• শিরোনাম

    ছাত্রের চেয়ে ছাত্রীরা এগিয়ে

    জে.এস.সিতে পাশের হার ৮৪.১০, জেডিসিতে ৯৪.৩৬

    শহীদুল্লাহ্ কায়সার | ০১ জানুয়ারি ২০২০ | ২:০৯ পূর্বাহ্ণ

    জে.এস.সিতে পাশের হার ৮৪.১০, জেডিসিতে ৯৪.৩৬

    সারাদেশের মতো কক্সবাজার জেলাব্যাপী একযোগে প্রকাশিত হয়েছে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জে.এস.সি) এবং জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলাফল। চলতি বছর জেলায় ৩৩ হাজার ৪৭৩ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। তাদের মধ্যে পাশ করেছে ২৭ হাজার ৬৪৩ শিক্ষার্থী। জেলায় জে.এস.সিতে এবার পাশের হার ৮৪ দশমিক ১০ শতাংশ।
    অন্যদিকে চলতি বছর জেলায় ৮হাজার ৩৮১ জন ছাত্রছাত্রি জেডিসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে তাদের মধ্যে ৭ হাজার ৯০৯ জন শিক্ষার্থী পাশ করেছে। জেডিসিতে এবার পাশের হার ৯৪ দশমিক ৩৬ শতাংশ। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৮০ জন শিক্ষার্থী।
    গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে মেয়েরা। চলতি বছরও জে.এস.সি এবং জে.ডি.সি পরীক্ষায় সফলতার ক্ষেত্রে ছেলেদের চেয়ে তারা এগিয়ে রয়েছে। এবার জে.এস.সি পরীক্ষায় জেলাব্যাপী ৬৭৩ জন গ্রেড পয়েন্ট এভারেজ অর্থাৎ জিপিএ ৫ অর্জন করেছে। তাদের মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যা ৩৮৮ জন। অন্যদিকে ২৪৫ জন ছাত্র এই গৌরবময় ফলাফল অর্জন করে।

    জে.এস.সিতে পাশের ক্ষেত্রে ছাত্রীদের তুলনায় কিছুটা এগিয়ে রয়েছে ছাত্ররা। এবারের জেএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ১২ হাজার ৯৯৫ জন নিয়মিত ছাত্রের মধ্যে পাশ করেছে ১০ হাজার ৮৮৯ জন। শতকরা হিসেবে যা ৮৩ দশমিক ৬৩। অপরদিকে, অংশগ্রহণকারী ১৭ হাজার ১০৫ জন নিয়মিত পরীক্ষার্থিনীর মধ্যে পাশ করেছে ১৪ হাজার ৭৭ জন।
    প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীর মধ্যে এবার ৮৩ দশমিক ৬৩ শতাংশ ছাত্র উত্তীর্ণ হয়েছে। অন্যদিকে ছাত্রীদের পাশের হার ৮৩ দশমিক ৬১ শতাংশ। ১ জন শিক্ষার্থী ফেল করায় এই বিদ্যালয় এবার শতভাগ পাশের গৌরব বঞ্চিত হয়েছে।

    জিপিএ ৫ প্রাপ্তির পাশাপাশি পাশের ক্ষেত্রে জেলার দুই স্বনামখ্যাত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মধ্যে কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এগিয়ে রয়েছে। চলতি বছর এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে ২৩০ ছাত্রী জে.এস.সি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। তাদের মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ১২৮ ছাত্রী। জেএসসিতে অংশগ্রহণকারী ২৩০ ছাত্রীই উত্তীর্ণ হয়েছে অর্থাৎ বিদ্যালয়টিতে এবারো শতভাগ ছাত্রী পাশ করেছে।
    অন্যদিকে, কক্সবাজার সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে চলতি বছর ২৩৭ জন ছাত্রী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। তাদের মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৮৬ জন ছাত্রী। পাশের তালিকায় রয়েছে ২৩৬ জন। অংশগ্রহণকারী ১জন ছাত্র ফেল করায় বিদ্যালয়টি এবার শতভাগ পাশের গৌরববঞ্চিত হয়েছে।

    প্রকাশিত ফলাফলের বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজার সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাম মোহন সেন বলেন, জিপিএ ৫ পেতে হলে সব বিষয়েই লেটার মার্ক পেতে হয়। কিন্তু আমাদের ছেলেরা তা করতে পারেনি। গণিত এবং ইংরেজির মতো জটিল বিষয়ে তাদের লেটার মার্ক রয়েছে। কিন্তু বাংলা এবং ধর্মের মতো অপেক্ষাকৃত সহজ বিষয়ে তারা মনোযোগী ছিলো না। যে কারণে জিপিএ ৫ প্রাপ্তির হার কমেছে। এস.এস.সিতে এতে পরিবর্তন আসবে আশাকরি।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ