বুধবার ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

পথ হারিয়ে নাফনদে বাচ্চাসহ হাতি

জাকারিয়া আলফাজ, টেকনাফ   |   সোমবার, ২৮ জুন ২০২১

পাহাড়ের নিজ আবাসস্থল ছেড়ে পথ ভুলে নাফনদে নেমে পড়েছে দুটি হাতি। রবিবার সকাল থেকে হাতি দুটি টেকনাফ নাইট্যংপাড়া পাহাড়ি এলাকা নেমে নাফনদ সাঁতরিয়ে দুপুর ১২ টার দিকে শাহপরীর দ্বীপ সংলগ্ন নাফনদের চরে অবস্থান পৌঁছে। হাতি দুটি দেখতে উৎসুক জনতা ভীড় করেছে। বনবিভাগের কর্মকর্তারা সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত সেখানে অপেক্ষা করেও হাতি দুটি গন্তব্যে ফেরাতে পারেনি। তবে তারা হাতি দুটি বনে ফেরাতে উদ্যেগ নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন। টেকনাফ বনবিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা সৈয়দ আশিকুর রহমান বলেন, গত শনিবার বিকালে হাতি দুটি টেকনাফ সদর সংলগ্ন নাফনদে নেমেছিল। খবর পেয়ে বিভিন্ন জনের সহযোগীতায় হাতি দুটি বনে ফেরানো হয়েছিল। রবিবার সকালে হাতি দুটি আবারো নাফনদে নেমেছে বলে জেনে ঘটনাস্থলে গিয়ে বনে ফেরানোর ব্যাপারে তৎপরতা চালাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, হাতির দুটির মধ্যে একটি বাচ্চা এবং অপরটি মা। সম্ভবত খাবারের খোঁজে বের হয়ে তারা পথ হারিয়ে নাফনদে নেমে পড়েছে। প্রথমবার বনে ফেরালেও হয়তো পথ ভুলে পুনরায় নদের জলে নেমে পড়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এ ব্যাপারে কথা বলে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। শাহপরীর দ্বীপের বাসিন্দা মোহাম্মদ ইউনুচ বলেন, হাতি দুটি সকাল ১০ টা দিক্রেথম আমরা সাবরাং সংলগ্ন নাফনদে সাঁতরিয়ে দক্ষিণে চলে যেতে দেখি। পরে শাহপরীর দ্বীপ বিজিবি ক্যাম্পের সামনে নাফনদের চরে হাটু পানিতে থেমে যায়। স্থানীয় লোকজন হাতি দেখতে দুপুর থেকে জমায়েত হয়েছে। অনেকে আতঙ্কে রয়েছে, গন্তব্যে ফেরাতে না পারলে না জানি লোকালয়ে ঢুকে কি তা-ব চালায়। টেকনাফ মডেল থানার পুলিশের শাহপরীর দ্বীপ ক্যাম্প ইনচার্জ যায়েদ হাসান বলেন, সকাল থেকে নাফনদ হয়ে শাহপরীর দ্বীপ বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন দুটি হাতি আসার খবর পেয়ে উৎসক লোকজন ভিড় করেছে। হাতি দুটি সন্ধ্যার আগে বনে ফেরাতে বনবিভাগের লোকজনকে প্রয়োজনীয় সহযোগীতা দেয়া হয়েছে। স্থানীয় সচেতন মহলের ধারণা, টেকনাফ ও উখিয়ায় হাতির আবাসস্থল হিসেবে জায়গাগুলো রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দখলে চলে যাওয়ায় হাতিগুলো পাহাড়ে চলাচলে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে নিয়মিত। এছাড়া রোহিঙ্গাদের কারণে দিনদিন পাহাড় উজাড় হয়ে যাওয়ায় সেখানে হাতির খাদ্যসংকটও দেখা দিয়েছে। এ কারণে প্রতিনিয়ত হাতিগুলো লোকালয়ে ঢুকে পড়ে বিভিন্ন সময় তা-ব চালায়।

Comments

comments

Posted ৩:১৮ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২৮ জুন ২০২১

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com