সোমবার ১৮ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

খুটাখালী কিশলয় স্কুল হতে পাচারকালে বই ভর্তি ট্রাক জদ্ধ

সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁহ   |   মঙ্গলবার, ০৫ নভেম্বর ২০১৯

খুটাখালী কিশলয় স্কুল হতে পাচারকালে বই ভর্তি ট্রাক জদ্ধ

রাতের অন্ধকারে স্কুল থেকে চুরি করে পাচারকালে পাঠ্য বই ভর্তি একটি ট্রাক জদ্ধ করা হয়েছে। এসময় থানা পুলিশ ট্রাক চালক, হেলপার ও ফেরিওয়ালাসহ ৪ জনকে আটক করেছে। তারা হলেন সাতকানিয়া কেরানিহাটের ট্রাক ড্রাইভার মুহিবুল্লাহ, ব্যবসায়ী মহসিন, মোজাম্মেল ও সোহাগ। প্রাথমিক জিঙ্গাসাবাদ শেষে তাদেরকে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের জিম্মায় থানা পুলিশ ছাড় দিয়েছে।
চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতন স্কুলে গত সোমবার রাত সাড়ে ১০ টার সময় ঘটে এ ঘটনা। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। বই চুরি করে পাচারের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি দাবী করেছেন স্থানীয়রা।
বইসহ ট্রাক জদ্ধের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন স্কুল ম্যানেজিং কমিটি ও খুটাখালী ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন। তিনি ঘটনার সুষ্ট তদন্ত পূর্বক দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন।
মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানভীর হোসেন। তিনি স্কুলের প্রধান শিক্ষক তাজুল ইসলাম ও সভাপতি আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীনের সাথে কথা বলে প্রাথমিক ভাবে জড়িত দুজনের নাম সনাক্ত করেছেন।

সূত্রে জানা গেছে, সোমবার রাতে বেশ ক’জন লোক নিয়ে একটি ট্রাক গাড়ি স্কুলে অবস্থান নেয়। এসময় তারা স্কুলের বিভিন্ন সালের পাঠ্য বই বস্তা বন্দি করে ট্রাকে উত্তোলন করে। বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে আসলে রাতেই চকরিয়া ইউএনও কে মোবাইল ফোনে বিষয়টি অবহিত করা হয়।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুর উদ্দীন মু. শিবলী নোমান তাৎক্ষনিক স্কুল কমিটির সভাপতিকে বইসহ গাড়ি জদ্ধের নির্দেশ দেন। তারই নির্দেশে সভাপতি আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন রাত সাড়ে দশটার সময় স্কুলে এসে বই ভর্তি ট্রাক জদ্ধ করে। এসময় পাচারকাজে জড়িত ট্রাক ড্রাইভার, হেলপার ও ফেরিওয়ালাসহ ৪ জনকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্থান্তর করে।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্তরা স্কুলের প্রধান শিক্ষক, সহকারী প্রধান শিক্ষক ও কমিটির একজন সদস্য পাচার কাজে জড়িত বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। তবে এসময় কমিটির ঐ সদস্য থাকলেও বাকিরা কেউ ছিলনা।
খবর পেয়ে রাতেই স্কুলে ছুটে আসেন পরিচালনা কমিটির সদস্য মুজিবুর রহমান ও আবুল কালাম আজাদ। তারা জানিয়েছেন প্রধান শিক্ষককের যোগসাজসে বই পাচার কাজে শিক্ষক ও কমিটির একজন সদস্য জড়িত রয়েছে। তবে বই বিক্রির ব্যাপারে তারা কিছুই জানেন না। এমনকি সভাপতি প্রধান শিক্ষকও তাদের এ ব্যাপারে কিছুই বলেননি।

জানতে চাইলে স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন বলেন, ইউএনও স্যারের ফোন পেয়ে রাতেই স্কুলে এসে বই ভর্তি ট্রাক জদ্ধ করি এবং তাৎক্ষনিক প্রধান শিক্ষককে ফোন দিয়ে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি কোন সদুত্তোর দিতে পারেন নি। আপাতত বই জদ্ধ ও ট্রাকসহ বাকিদের প্রধান শিক্ষকের জিম্মায় ছাড় দেয়া হয়েছে। ইউএনও স্যারের নির্দেশে জড়িত শিক্ষক ও কমিটির একজন সদস্যের বিরুদ্ধে দ্রুত সময়ের মধ্যে বিধি মতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
কিশলয় প্রধান শিক্ষক মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, সদস্যদের সম্মতি নিয়ে পুরাতন ছিড়াফাটা বই বিক্রির জন্য কমিটির একজন সদস্যকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। রাতে কেন পাচার করা হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।
স্থানীয়রা জানায়, বিগত ৬ মাস পূর্বেও প্রধান শিক্ষকের যোগসাজসে প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক টাকার বই খাতা বিক্রি করা হয়েছে। এসব অপকর্মে জড়িতদের আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান এলাকার সচেতন মহল।

দেশবিদেশ/নেছার

Comments

comments

Posted ১১:৩৮ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৫ নভেম্বর ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com