের ফাঁসির দাবিতে উত্তাল হয়ে উঠে পৌরশহর চিরিঙ্গা, থানা সেন্টার, উপজেলা পরিষদ চত্বরসহ আশপাশের এলাকা। এ সময় তারা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলও করে। সেখান থেকে দাবি তোলা হয় আনাস ইব্রাহিমের হত্যাকারী একজনও যাতে আইনের ফাঁক-ফোকর এবং প্রভাবশালীদের তদবিরের কাছে রক্ষা না পায়। এজন্য প্রশাসন এবং পুলিশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।
    এবারের এসএসসি পরীক্ষায় ভাল ফলাফল করা আনাস ইব্রাহিম হত্যাকা-ের ঘটনায় তার বাবা হাফেজ মাওলানা নেছার আহমদ বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা রুজু করেছেন। মামলায় এজাহারনামীয় আসামী করা হয়েছে ৬ জনকে। এছাড়াও অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে আরো ৬ জনকে। তন্মধ্যে এজাহারনামীয় ৬ নম্বর আসামী পৌরসভার পালাকাটা হাসেম মাষ্টার পাড়ার মো. সামশুল আলমের ছেলে মো. রিয়াজকে (১৭) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
    মামলার এজাহারনামীয় অন্য ৫ আসামী হলেন পালাকাটা হাসেম মাষ্টার পাড়ার জসীম উদ্দিনের ছেলে প্রধান আসামী বখাটে শোয়াইবুল ইসলাম রুবেল (৩০), তার জেঠাতো ভাই রফিকুল ইসলাম প্রকাশ রকির ছেলে মো. সোহেল (২৭), জাকের আহমদের ছেলে মো. বাবু (২০), নাজিম উদ্দিনের ছেলে সালাহউদ্দিন (২৬) ও একই এলাকার ইসমাইল (২৮), পিতা-অজ্ঞাত।
    এজাহার সূত্র জানায়, আনাস ইব্রাহিম (১৮) ঈদের শপিং করার জন্য তার বন্ধু আবদুল্লাহকে (১৯) নিয়ে শনিবার দিবাগত রাতে চকরিয়া পৌরশহর চিরিঙ্গায় আসে। তারা দশটার দিকে তারা শহরের ওয়াপদা সড়কের বিপনী বিতান ওয়েস্টার্ণ প্লাজায় যায়। এ সময় আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা ৭-৮ জনের একদল সন্ত্রাসী ধারালো ছুরি নিয়ে উপর্যপুরি কোপাতে থাকে আনাস ইব্রাহিম ও আবদুল্লাহকে। এতে আনাসের পেটে ছুরিকাঘাতে নাড়ি-ভুরিও বের হয়ে যায়। আর আবদুল্লাহকে পেছন থেকে ছুরিকাঘাত করে সন্ত্রাসীরা। এ সময় আহত হয় তার বন্ধু মো. আবদুল্লাহ (১৮)। মুমুর্ষ অবস্থায় দুইজনকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে আনাস মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। আহত অপরজন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।
    খুন হওয়া ছাত্রলীগ কর্মী আনাস ইব্রাহিম পৌরসভার সাত নম্বর ওয়ার্ডের বিনামারা গ্রামের হাফেজ মাওলানা নেছার আহমদের পুত্র। সে চলতি বছর চকরিয়া কেন্দ্রীয় উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে ভাল ফলাফল করে। সে ওই ওয়ার্ড শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও পৌরসভা শাখার সক্রিয় কর্মী ছিলেন। সে উচ্চ মাধ্যমিকে ভর্তি হওয়ার জন্য কলেজে আবেদনও করেছিলেন। আহত আবদুল্লাহ পালাকাটা সালাম মাষ্টার পাড়ার মৌলভী আমান উল্লাহর পুত্র।
    এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান বলেন, ‘ক্রিকেট খেলা নিয়ে বিরোধের জের ধরে রুবেলের নেতৃত্বে এই হামলার ঘটনাটি ঘটে। রুবেলকে প্রধান আসামী করে আনাসের বাবা বাদী হয়ে ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছে। পুলিশ এজাহারনামীয় আসামী রিয়াজকে গ্রেপ্তার করেছে। অন্য আসামীদেরও গ্রেপ্তারে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে রয়েছে।’
    মেধাবী ছাত্র আনাস খুনে কাঁদছে চকরিয়া ঃ
    মেধাবী ও ভদ্র ছেলে আনাসের এমন নৃশংস হত্যাকা- কোনভাবেই মেনে নিতে পারছেন না চকরিয়ার মানুষ। ঈদবাজারে হামলা পরবর্তী মারা যাওয়ার সংবাদ মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে শোকে স্তব্দ হয়ে পড়ে পুরো চকরিয়া। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ে আনাস খুনের ঘটনা। অঝোরে কেঁদেছেন অনেকে।
    মারা যাওয়ার সংবাদ ছাত্রলীগের নেতাকর্মী, সমর্থক ও সচেতন মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে তারা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। রাতেই পৌরশহর চিরিঙ্গায় বিক্ষোভ মিছিল বের করে তারা। এ সময় খুনি রুবেল, সোহেল ও সহযোগীদের গ্রেপ্তারপূর্বক ফাঁসির দাবি উঠে। এদিকে আইনী প্রক্রিয়া শেষে নিহতের লাশ পরিবারের কাছে হস্তাস্তরের পর গতকাল রবিবার বিকেলে মগবাজার কমিউনিটি সেন্টার মাঠে জানাজা শেষে লাশ দাফন করা হয়। জানাজায় শোকাহত মানুষের ঢল নামে। এ সময় অনেকে জানাজার মাঠে ভেঙে পড়েন কান্নায়। ##

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ