• শিরোনাম

    দক্ষিণ সাহিত্যিকাপল্লীর দারুল আমান একাডেমী ও এতিমখানার ৩য় তম কোরআন প্রতিযোগিতা এবং ১৩ তম বার্ষিক সভা।

    বার্তা পরিবেশক | ২৭ জানুয়ারি ২০২০ | ১১:২৮ অপরাহ্ণ

    দক্ষিণ সাহিত্যিকাপল্লীর দারুল আমান একাডেমী ও এতিমখানার ৩য় তম কোরআন প্রতিযোগিতা এবং ১৩ তম বার্ষিক সভা।

    কক্সবাজার পৌরসভাস্থ ০৬নং ওয়ার্ডের বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন দক্ষিণ সাহিত্যিকাপল্লী এলাকায় প্রতিষ্ঠিত দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল আমান একাডেমী ও বালক-বালিকা হেফ্জ বিভাগ এবং এতিমখানা।

    অত্র প্রতিষ্ঠান টি দৃষ্টিনন্দন মনোরম পরিবেশে শান্তির আহ্বানে কচি কচি সুমধুর কন্ঠে কোরআন তেলাওয়াতের কলতান। কোরআনের আওয়াজে মুখরিত অত্র এলাকা। বর্ষিত হয় রহমত, মুক্ত থাকে বিপদ। একঝাঁক শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়ে বিশুদ্ধ কোরআন শিক্ষা আর পাঠদানে অক্লান্ত পরিশ্রম ইসলামের খেদমত করে যাচ্ছেন পরিচালক মাওলানা ফরিদুল আলম মিয়াজী ও সহকারী পরিচালক হাফেজ মোহাম্মদ হাশেম।

    আজ ২৭শে জানুয়ারী সোমবার দারুল আমান একাডেমী মাদ্রাসার ময়দানে ১দিন ব্যাপী ৩য় তম হিফ্জুল কোরআন প্রতিযোগিতা ও ১৩ তম বার্ষিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দারুল আমান একাডেমীর উদ্যোগে মাদ্রাসার ময়দানে হিফ্জুল কোরআন এতিমখানার আয়োজনে বিশুদ্ধ কোরআন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান সঞ্চালন করছেন মাওলানা ক্বারী সুজাউল আলম জমিদারী, শিক্ষক, পূর্ব কলাতলী আদর্শ শিক্ষা নিকেতন, কক্সবাজার। বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হবে। বিশুদ্ধ হিফ্জুল কোরআন প্রতিযোগিতায় বিচারক মণ্ডলীতে মাওলানা ক্বারী আহমদুল হক, শিক্ষক, ক্বেরাত বিভাগীয় প্রধান, আল জামিয়া আল ইসলামিয়া, পটিয়া, চট্টগ্রাম, মাওলানা হাফেজ মোহাম্মদ ফোরকান, প্রধান শিক্ষক, হেফজ বিভাগ, আল জামিয়া আল ইসলামিয়া, পটিয়া, চট্টগ্রাম, মাওলানা নুরুল আবছার, সিনিয়র শিক্ষক, আল জামিয়া আল ইসলামিয়া, পটিয়া, চট্টগ্রাম এবং অত্র মাদ্রাসার পরিচালক আলহাজ্ব মৌলানা ফরিদুল আলম মিয়াজী সহ ৪জন বিচারক।

    প্রতিযোগিতায় কক্সাবাজার জেলার ৩৮টি হেফজখানার শিক্ষার্থী ৭৫ জন অংশ নিয়েছেন। ১ পারা থেকে ১৫ পারা পর্যন্ত প্রতিযোগিতা করবেন। এতে মোঃ মিনহাজ উদ্দিন, আল জাবেরিয়া আদর্শ হাফেজিয়া মাদ্রাসা, দঃ ধুরুং, কুতুবদিয়ার ছাত্র ১ম বিজয়ী হিসেবে ১০,০০০/- টাকা, মোহাম্মদ জিমান, মিছবাহুল উলুম হেফজখানা, সোয়ানখালী, জালিয়াপালং, উখিয়ার ছাত্র ২য় বিজয়ী হিসেবে ৭০০০/- টাকা, দেলোয়ার হোসেন, কা’আব বিন মালেক(রাঃ), চেপটখালী, জালিয়াপালং, উখিয়ার ৩য় বিজয়ী হিসেবে ৫০০০/- টাকা প্রতিযোগি কে নগদ টাকায় পুরস্কৃত করা হয়েছে এবং উক্ত সভায় অত্র মাদ্রাসার হিফ্জ বিভাগের ৩০ পারা কুরআন মুখস্থ শেষ করেছেন এমন ০৭ জন হাফেজ শিক্ষার্থীদের মাঝে পাগড়ী ও সনদপত্র বিতরণ প্রদান করা হয়েছে।

    মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক আলহাজ্ব মাওলানা ফরিদুল আলম মিয়াজী জানান, বিশ্বে দ্বীনি শিক্ষা আলোকিত সমাজ বিনির্মাণের বাতিঘর। এ প্রতিষ্ঠান টি কোরআনে হাফেজ ও আলেম ওলামা তৈরির কারখানা। এখানে শুধু দ্বীনি শিক্ষা নয়, বরং প্রাতিষ্ঠানিকভাবে যুপোযোগী আধুনিক শিক্ষার মাধ্যমে সুনাগরিক তৈরি করা হয়।। এ মাদ্রাসার শিক্ষার গুণগতমান নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সব ধরনের সুযোগ সুবিধা নিশ্চি করা হবে। সে সাথে দক্ষিণ সাহিত্যিকাপল্লীবাসীর সহযোগিতা আমাদের একান্ত কাম্য।

    এতে প্রধান বক্তা হিসাবে চট্টগ্রাম অঞ্চলের সুপরিচিত ধর্মীয় আলোচক আল্লামা ছৈয়দুল আলম আরমানী, সিনিয়র মুহাদ্দিস, রাজঘাটা মাদ্রাসা, লোহাগাড়া, চট্টগ্রাম। বিশেষ বক্তা প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন কোরআনে মুফাসসির মাওলানা ওবায়দুল্লাহ হামযাহ্, সিনিয়র শিক্ষক, আল জামিয়া আল ইসলামিয়া, পটিয়া, চট্টগ্রাম। বিশিষ্ট ধর্মীয় আলোচক ইসলামি চিন্তাবিদ হাফেজ মাওলানা আব্দুর রহীম রাহী, মুহাদ্দিস, আল মাহাদুল ইলমি, লিংকরোড, কক্সবাজার প্রমুখ তাকরির পেশ করেন।

    বার্ষিক সভায় বক্তারা বলেন, ইসলাম হচ্ছে শান্তির ধর্ম। ইসলাম সারা বিশ্বে শান্তির বার্তা পৌছায়। এখানে বিশৃঙ্খলা কোন স্থান নেই। যারা ইসলামের নামে আজ বিশ্বে অরাজকতা সৃষ্টি করছে তারা ইসলামের চরম শত্রু। যারা প্রকৃত মুসলিম তারা কখনো অশান্তি হানাহানিতে লিপ্ত হতে পারে না। তারা ভ্রান্ত মতধারায় পথভ্রষ্ট।

    বক্তারা আরো বলেন, ইসলামের সঠিক মতাদর্শ প্রচার প্রসারে বিশ্ব ব্যাপী মাদ্রাসা সমূহ ব্যাপক ভুমিকা রাখছে। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে ইসলামের সঠিক জ্ঞান বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়া হয়। তাই সর্বস্তরের মুসলিম জনতাকে এসব প্রতিষ্ঠান গুলোকে সহযোগীতায় এগিয়ে আসতে হবে। তাহলে এদেশে মানুষ ইসলামের সঠিক মতাদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে আল্লাহর নৈকট্য হাসিল করতে পারবে।

    আরেক বক্তা বলেন, বর্তমান সমাজে নিত্য পর্দা লংঘন হচ্ছে। কোনভাবেই ইসলামি শরীয়তে পর্দা না করার সুযোগ নেই এবং মাদক ইসলামী শরীয়তে সম্পুন্ন নিষিদ্ধ। কিন্তু মাদকের কারনে আজ সমাজ কলুষিত হয়েছে। মাদক মুক্ত সমাজ ও রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে হলে ইসলামের সম্পুর্ন বিধিবিধান মেনে চলতে হবে। এছাড়া কোন ভাবেই দেশ ও সমাজকে মাদক মুক্ত করা সম্ভব নয়।

    উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন অত্র এলাকার দক্ষিণ সাহিত্যিকাপল্লী সমাজ কমিটির সভাপতি নুরুল কবির লেডু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল আরমান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শাহাব উদ্দিন সাবু, সাবেক সভাপতি আছাদউজ্জামানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। উক্ত প্রতিযোগিতা ও সভায় সার্বিক সহযোগিতয় লিপ্ত ছিলেন অত্র মাদ্রাসার শিক্ষক মন্ডলী মাওলানা মোঃ হোসাইন, মাওলানা কারী নাছির উদ্দিন, মাওলানা নুর মোঃ বারী, মাওলানা আজিজুল হক, মাওলানা মোঃ আব্দুল্লাহ, মাওলানা সেলিম উল্লাহ, মাওলানা খোরশেদুল ইসলাম ও জিন্নাত আরা মজুমদার বৃন্দ।

    মধ্যরাতে শত শত মুসলিম জনতার উপস্থিতিতে আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে দেশ জাতির জন্য মঙ্গল কামনায় সভা সমাপ্ত আর মাদ্রাসার বার্ষিক সভার সফলতা এবং মাদ্রাসার সার্বিক উন্নয়নে সর্বমহলের দোয়া ও আর্থিক সহযোগিতা কামনা করেন।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ