রবিবার ২৫শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

নাচের ভুবনে প্রিয়াংকার সাফল্য

দেশবিদেশ অনলাইন ডেস্ক   |   শুক্রবার, ২১ ডিসেম্বর ২০১৮

নাচের ভুবনে প্রিয়াংকার সাফল্য

নাচের প্রতি প্রিয়াংকা সরকারের দুর্বলতা সেই ছোট্টবেলা থেকে। স্কুল জীবনে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ে নাচ দিয়েই নিজেকে আলাদা করেছেন তিনি। ‘ভরত নাট্যম’, ‘কত্থক’, ‘আধুনিক লোকনৃত্য’ থেকে শুরু করে প্রায় ডজনখানেক নাচের ওপর দখল রয়েছে তার। নিজে নেচেছেন, নাচ শিখিয়েছেন অন্যকে। পেয়েছেন অনেক সুখ্যাতি ও অ্যাওয়ার্ড।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্ম বিভাগের সাবেক এই ছাত্রী গত বছর ভারত সরকারের দেওয়া আইসিসিআর (ইন্টারন্যাশনাল ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনস) স্কলারশীপ নিয়ে নৃত্য বিষয়ে কলকাতার রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যান। দেশের উচ্চবিদ্যাপীঠে থাকাকালীন যেমন বিভিন্ন নাচের অনুষ্ঠানে অংশ নিতেন প্রিয়াংকা, ঠিক তেমনি রবীন্দ্র ভারতীতে পড়াশোনার পাশাপাশি অংশ নিচ্ছেন কলকাতার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে।

শুরুর গল্প

নাচের প্রতি প্রিয়াংকার দীর্ঘ পথ যে শুধু তার ভালোলাগা থেকে এমনটি নয়, পরিবারে উৎসাহ ছিল অনেক বেশি। বড় চাচা ভক্ত চরণ সরকার বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় প্রিয়াংকাকে সঙ্গে নিয়ে যেতেন। বাবা ফণীভূষণ সরকার ও মা পুতুল রানী রায় সব সময় পাশে ছিলেন প্রিয়াংকার। যেকারণে বিভিন্ন প্রতিযোগতায় অংশ নিয়ে হতেন দ্বিতীয় অথবা তৃতীয়। রাজবাড়ী সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজে ভর্তির পর দুই বছর নাচের প্রতিযোগিতায় প্রথম হন তিনি। ২০০৮ সালে তিনদিনব্যাপী কলেজে রজতজয়ন্তী অনুষ্ঠানে নেচেছিলেন প্রিয়াংকা।

প্রতিযোগিতায় প্রিয়াংকার সফলতা

দেশে থাকাকালীন ২০১১ সালে অংশ নেন ‘ম্যাংগলী নাচো বাংলাদেশ নাচো’ প্রতিযোগিতায়। ২০১২ ও ২০১৫ সালে ‘চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ে’র দ্বিতীয় রাউন্ডে পৌঁছেছিলেন তিনি। ২০১৪ সালে ময়মনসিংহের ত্রিশালে অবস্থিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত আন্তবিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার ‘একক সাধারণ নৃত্য’ বিভাগে প্রথম পুরস্কার (স্বর্ণপদক) পান তিনি। ২০১৫ সালে এই প্রতিযোগিতার ভেন্যু ছিল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেখানেও একক নৃত্য ও দলীয় নৃত্যে দলনেতা হিসেবে প্রথম পুরস্কার (স্বর্ণপদক) জিতেছেন প্রিয়াংকা।

 

ভারতে যাওয়ার আগে

ভারতে পাড়ি জমানোর আগে প্রিয়াংকা সরকার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী থাকাকালীন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিতেন। রাজশাহীর ‘নিক্কণ নৃত্য শিল্পী গোষ্ঠী’র একজন সদস্য হয়ে কাজ করেছেন দীর্ঘদিন। সেখানেই তিনি হাসিব পান্নার কাছে ‘ভরত নাট্যম’ ও ‘কত্থক’ নাচের তালিম নেন। এ ছাড়া দীপ্তি গুহ্ ও আবদুস সাত্তারের কাছে লোক ও সাধারণ নৃত্যে তালিম নিয়েছেন। জাতীয় বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ ও সংগঠনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নেচেছেন প্রিয়াংকা।

দেশের বাইরে প্রিয়াংকার পথচলা

নাচ নিয়ে স্বপ্ন দেখা বাংলাদেশি এই ছাত্রী গত ৩০ নভেম্বর ‘আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী দিবস’ উপলক্ষে আইসিসিআর-এর হয়ে কলকাতায় সত্যজিৎ রায় মিলনায়তনে ‘ভরত নাট্যম সলো পারফরমেন্স’ করেছেন, পেয়েছেন অনেক অনেক প্রশংসা আর উৎসাহ। ভারতে প্রিয়াংকাকে এ পর্যায়ে নিয়ে এসেছেন তার গুরু মিলন অধিকারী। তার কাছেই এখন প্রিয়াংকা নাচের তালিম নিচ্ছেন।

নাচের অভিজ্ঞতা জানাতে গিয়ে মুঠোফোনে ভারত থেকে প্রিয়াংকা সরকার বলেন, ‘আইসিসিআর-এর হয়ে কলকাতার মঞ্চে এ ধরনের পারফরমেন্স একটি স্বপ্নের মতো। অনেকের এ স্বপ্ন থাকলেও ছুঁয়ে দেখতে পারেন না। যেটা আমি পেরেছি। অনুষ্ঠানে সব অফিসার, আঞ্চলিক পরিচালকরা এবং শিক্ষার্থীদের কাছে প্রচুর উৎসাহ পেয়েছি।’

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এর আগে যদিও প্রিয়াংকার অংশ নেওয়ার অভিজ্ঞতা রয়েছে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন রেঞ্জারের সেরা সদস্য হিসেবে ভারতের পুনেতে আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

প্রিয়াংকার অ্যাওয়ার্ড

পড়াশোনার জন্য ভারতে গিয়েও প্রিয়াংকার সাফল্য থেমে থাকেনি, রবীন্দ্র ভারতীর শিক্ষার্থী হিসেবে পেয়েছেন ভারতের ‘ক্যালাজিবাহ অ্যাওয়ার্ড’। বাংলাদেশের হয়ে এই প্রথম কোনো শিক্ষার্থী এ ধরনের আওয়ার্ড পেয়েছেন। তার সঙ্গে এই অ্যাওয়ার্ড পাওয়া আরেক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী হলেন মোফাসসাল আল আলিফ। তিনি ভারতের মুম্বাই শহরে আধুনিক নৃত্যের ওপর স্কলারশীপ নিয়ে পড়াশোনা করছেন। দেশটির অন্ধ প্রদেশের বিশাখাপত্তমের ‘স্কুল অব থিয়েটারের’ গ্রীস্মকালীন ক্যাম্পের অংশ হিসেবে ‘ফোক ড্যান্স’র কর্মশালায় অংশ নিয়ে ওই অ্যাওয়ার্ড পান প্রিয়াংকা।

অ্যাওয়ার্ড নিয়ে প্রিয়াংকা সরকার বলেন, ‘এটা আমার কাছে অত্যন্ত গর্বের বিষয় যে, একজন বাংলাদেশি হিসেবে এই প্রথম আমি অ্যাওয়ার্ডটি পেয়েছি। বাংলাদেশের হয়ে এ পাওয়াটা আমার কাছে অত্যন্ত সম্মানের।’

দেশে ফিরে যা করতে চান প্রিয়াংকা

রাজবাড়ির এই নাচের রানী নৃত্যটাকে এতটাই ভালবাসেন যে নাচ নিয়ে তার রয়েছে আকাশসম স্বপ্ন। শিক্ষাজীবন শেষ করে দেশে এসে নৃত্য নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা রয়েছে তার।

দেশে ফিরে নাচ নিয়ে তার পরিকল্পনার কথা জানতে চাইলে প্রিয়াংকা সরকার বলেন, ‘আমি নাচটাকে ভালবাসি। নাচ নিয়ে আমাদের দেশে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। প্রথমত, সেটা নিয়ে কাজ করতে চাই। এর পাশাপাশি প্রাথমিকভাবে বিভিন্ন টেলিভিশনে নাচের অনুষ্ঠান নিয়ে কাজ করার আগ্রহ রয়েছে।’

Comments

comments

Posted ৭:৫১ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২১ ডিসেম্বর ২০১৮

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

কাল বই উৎসব
কাল বই উৎসব

(632 বার পঠিত)

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com