• শিরোনাম

    জন গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি বর্তমানে চলাচলের অনুপোযোগী ছোটবড় মিলিয়ে প্রায় দুশোর অধিক খানা খন্দকে ভরা

    গোরকঘাট টু জনতাবাজার সড়কের বেহালদশা

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২২ জুলাই ২০১৯ | ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ

    গোরকঘাট টু জনতাবাজার সড়কের বেহালদশা

    মহেশখালী উপজেলার গোরকঘাটা টু জনতাবাজার সড়কটি মহেশখালী বাসীর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক মহেশখালীর উত্তর হতে দক্ষিণ প্রান্তের জনসাধারণ তাদের প্রয়োজনীয় কাজে বেশিরভাগই এই সড়কপথেই যাতায়াত করে থাকেন কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্যি যে, এই জন গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি বর্তমানে চলাচলের এতই অনুপোযোগী যে, প্রায় ছোটবড় মিলিয়ে প্রায় দুশোর অধিক খানা খন্দকে ভরা সরেজমিনে দেখা গেছে, সড়কটির উপরে অবস্থিত ছোটবড় প্রায় দশটির অধিক কালভার্টের অবস্থা খুবই নাজুক যে কোন সময় সামান্য অসাবধানতার দরুন যে কোন ধরনের বড় দূর্ঘটনা ঘটতে পারে সরেজমিনে গেলে স্থানীয় জন সাধারণের সাথে এ প্রসংগে কথা বললে অনেকেই আক্ষেপ করে বলেন, আমাদেরকে প্রতিবছর উন্নয়নের গল্প শুনানো হয় দুবাই সিংগাপুরের দিবাস্বপ্ন দেখানো হয় পারতপক্ষে এসবে উন্নয়ন হবে বড়লোকদেরই জনগনের মাঝে যদি আসল উন্নয়ন ঢেলে দিতে হয়,তবে সিংহভাগ চলাচলের অনুপযোগী রাস্তাঘাট ঠিক করে দিলেই মূল উন্নয়ন হবে বলে আমরা আশা রাখি এবং সরকার ও জনপ্রতিনিধিদের প্রতি জনসাধারণের আস্থাও বাড়বে প্রসংগত প্রতিবছর বর্ষা মৌসুম এলেই উক্ত সড়কটি যান চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। এবং দায়সারাভাবে মেরামতের কাজও করা হয় কিন্তু অল্পদিনের ব্যাবধানে মূল সড়কের সিংহভাগ আবার চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে।
    এবিষয়ে জৈষ্ঠ এক ঠিকাদারের মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন, গোরকঘাটা টু জনতাবাজার সড়কটি উভয় পাশে শক্ত গাইডওয়াল নির্মান করে মিনিমাম ২৬ফুট প্রশস্ত করতে হবে যে সমস্ত এলাকায় কালভার্ট বা পাহাড়ি ঢালু বেয়ে পানি চলাচল করে, ঐসমস্ত এলাকায় রাস্তা তুলনামূলক উঁচু ও ডিম্বানু আকৃতির করে করতে হবে অন্যথায় যতই মেরামত করা হোকনা কেন, প্রতিবারই পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসবে । অতিদ্রুত সময়ে চলাচলের অনুপোযোগী রাস্তাঘাট মেরামত ও প্রশস্ত করতে কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন সচেতন মহল।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ