শুক্রবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

বিশিষ্ট্যজন ও ভিআইপিদের পরিদর্শন

পুষ্পাঞ্জলী-মঙ্গলারতিতে উৎসবমুখর পূজা মন্ডপ: আজ মহানবমী

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   সোমবার, ০৭ অক্টোবর ২০১৯

পুষ্পাঞ্জলী-মঙ্গলারতিতে উৎসবমুখর পূজা মন্ডপ: আজ মহানবমী

ঢাকে ঢোলে শঙ্খে আর উলুধ্বনীতে মেতে উঠেছে দুর্গাপূজার প্রতিটি মন্ডপ। কক্সবাজারের ২৯৬টি মন্ডপ আলোয় আলোকিত হয়ে উঠেছে। সকালে পুষ্পাঞ্জলী, দুপুরে মহাপ্রসাদ, দুপুর থেকে সন্ধা পর্যন্ত জারণপূঁথি পাঠ। সন্ধায় মঙ্গলারতি ও পূজো। এভাবে মহা অষ্টমীর সারাদিন উৎসবমুখর পরিবেশে পূঁজো হয়েছে। আজ ৭ অক্টোবর হচ্ছে মহানবমী পূজা।
এদিকে মহা অষ্টমীর দিনে কক্সবাজারের বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন, সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি, জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন ও পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন। এসময় জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন বলেন, ধর্ম পালন সবার মৌলিক ও রাষ্ট্রিয় অধিকার। যার যার ধর্ম সে সে পালন করবে। আর প্রতিটি ধর্ম পালনের উৎসবে সবাইঅংশগ্রহন করবে। ধর্মীয় উৎসবে সম্প্রীতির মিলট ঘটে। কক্সবাজার তার একটি দৃষ্টান্ত।

শহরে দুর্গাপূজার মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন জেলা ও দায়রা জজ হাসান মো: ফিরোজ। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান।
অষ্টমী পূজায় মা দুর্গাকে প্রতিটি সনাতন ধর্মালম্বীরা পূজা অর্চনা, আর অঞ্জলী প্রদান করেছেন। প্রার্থনা করেছেন মায়ের কাছ থেকে সবাই আশির্বাদ পেতে। সকালে অঞ্জলী, সন্ধ্যায় আরতি আর পূজোয় পূজোয় মেতে উঠেছে মন্ডপ। ঢাকে ঢোলে আর কাঁসর তালে নেচে আরতিতে আনন্দ করে ছোট বড় সবাই। উৎসবমূখর হয়ে উঠেছে শারদীয় দুর্গাপূজার মহাসপ্তমী।

সনাতন সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা ৪ অক্টোবর শুক্রবার ষষ্ঠীতে অধিবাস পূজার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে। ৮ অক্টোবর বিজয়া দশমী প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে। এবার কক্সবাজার জেলায় ২৯৬ টি মন্ডপে উৎসবমূখর পরিবেশে পূজা হচ্ছে।
৪ অক্টোবর শ্রী শ্রী দুর্গা ষষ্ঠী। পূর্বাহ্ন ৯/৫৮ মধ্যে শ্রী শ্রী শারদীয়া দুর্গাদেবির ষষ্ঠাদি কল্পারম্ভ এবং ষষ্ঠী বিহিত পূজা প্রশস্তা। সায়াংকালে দেবীর আমন্ত্রণ ও অধিবাস হয়েছে।

জেলা প্রশাসন,জেলা পুলিশ বিভাগ, ট্যুরিস্ট পুলিশ, উপজেলা প্রশাসন, পৌরসভা ও জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ পৃথক পৃথক প্রস্তুতি সভা করেছে। সভায় উৎসবমুখর পরিবেশে শান্তিপূর্ণভাবে দুর্গাপূজা উদযাপনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতিটি মন্ডপে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। প্রশাসনিক কর্মকর্তার গত ৪ অক্টোবর মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন।

গতবারের ন্যায় এবারো রোহিঙ্গা হিন্দু শরনার্থী ক্যাম্পে দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসকের সহযোগিতায় জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ ক্যাম্পে দুর্গাপূজা আয়োজনে প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।
জেলার মধ্যে কক্সবাজার শহরের যে ১১ টি পূজা মন্ডপ তা অতি আকর্ষনীয়ভাবে গড়ে তোলা হয়েছে। সবার নজর থাকে শহরের এই ১১ টি পূজা মন্ডপের প্রতি।
ভক্তরা বলেছেন, এবার মা দুর্গা আসছেন ঘোড়ার পিঠে চড়ে। যাবেনও ঘোড়ায়। একারণে ঝড় ঝাপটার আশঙ্কা আছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে যেন মানুষ রক্ষা পায়-সে প্রার্থনা থাকবে দুর্গামায়ের প্রতি।

Comments

comments

Posted ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ০৭ অক্টোবর ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com