• শিরোনাম

    বিশ্বে  ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা নেই

    প্রতিরোধেই পথ খোঁজা চিকিৎসকদের

    শহীদুল্লাহ্ কায়সার | ০৭ আগস্ট ২০১৯ | ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

    প্রতিরোধেই পথ খোঁজা চিকিৎসকদের

    কক্সবাজার সদর হাসপাতালে কমছে মৃত্যুপথযাত্রী ডেঙ্গু ভাইরাসবাহী রোগির সংখ্যা। কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আক্রান্তদের মধ্যে প্রায় সবাই আশঙ্কামুক্ত। তবে, এখনো কক্সবাজার জেলা ডেঙ্গু মুক্ত নয় ।
    মরণঘাতক এই ভাইরাসের কোন কার্যকর চিকিৎসা বিজ্ঞানিরা এখনো আবিষ্কার করতে পারেননি। ফলে প্রতিরোধ ছাড়া কোন পথ খুঁজে পাচ্ছেন না চিকিৎসকরা। চলতি আগস্ট মাস পর্যন্ত এই রোগের প্রকোপ অব্যাহত থাকবে। এই সময়ের মধ্যে রোগ প্রতিরোধে সচেতন থাকতে হবে। জানালেন একজন চিকিৎসক।
    গতকাল কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন দুইজন ডেঙ্গু ভাইরাসে আক্রান্ত রোগি। তাঁদের মধ্যে একজন ঢাকায় আক্রান্ত হওয়ার পর নিজ জেলা কক্সবাজারে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আর একজন এক সপ্তাহ আগে চট্টগ্রাম শহরে গিয়ে ডেঙ্গু আক্রান্ত হন।
    ৬ আগস্ট রাতে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে গিয়ে জানা গেছে, বর্তমানে হাসপাতালের ওয়ার্ড ও ডেঙ্গু কর্নারে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১৮ রোগি। হাসপাতালের মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডে বর্তমানে ৬ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগি চিকিৎসাধীন। ডেঙ্গু কর্নারে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৮জন এবং পুরুষ মেডিসিন ওয়ার্ডে ২জনকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। একজনকে কেবিনে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
    আক্রান্তদের মধ্যে কক্সবাজার শহরের নুনিয়াছড়া, সদরের খুরুশ্কুলের পাশাপাশি টেকনাফ, উখিয়া, রামু এবং চকরিয়া উপজেলার রোগির সংখ্যা বেশি। তবে, ইতোমধ্যেই অনেককে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। ইতঃপূর্বে ঢাকায় আক্রান্ত দুই ছাত্রকে তাদের অভিভাবকরা উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম নিয়ে গেছেন।
    হাসপাতালের পুরুষ মেডিসিন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন মোঃ আরমান (১৭) নামে এক রোগির সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, চকরিয়া উপজেলার চরণদ্বীপ তার নিজ গ্রাম। রাজমিস্ত্রির কাজ করতে এক মাস আগে স্থানীয় এক মিস্ত্রির সঙ্গে সে ঢাকায় যায়। সেখানে জ¦রের সাথে বমি হলে শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। পরীক্ষা করানোর পর ডাক্তাররা তার শরীরে ডেঙ্গু ভাইরাসের অস্তিত্ব খুঁজে পান। অসুখ নিয়েই গতকাল ৬ আগস্ট বিকেল সাড়ে ৪ টায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়। তাঁকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া মিস্ত্রিও ডেঙ্গু ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পরে ভালো হয়ে গেছে বলে জানায় আরমান।
    এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ মোঃ মহিউদ্দিন বলেন, জেলাব্যাপী ডেঙ্গু ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কমছে। তবে ঝুঁকি কমেছে তা এখনই বলা যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা করানোর চেয়ে প্রতিরোধ করাই সবচেয়ে উত্তম। হাসপাতালে ডেঙ্গু ভাইরাস শনাক্তকরণে পরীক্ষার জন্য পর্যাপ্ত কিট রয়েছে। সন্দেহজনক মনে হলে যে কেউ বিনামূল্যে পরীক্ষা করাতে পারবেন বলেও জানান তিনি।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ