মঙ্গলবার ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

প্রাথমিক হামলা পরিকল্পনা পরিবর্তন করে ব্রেনটন

দেশবিদেশ অনলাইন ডেস্ক   |   রবিবার, ১৭ মার্চ ২০১৯

প্রাথমিক হামলা পরিকল্পনা পরিবর্তন করে ব্রেনটন

সন্ত্রাসী অ্যান্ডার্স ব্রেইভিকের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে নিউজিল্যান্ডে হামলা চালিয়েছে ব্রেনটন টেরেন্ট। একই সঙ্গে সে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান এবং লন্ডনের মেয়র সাদেক খানের মৃত্যু কামনা করেছে। ব্রেনটন টেরেন্ট প্রথমে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল নিউজিল্যান্ডের ডুনেদিনের একটি মসজিদে। কিন্তু সেই পরিকল্পনা সে পরিবর্তন করে। হামলার জন্য বেছে নেয় আল নূর ও লিনডন মসজিদ। এর কারণ, এ মসজিদ দুটিতে তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি মুসল্লি নামাজ আদায় করতে যান। ব্রেনটন আরো বলেছে, প্রথমত তার হামলাটি নিউজিল্যান্ডে করার পরিকল্পনা ছিল না। তার ভাষায়, আমি নিউজিল্যান্ডে বসবাস করি অস্থায়ী ভিত্তিতে।
এখানে আমি পরিকল্পনা করেছি ও প্রশিক্ষিত হয়েছি। সহসাই দেখতে পেয়েছি, পরিবেশগত দিক দিয়ে নিউজিল্যান্ড অনেক উন্নত পশ্চিমাদের মতো। দ্বিতীয়ত, আমাদের সভ্যতার ওপর যে হামলা হচ্ছে সে বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করতে আমি নিউজিল্যান্ডকে বেছে নিই। এই হামলার আগে ‘দ্য গ্রেট রিপ্লেসমেন্ট’ শীর্ষক একটি ‘ম্যানিফেস্টো’তে এসব কথা বলেছে ব্রেনটন। নিউজিল্যান্ডে হামলা চালানোর আগে সে এই ‘ম্যানিফেস্টো’ প্রকাশ করে অনলাইনে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ডেইলি মেইল।

এতে ক্রাইস্টচার্চের হামলায় কীভাবে সে উদ্বুদ্ধ হয়েছে, তার বিস্তারিত বর্ণনা রয়েছে। ক্রাইস্ট চার্চের মসজিদ সে কেন বাছাই করেছে এবং কিভাবে নরওয়ের ঘাতক অ্যান্ডার্স ব্রেইভিকের দ্বারা উদ্বুদ্ধ হয়েছে, তার বিস্তারিত বর্ণনাও রয়েছে এতে। উল্লেখ্য, ২০১১ সালে সন্ত্রাসী হামলায় নরওয়েতে ৭৭ জনকে হত্যা করে অ্যান্ডার্স ব্রেইভিক। এছাড়া, ওই ডকুমেন্টে সে ফিন্সবারি পার্কে হামলা চালানো সন্ত্রাসী ড্যারেন অসবর্ণের কথাও উল্লেখ করেছে। ডকুমেন্টের বিষয়ে বৃটেনের সন্ত্রাসবিরোধী গ্রুপ হোপ নট হেইট-এর নিক লোওলেস বলেছেন, ক্রাইস্টচার্চের ওই হামলা চালিয়েছে উগ্র ডানপন্থি সন্ত্রাসী, সে একটি ম্যানিফেস্টোতে হামলা চালানোর কারণ ব্যাখ্যা করেছে। এতে টেরেন্ট দাবি করেছে, সুইডেনে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত বালিকা এবা অকারল্যান্ডসহ অন্যদের হত্যার প্রতিবাদে সে হামলা চালিয়েছে।
‘দ্য গ্রেট রিপ্লেসমেন্টে’ ব্রেনটন লিখেছে, আমি সাধারণ একজন শ্বেতাঙ্গ। একটি সাধারণ পরিবারের সন্তান আমি। শিক্ষার প্রতি আমার আগ্রহ নেই বললেই চলে। কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যাইনি আমি। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যা পড়ায় তার প্রতি আমার কোনোই আগ্রহ নেই।

ওদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের কঠোর সমর্থনকারী ক্যান্ডাসে ওয়েনস। ব্রেনটন দাবি করেছে, সে এই ওয়েনসের আদর্শেও উদ্বুদ্ধ হয়েছে। ব্রেনটনের ভাষায়- যে ব্যক্তি আমাকে সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত করেছেন তিনি হলেন ক্যান্ডাসে ওয়েনস। তিনি যখনই কথা বলেন তখনই তার অন্তর্দৃষ্টি দেখে প্রতিবার বিস্মিত হই।

Comments

comments

Posted ৮:৫৩ অপরাহ্ণ | রবিবার, ১৭ মার্চ ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com