রবিবার ২৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম
কৌশলে পাল্টিয়েছে ইয়াবা পাচারকারী সিন্ডিকেট

জেলে সেজে মিয়ানমার থেকে ইয়াবা নিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা

শফিক আজাদ,উখিয়া   |   মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০১৯

জেলে সেজে মিয়ানমার থেকে ইয়াবা নিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা

প্রশাসনের কড়াকড়ি আরোপ করার কারনে সীমান্তের চিহ্নিত ইয়াবা সিন্ডিকেট এবার কৌশল পাল্টিয়েছে। এসব সিন্ডিকেটের ভাড়াটিয়া রোহিঙ্গারা প্রতিদিন সন্ধ্যায় উখিয়া সীমান্তের বালুখালী, রহমতের বিল, আঞ্জিমানপাড়া,ধামনখালী পয়েন্ট দিয়ে কুতুপালং, বালুখালী, থাইংখালী তাজনিমারখোলা এবং পালংখালী শফিউল্লাহকাটায় হয়ে জেলে সেজে মিয়ানমারের নাফনদীতে মাছ ধরার ভান করে ওপারে গিয়ে নিয়ে আসছে ইয়াবা। সোমবার সকালে সীমান্তের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।
সীমান্তের বসবাসকারী লোকজনের সাথে কথা বলে জানাগেছে, বাংলাদেশ-মিয়ানমারের মাঝখানে রয়েছে নাফনদী। এই নাফনদীতে মাছ শিকারের জন্য প্রতিনিয়ত বেশ কিছু রোহিঙ্গারা সন্ধ্যার দিকে জাল নিয়ে সীমান্তে গিয়ে থাকে। তাদের সাথে জেলে সেজে ইয়াবা বহনকারী রোহিঙ্গারা সীমান্তের ওপারে গিয়ে রাতে নিয়ে আসছে ইয়াবার চালান। ইতিমধ্যে সীমান্ত দিয়ে এপারে নিয়ে আসার সময় কয়েকটি চালান প্রশাসনের হাতে আটক হলেও বেশির ভাগ চলে গেছে দেশের বিভিন্ন স্থানে।
বালুখালী এলাকার এক আওয়ামীলীগ নেতা (নাম প্রকাশ না করার শর্তে) জানান, প্রতিদিন বিকেল ৪টা দিকে বালুখালী বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে মিয়ানমারে যায় ক্যাম্পে আশ্রিত রোহিঙ্গারা। তারা রাতের বেলায় ইয়াবা চালান নিয়ে আবার ফিরে আসে। তিনি বলেন, কৌশল পাল্টিয়ে রোহিঙ্গারা জেলে সেজে মিয়ানমার থেকে ইয়াবা নিয়ে আসছে বলে সে অভিযোগ করেন।
এদিকে সম্প্রতি উখিয়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বালুখালী এলাকা থেকে আটক করেন সাড়ে ৩লাখ ইয়াবা। এই চালানটি মিয়ানমার থেকে রাতের বেলায় নিয়ে আসছিল কিছু স্থানীয় ও রোহিঙ্গারা। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলাও হয়েছে। এ মামলায় বালুখালী কাস্টমস এলাকার বুজুরুজ মিয়া নামের এক ইয়াবা গডফাদারকে আটক করে জেলে পাঠিয়ে পুলিশ। এছাড়া আরো বেশ কয়েকজনকে আসামী করা হয়েছে বলে পুলিশ সুত্রে জানা গেছে।
পালংখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী জানান, রোহিঙ্গারা বেপরোয়া চলাচল করার কারনে ইয়াবা, মাদক ও অপরাধ কর্মকান্ড বন্ধ হচ্ছেনা। তাদেরকে নিয়ন্ত্রণ করা না হলে খুবই অল্প সময়ের মধ্যে আমরা যারা স্থানীয় রয়েছি তাদেরকে বড় ধরনের মাশুল দিতে হবে বলে জানিয়েছেন।
উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল খায়ের বলেন, মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। প্রতিনিয়ত ইয়াবা ও মাদক উদ্ধার করছে পুলিশ। এছাড়াও চিহ্নিত ইয়াবা ও মাদক ব্যবসায়ীদের ব্যাপারে খোঁজ খবর রাখা হচ্ছে।

Comments

comments

Posted ১:০৬ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

প্রকাশক
তাহা ইয়াহিয়া
সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
01870-646060
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com