শুক্রবার ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

দ. কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্টের সাজা বাড়লো আরো ৮ বছর

দেশবিদেশ অনলাইন ডেস্ক   |   শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮

দ. কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্টের সাজা বাড়লো আরো ৮ বছর

দক্ষিণ কোরিয়ার কারাবন্দী সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাই’কে আরো আট বছর কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। রাষ্ট্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা থেকে অর্থ গ্রহণ ও ২০১৬ সালের নির্বাচনে অযাচিত হস্তক্ষেপ করার দায়ে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় শুক্রবার তার এই সাজা ঘোষণা করা হয়। এর আগে এক ডজনেরও বেশি দুর্নীতি মামলায় তাকে ২৪ বছরের কারাদন্ড দিয়েছিল আদালত। বর্তমানে তিনি কারাগারে ওই সাজা ভোগ করছেন। নতুন করে ৮ বছরের কারাদন্ড দেয়ার ফলে এখন তাকে মোট ৩২ বছর সাজা ভোগ করতে হবে। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা।

খবরে বলা হয়, পার্ক জিউন হাই ও তার কয়েকজন সহকর্মী মিলে জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্স সার্ভিসের ২৯ লাখ ডলার অর্থ আত্মসাৎ করেন। সিউলের কেন্দ্রীয় আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি সিউং চ্যাং হো বলেন, সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক তিন বছর ধরে গোয়েন্দা প্রধানদের কাছ থেকে প্রায় ৩ বিলিয়ন ওন (২৯ লাখ ডলার) অর্থ নিয়েছেন। এই অপরাধের কারণে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে উল্লেখযোগ্য ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া, তিন জন গোয়েন্দা প্রধান স্বীকারোক্তি দিয়েছেন যে, প্রেসিডেন্টের নির্দেশে তারা গোয়েন্দা তহবিলের অর্থ হস্তান্তর করেছেন। তবে অভিযুক্ত পার্ক জিউন তার বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এমনকি আদালতের শুনানি ও প্রসিকিউটরের জিজ্ঞাসাবাদের সময় তিনি অসহযোগিতা করেন। এজন্য বিচারপতি সিউং চ্যা হো শুক্রবার দেয়া রায়ে পার্ক জিউনকে তিরস্কার করেন।
এছাড়া, পার্লামেন্ট নির্বাচনে সানুরি পার্টির প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার ক্ষেত্রে তার হস্তক্ষেপ করার অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে ১৫ বছরের কারাদন্ড দেয়ার আবেদন করে প্রসিকিউটর। আদালত তাদের আবেদন আমলে নিয়ে পার্ককে ৮ বছরের কারাদন্ড দেন। রায় ঘোষণার সময় পাক জিউন আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

২০১৩ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেন পার্ক জিউন হাই। দায়িত্ব গ্রহণ করার পর থেকেই তার বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠতে থাকে। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে দেশটির পার্লামেন্ট প্রেসিডেন্টকে অভিশংসন করার সিদ্ধান্ত দেয়। কিন্তু পার্ক সকল অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ প্রত্যাখান করেন। তিনি প্রেসিডেন্টের পদ ছাড়তে অস্বীকৃতি জানান। এর তিন মাস পর ৮ সদস্যের সাংবিধানিক আদলত সর্বসম্মতভাবে তাকে বরখাস্ত করে। ২০১৭ সালে তার বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগপত্র গঠন করা হয়। এর প্রেক্ষিতে গ্রেপ্তার হন পার্ক।
পার্ক জিউনের বাবা পার্ক চুং হি-ও দেশটির প্রেসিডেন্ট ছিলেন। ১৯৬১ সালে তিনি ক্ষমতা দখল করেন। এর আট বছর পর গুপ্তহত্যার শিকার হন।

Comments

comments

Posted ৬:১১ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

প্রকাশক
তাহা ইয়াহিয়া
সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
01870-646060
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com