• শিরোনাম

    বহিস্কারের পর স্কুলে ক্লাস নেওয়ায় ক্ষোভ

    মহেশখালীতে যৌন হয়রাণীর অভিযোগে শিক্ষক বহিস্কার

    নিজস্ব প্রতিবেদক, মহেশখালী | ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১১:৩৩ অপরাহ্ণ

    মহেশখালীতে যৌন হয়রাণীর অভিযোগে শিক্ষক বহিস্কার

    মহেশখালীতে ছাত্রীদের যৌন হয়রাণীর অভিযোগে মোঃ জয়নাল আবেদীন নামে এক স্কুল শিক্ষককে বহিস্কার করেছে স্কুল কতৃপক্ষ। বহিস্কৃত জয়নাল হোয়ানক আবদুল মাবুদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিষয়ের শিক্ষক। ওই স্কুলের দুই ছাত্রীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে গত ৪ জানুয়ারী তাকে বহিস্কার করা হলেও ঐ শিক্ষক স্কুলে গিয়ে শ্রেণী কক্ষে পাঠদানের চেষ্টা করলে ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে।
    খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উক্ত শিক্ষক জয়নাল আবেদীন প্রতিষ্ঠাকাল থেকে সমাজ বিজ্ঞান শিক্ষক হিসেবে ওই বিদ্যালয়ে কর্মরত ছিল। তখন থেকে ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রাণীর নানান অভিযোগ উঠেছিল। কিন্তু বিষয়টি এলাকায় প্রকাশ পেলে স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের চাপে কোন শিক্ষার্থী লিখিত অভিযোগ করতে সাহস করেনি। কিন্তু সম্প্রতি স্কুলের দুই ছাত্রী স্কুল পরিচালনা কমিটি বরাবর অভিযুক্ত শিক্ষক জয়নালের বিরুদ্ধে স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়া, অশ্লীল আচরণ ও যৌন হয়রাণীর অভিযোগ এনে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগের ভিত্তিতে কারণ দর্শানোর জন্য অভিযুক্ত জয়নাল আবেদীনকে পরপর তিনবার নোটিশ প্রদান করা হলেও সে কোন প্রকার জবাব না দেওয়ায় গত ৪ জানুয়ারী বিষয়টি চুড়ান্ত নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত স্কুল পরিচালনা কমিটি জয়নাল আবেদীনকে সাময়িক বহিস্কার করে। এসময় ঐ শিক্ষককে শ্রেণী ও অফিসিয়ালী কার্যক্রম থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকতে নির্দেশ দেয়া হয় বলে স্কুল সূত্রে জানা যায়। উক্ত নির্দেশ অমান্য করে শিক্ষক জয়নাল আবেদীন শ্রেণী কার্যক্রমে অংশ নেওয়ার চেষ্টা করলে ছাত্র- ছাত্রী ও অভিভাবকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে। এমনকি গত ১৩ ফেব্রুয়ারীও উক্ত শিক্ষক জয়নাল আবেদীন ষষ্ঠ শ্রেণীতে পাঠধান করেছে।

    এই ব্যাপারে জয়নাল আবেদীন জানান, স্কুলে শিক্ষক স্বল্পতার কারণে অন্যান্য শিক্ষকরা তাকে শ্রেণী কার্যক্রম চালাতে অনুরোধ করেন। তবে তাকে যৌন হয়রাণীর অভিযোগে বহিস্কার করার কথা স্বীকার করলেও সে চক্রান্তের শিকার বলে দাবী করেন।
    এদিকে স্কুলের একাধিক শিক্ষার্থী বলেন অভিযুক্ত শিক্ষক জয়নাল কর্তৃক যৌন হয়রাণীর বিষয়ে তারা শুনেছেন। বহিস্কার করার পরও শ্রেণী কার্যক্রম পরিচালনা করায় শিক্ষক জয়নালের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করে শিক্ষার্থীরা।
    স্থানীয়রা জানানর, অভিযুক্ত শিক্ষক জয়নাল আবেদীনের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রাণীর অনেক অভিযোগ রয়েছে। প্রাইভেট পড়ানোর সুযোগে ছাত্রীদের যৌন হয়রাণী করতেন ।
    এই ব্যাপারে স্কুলের প্রধান শিক্ষক দুলাল ভট্টাচার্য বলেন, দুই ছাত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে পরপর তিন বার নোটিশ প্রদানের পরও জবাব না দেয়ায় স্কুলের শিক্ষক জয়নাল আবেদীনকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়। তাকে শ্রেণী কার্যক্রমসহ স্কুলের কর্মকান্ড থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়। সে তার অনুপস্থতিতে ক্লাস নেওয়ার চেষ্টা করেছে। এখন স্কুলেরে কার্যক্রম থেকে বিরত হয়েছে। এছাড়াও তদন্ত শেষে তার বিরুদ্ধে আরো কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

    স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ গিয়াস উদ্দীন জানান, ছাত্রীদের অভিযোগের ভিত্তিতে স্কুল পরিচালনা কমিটির সভায় সর্ব সম্মতিতে আপীল ও সালিশী কমিটি কর্তৃক পূর্ণ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত অভিযুক্ত শিক্ষক জয়নাল আবেদীনকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়। এর পরেও ঐ শিক্ষক শ্রেণী কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছে বলে জানতে পারি। এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন তিনি।
    উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জামিরুল ইসলাম জানান, স্কুলে শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রী যৌন হয়রাণীর শিকার হওয়ার বিষয়টি অত্যান্ত ঘৃণীত কাজ। ছাত্রীদের দেয়া অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত কার্যক্রম চলছে। ঐ শিক্ষক শ্রেণী কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞার পরেও অংশগ্রহণ করলে তার বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক দ্রæত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ