• শিরোনাম

    সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান

    ডাটাবেজ হলে সাংবাদিকদের সুরক্ষা দেবে প্রেস কাউন্সিল

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ২:০৪ পূর্বাহ্ণ

    ডাটাবেজ হলে সাংবাদিকদের সুরক্ষা দেবে প্রেস কাউন্সিল

    বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, সাংবাদিকতা একটি ঝুঁকিপূর্ণ পেশা। প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে তারা কাজ করছে। তারা দেশ ও সমাজের কল্যানে কাজ করছে। আর সাংবাদিকদের কল্যানে সরকার কাজ করতে বদ্ধপরিকর। তাদের জীবন মানউন্নয়নে করতে কাজ করতে চাই। কিন্তু সাংবাদিকদের সঠিক তথ্য না থাকায় তাদের কল্যান কাজ করা কঠিন হয়ে পড়েছে। তাই সারাদেশের সাংবাদিকদের ডাটাবেজ করা হচ্ছে। ডাটাবেজের কাজ শেষে সবাইকে সুনির্দিষ্ট পরিচয়পত্র প্রদান করা হবে। ডাটাবেজ হলে সাংবাদিক সুরক্ষার দায়িত্ব নেবে প্রেস কাউন্সিল। প্রেস কাউন্সিলের পরিচয়পত্রের বাইরে সাংবাদিকতার সুযোগ থাকবে না।
    তিনি বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে সব সাংবাদিককে প্রশিক্ষণের আওতায় আনা হবে। এই পেশাকে উন্নত ও সমৃদ্ধ করতে আমরা সর্বোচ্চ আন্তরিকতার সাথে কাজ করছি।
    সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতার মান উন্নয়নের লক্ষে কক্সবাজারের প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ এসব কথা বলেন।
    বুধবার (১৯ ফেব্রæয়ারী) দুপুরে কক্সবাজার সার্কিট হাউজের কনফারেন্স হলে সভা অনুষ্ঠিত হয়।
    বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের এই সভায় প্রধান অতিথি আরো বলেন, সাংবাদিকদের আইন পড়তে হবে, জানতে হবে। সঠিক তথ্য ছাড়া সংবাদ করা যাবে না। মানুষের মাঝে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয় এমন সংবাদ যেন না হয়। সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, কে কোন মতাদর্শে বিশ্বাসী, সেটা বিবেচনা না করে সবাইকে এক সঙ্গে কাজ করা দরকার। তাহলে পেশার মান বাড়বে। সবাই সমৃদ্ধ হবেন। পত্রিকার মালিকপক্ষের উদ্দেশ্যে প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বলেন, সাংবাদিক-কর্মকর্তাদের বেতন ভাতা নিশ্চিত করতে হবে। আর্থিক বিষয়টি নিশ্চিত না করে পত্রিকার মালিকানা দাবী উচিত নয়।
    কক্সবাজার প্রেসক্লাবে ‘বঙ্গবন্ধু কর্ণার’ করা হবে। তার জন্য ১ লাখ টাকা অনুদান দেয়া হবে বলেও জানান প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ।
    কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের সদস্য ইকবাল সোবহান চৌধুরী।
    তিনি বলেন, সাংবাদিকদের মর্যাদা, স্বাধীনতা ও অধিকারের কথা সংবিধানে লেখা আছে। যা অন্য কোন পেশার ব্যাপারে তেমন নাই। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দূরদৃষ্টি দিয়ে প্রেস কাউন্সিল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।
    ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, বাঙ্গালীদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় জাতির জনক খুবই আন্তরিক ছিলেন। নিজেই সংবাদপত্র প্রতিষ্ঠা করেন। তার হাত ধরেই ১৯৭৪ সালে প্রেস কাউন্সিলের যাত্রা।
    তিনি বলেন, সংবাদপত্র রঙিন কিন্তু সাংবাদিকদের ভাগ্য রঙিন নয়। আইন আছে, অধিকার বাস্তবায়নে আইনের আশ্রয় নিতে হবে। সে জনই সাংবাদিক ইউনিয়ন ও প্রেসক্লাব রয়েছে।
    পত্রিকার মালিকদের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা বলেন, যারা বেতনভাতা দেবেন না তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনে আন্দোলন করতে হবে। তাতে আমাদের সর্বোচ্চ সমর্থন থাকবে। সাংবাদিকদের জন্য আইন আছে। তা বাস্তবায়নে নিজেদের সচেষ্ট থাকতে হবে। যেসব মিডিয়া হাউজ ওয়েজবোর্ড ফলো করে না; সংবাদকর্মীদের বেতন-ভাতা দেয় না, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সরকারী বিজ্ঞাপন কিভাবে পায়? দেখতে হবে।
    ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, স্বাধীন সাংবাদিকতা ছাড়া গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হবে না। যে রাষ্ট্রে সাংবাদিকতা যত নিরাপদ ও স্বাধীন হবে সেই রাষ্ট্র তত এগিয়ে যাবে, সমৃদ্ধ হবে। সারাদেশের সাংবাদিকদের ডাটাবেজ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। প্রেস কাউন্সিল থেকে কিছু নীতিমালা ঠিক করে দেয়া হচ্ছে। প্রয়োজনীয় সব ডকুমেন্ট পেলে ডাটাবেইজে স্থান হবে। দেয়া হবে একটি পরিচয়পত্র। তখন সত্যিকার সাংবাদিক পরিচয় নিশ্চিত হবে।
    ডাটাবেজের অন্তর্ভুক্ত কেউ সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে হয়রানির শিকার হলে প্রেস কাউন্সিল থেকে সহায়তা দেয়া হবে। কোড অব ইথিকস ভঙ্গ করলে পরিচয়পত্র বাতিল ও ডাটাবেজ থেকে তাকে ডিলিট করে দেয়া হবে। সাংবাদিকদের দায়বদ্ধতার মধ্যে নিয়ে আসা হবে।
    সুনির্দিষ্ট নীতিমালার মাধ্যমে এই পেশায় শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা হবে জানিয়ে সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, সংবাদ হতে হবে নিরপেক্ষ ও বস্তুনিষ্ট। বিভ্রান্তিকর কোন সংবাদ করা যাবে না। সংবাদের প্রয়োজনে কোন সরকারি কর্মকর্তার কাছে গেলে বাধা সৃষ্টি করা যাবে না। যারা তথ্য দিতে গড়িমসি করবেন, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
    সরকারের উন্নয়নের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে কিভাবে সাংবাদিকতা করতে হবে তার জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি।
    সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের সদস্য সচিব মোহাম্মদ শাহ আলম। সেই সঙ্গে তিনি মতবিনিময় সভার সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন।
    অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মাসুদুর রহমান মোল্লার সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক সৈকত পত্রিকার সম্পাদক মাহবুবর রহমান।
    কক্সবাজারে কর্মরত সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন -দৈনিক কালের কণ্ঠের বিশেষ প্রতিনিধি তোফায়েল আহমদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম মহাসচিব ও দৈনিক নয়াদিগন্তের কক্সবাজার প্রতিনিধি জিএএম আশেক উল্লাহ, এডভোকেট আয়াছুর রহমান, দৈনিক প্রথম আলোর কক্সবাজার অফিস প্রধান আবদুল কুদ্দুস রানা, সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজারের সাধারণ সম্পাদক আনছার হোসেন, আরটিভির কক্সবাজার প্রতিনিধি সাইফুর রহীম শাহীন, বাংলাদেশ অবজারভারের প্রতিনিধি ফরহাদ ইকবাল, ইউএনবির প্রতিনিধি দিপক শর্মা দীপু, দৈনিক সাঙ্গুর নিজস্ব প্রতিবেদক ও কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন) এর বার্তা সম্পাদক ইমাম খাইর। সাংবাদিকদের নিবন্ধিতকরণ ও নূন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারিত করতে প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যানের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন সাংবাদিকরা।
    তারা বলেন, গণমাধ্যমের প্রসারের কারণে সাংবাদিকতার প্রসার ঘটেছে, সাংবাদিক বেড়েছে। সেটা পজেটিভ বিষয়।
    দুঃখের বিষয় হলো -গণমাধ্যমের প্রয়োজনে মানসম্মত সাংবাদিক যেমন রয়েছে তেমন মানহীন লোকজনও এই পেশায় ঢুকে পড়েছে। এ জন্য নীতিমালা করে সাংবাদিকদের নিয়ন্ত্রণ দরকার। সেইসাথে সাংবাদিকদের বেতনভাতা নিশ্চিত করারও দাবি তুলেন বক্তারা।
    সভাপতির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মাসুদুর রহমান মোল্লা বলেন, দেশের অন্যান্য জেলার চেয়ে ভিন্ন কক্সবাজার। এখানকার মানুষ দরিদ্র হলেও প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়েছে। নিজে না খেয়ে রোহিঙ্গাদের খাবার দিয়েছে। সাহায্য করেছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ৭৯টি অগ্রাধিকার প্রকল্প কক্সবাজারকেন্দ্রীক চলছে। যার প্রচারণা করছে এখানকার সংবাদকর্মীরাই। যা মূলতঃ দেশের পক্ষেই রিপ্রেজেন্ট করছে কক্সবাজারের গণমাধ্যমকর্মীরা। সাংবাদিকদের সুরক্ষায় কয়েকটি প্রস্তাবনা পেশ করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক। তিনি পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে কোন সংবাদকর্মী আক্রান্ত হলে তার সম্পূর্ণ চিকিৎসার ভার সরকারকে নেয়ার আহŸান, কক্সবাজার প্রেসক্লাবকে উন্নয়নের আওতায় আনার প্রস্তাবনা দেন।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ