• শিরোনাম

    চকরিয়ায় কৃষককে ধরে নিয়ে নির্যাতন, চাঁদা দাবি

    ভুয়া পুলিশ অফিসার গ্রেপ্তার, খেলনা পিস্তল ও ভুয়া পরিচয় পত্র জব্দ

    নিজস্ব প্রতিবেদক/প্রতিনিধি, চকরিয়া | ১০ মার্চ ২০২০ | ১১:২৬ অপরাহ্ণ

    ভুয়া পুলিশ অফিসার গ্রেপ্তার, খেলনা পিস্তল ও ভুয়া পরিচয় পত্র জব্দ

    চকরিয়ায় পুলিশ পরিচয় দিয়ে মানুষের কাছ থেকে চাঁদাবাজিসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড সম্পৃক্ত থাকার দায়ে এক ভুয়া পুলিশ অফিসার ও তার সহযোগী সিএনজি অটোরিক্সা চালককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় কথিত পুলিশ সদস্যের কাছ থেকে একটি খেলনা পিস্তল ও বাংলাদেশ পুলিশের মনোগ্রামযুক্ত একটি পরিচয়পত্রও জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় রিয়াজ উদ্দিন নামের এক ভুক্তভোগী কৃষক বাদী হয়ে গ্রেপ্তারকৃত দুইজনের নাম উল্লেখসহ চারজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা রুজু করেছে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে। এর আগে নিজ নিজ বাড়ি থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বাদী রিয়াজ উদ্দিন উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডের ছৈনাম্মারঘোনার মৃত বাদশা মিয়ার পুত্র।
    গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন চকরিয়া পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কোচপাড়ার মৃত ছিদ্দিক আহমদের ছেলে ভুয়া পুলিশ অফিসার পরিচয়দানকারী রুহুল আমিন প্রকাশ কাদের (৪৫) ও ভাঙারমুখ এলাকার মৃত গোলাম কাদেরের ছেলে সিএনজি অটোরিক্সা চালক সাবের হোসেন প্রকাশ টুকু ড্রাইভার (৫০)।
    মামলার এজাহারে বাদী কৃষক রিয়াজ উদ্দিন উল্লেখ করেন, গত ২৮ ফেব্রুয়ারী বাড়ি থেকে চিরিঙ্গা পৌরশহরে সওদা করতে আসেন তিনি। এসেই তিনি অবস্থান নেন শহরের কাসপা হোটেলের নিচে একটি হার্ডওয়্যারের দোকানের সামনে। এই অবস্থায় অজ্ঞাত পরিচয়ের চারজন ব্যক্তি গিয়ে নিজেদের পুলিশ অফিসার পরিচয় দেয় এবং তার (কৃষক) কাছে অবৈধ মালামাল রয়েছে, এখনই থানায় যেতে হবে বলে শাসিয়ে সিএনজি অটোরিক্সায় তুলে অজ্ঞাত একটি কক্ষে নিয়ে যায়। এ সময় পকেটে থাকা ১৫০০ টাকা নিয়ে ফেলে। পরে গুলি করে হত্যার হুমকি দিয়ে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে নগদ ৩০ হাজার টাকা দাবি করে তারা। না হয় অস্ত্র দিয়ে মামলা রুজু করে জেলহাজতে প্রেরণেরও হুমকি দেওয়া হয়। এই অবস্থায় প্রতারক চক্রের সদস্য কাদের বাড়িতে থাকা কৃষকের ছোট ভাই ওয়াজ উদ্দিনকে ফোন করেন অস্ত্রসহ রিয়াজ উদ্দিন পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন। তাকে ছাড়িয়ে নিতে হলে নগদ ৩০ হাজার টাকা পাঠানোর নির্দেশ দিয়ে একটি বিকাশ নাম্বার দেন। তখন ভাই ওয়াজ উদ্দিন টাকা নিয়ে চিরিঙ্গা আসার জন্য বললে সরাসরি আসতে হবে না জানিয়ে বিকাশে দ্রæত টাকা পাঠাতে নির্দেশ দেন।

    এজাহারে আরো উল্লেখ করা হয়, টাকা পাঠাতে দেরী হওয়ায় চিরিঙ্গায় আটকে রাখা কক্ষ থেকে ফের সিএনজি অটোরিক্সায় তুলে নিয়ে যাওয়া হয় ভেনিবাজারের একটি টমটম গ্যারেজে। টাকা না পেয়ে সেখানে বেধড়ক পিটুনি দিয়ে গুরুতর জখম করা হয় কৃষককে। পরে সন্ধ্যার দিকে তাদের অগোচরে কৃষক রিয়াজ কৌশলে পালিয়ে প্রাণে রক্ষা পান এবং উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেন। পরে বিষয়টি থানার ওসিকে অবহিত করেন এবং পুলিশ পরিচয়ে ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করেন।

    এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান বলেন, ‘পুলিশ পরিচয়ে একটি প্রতারক চক্র চাঁদাবাজিসহ মানুষকে নানাভাবে হয়রানির অভিযোগ পাওয়ার পর গোপনে চক্রটির সন্ধানে সোর্স নিয়োগ করা হয়। অবশেষে সেই চক্রের প্রধানসহ দুইজন সদস্যকে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় বাংলাদেশ পুলিশের মনোগ্রামযুক্ত পরিচয় পত্র এবং একটি খেলনা পিস্তল। এ ঘটনায় রিয়াজ উদ্দিন নামের ভুক্তভোগী এক কৃষক বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা রুজু করেছেন। মামলায় দুইজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
    দেশবিদেশ/নেছার

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ