• শিরোনাম

    প্রেমিকার রাজকীয় মর্যাদা ফিরিয়ে দিলেন থাই রাজা

    দেশবিদেশ অনলাইন ডেস্ক | ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১০:১১ অপরাহ্ণ

    প্রেমিকার রাজকীয় মর্যাদা ফিরিয়ে দিলেন থাই রাজা

    নিজেকে রানির সমতুল্য দাবি করায় গত বছরের অক্টোবরে প্রেমিকা সিনিনাত ওয়ংভাজিরাপাকদির রাজকীয় সম্মাননা কেড়ে নিয়েছিলেন থাইল্যান্ডের রাজা ভাজিরালংকর্ন। এক বছরের মাথায় আবারও সেই মর্যাদা ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি। বুধবার থাই রাজ দরবারের এক ফরমানে সিনিনাতের ‘রয়্যাল কনসোর্ট’ মর্যাদা ফিরিয়ে দেয়ার কথা জানানো হয়েছে।

    থাইল্যান্ডে রাজার সঙ্গী বা প্রেমিকাকে ‘রয়াল কনসোর্ট’-এর মর্যাদা দেয়া হয়। তবে সেটি কোনওভাবেই রাজার স্ত্রী বা রানির স্বীকৃতি নয়। দেশটির গত এক শতাব্দীর ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ২০১৯ সালের জুলাইয়ে এই মর্যাদা পেয়েছিলেন সিনিনাত। তবে এর কয়েক মাসের মাথায় তা কেড়ে নেয়া হয়।
    তখন থাই রাজপ্রাসাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, অনেক বেশি উচ্চাকাঙ্ক্ষী এবং নিজেকে রানির সমতুল্য বলে তুলনা করছেন সিনিনাত। সেই সঙ্গে ক্ষমতার অপব্যবহার করে রাজার পক্ষ থেকে হুকুম দিতেও শুরু করেছেন তিনি।

    জানা যায়, ১৯৮৫ সালে জন্ম নেওয়া সিনিনাত ওয়ংভাজিরাপাকদি থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় এলাকার বাসিন্দা। তৎকালীন যুবরাজ ভাজিরালংকর্নের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর আগে নার্স ছিলেন তিনি। পরে রাজার দেহরক্ষী হিসেবে কাজ করেন। পাইলট ও প্যারাসুট ব্যবহারে দক্ষতা অর্জনের পর যোগ দেন রাজকীয় রক্ষীবাহিনীতে। ২০১৯ সালের শুরুতে তাকে মেজর জেনারেল হিসেবে নিয়োগ করা হয়। এরপর ‘রয়াল কনসোর্ট’ঘোষণা করায় মর্যাদা আরও বেড়ে যায় সিনিনাতের।

    সবশেষ ১৯২০ সালে একজন থাই রাজা আনুষ্ঠানিকভাবে ‘রয়াল কনসোর্ট’ গ্রহণ করেছিলেন। ১৯৩২ সালে দেশটি সাংবিধানিক রাজতন্ত্রে পরিণত হওয়ার পর থেকে কোনও রাজা আর এমন সঙ্গী গ্রহণ করেননি।

    সূত্র: বিবিসি

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ