বুধবার ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

মহেশখালীর ঐতিহাসিক আদিনাথ মন্দিরে চলমান উন্নয়নমূলক কাজে ধর্মপ্রাণ ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহ্বান

বার্তা পরিবেশক   |   শনিবার, ০৬ জুলাই ২০১৯

মহেশখালীর ঐতিহাসিক আদিনাথ মন্দিরে চলমান উন্নয়নমূলক কাজে ধর্মপ্রাণ ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহ্বান

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের তীর্থস্থান মহেশখালীর ঐতিহাসিক শ্রী শ্রী আদিনাথ মন্দিরের বর্তমানে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ চলছে। সেই উন্নয়নমূলক কাজে ধর্মপ্রাণ ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সীতাকুন্ড স্রাইন কমিটির সহ সভাপতি অধ্যাপক দিপক কান্তি ভট্টাচার্য্য ও চট্টগ্রাম সীতাকুন্ড স্রাইন কমিটির যুগ্ম সম্পাদক মাষ্টার ব্রজ গোপাল ঘোষ। সূত্রে জানা যায় , ইতোমধ্যে কক্সবাজারের মহেশখালী স্রাইন কমিটি (মন্দির পরিচালনা কমিটি) গঠিত হওয়ার পর মহেশখালীর আদিনাথ মন্দিরের যথেষ্ট উন্নয়ন হয়েছে এবং বর্তমানেও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে। এ ব্যাপারে অধ্যাপক দিপক কান্তি ভট্টাচার্য্য ও মাষ্টার ব্রজ গোপাল ঘোষ বলেন, মহেশখালীর আদিনাথ মন্দিরের উন্নয়নে বিভিন্ন দানশীল ব্যক্তিরাই এগিয়ে এসেছেন। বিশেষ করে দানশীল ব্যক্তি যথাক্রমে সর্ব শ্রী কাজল পাল কক্সবাজার, অজিত পাল মহেশখালী, রতন ভট্টাচার্য চট্টগ্রাম, এসপি শ্যামল কুমার নাথ, এএসপি বাবুল বণিক, এএসপি রতন দাশ গুপ্ত, ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, ইঞ্জিনিয়ার নিপেন্দ্র নাথ ঢাকা, উজ্জ্বল সেন কক্সবাজার, মিলন ধর পাথরঘাটা, বনমালি পাথরঘাটা, অধীর দে মহেশখালী, এসআই সনজিত, হারাধন চকরিয়া। এছাড়াও অারো অনেক দানশীল ব্যক্তিবর্গ মন্দিরের উন্নয়নে এগিয়ে এসেছেন। তাদের সবাইকে স্রাইন কমিটির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়। অধ্যাপক দিপক কান্তি ভট্টাচার্য্য ও মাষ্টার ব্রজ গোপাল ঘোষ আরো বলেন, ওসি প্রদীপ কুমার দাশ মহেশখালীর আদিনাথ মন্দিরের আধুনিক মানের সিঁড়ি নির্মাণের মধ্যে দিয়ে যে প্রদীপ জ্বালিয়ে গেছেন তা আজীবন জ্বলবে। তাছাড়াও এ মন্দিরের উন্নয়নে স্রাইন কমিটি মহেশখালী তহবিল হতে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা খরচ করা হয়েছে। এত টাকা খরচ করার পরও প্রায় ১৬ লক্ষ টাকা তহবিলে জমা আছে এবং ১৫ কোটি টাকার একটি উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে বলে তারা জানান। তারা আরো বলেন, মন্দির উন্নয়নে বাধাগ্রস্থ করার জন্য একটি মহল ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের ঘুম নষ্ট হয়ে গেছে। তারা উঠে পড়ে লেগেছে। ঐ সব ষড়যন্ত্রকারীদের মন্দিরের টাকার প্রতি লোভ পড়েছে। বর্তমানে মন্দিরের উন্নয়ন দেখে তারা ঈর্শ্বান্বিত হয়ে আজে বাজে কথা ছড়াচ্ছে। এতে ধর্মপ্রাণ ব্যক্তিদের বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য বলা হচ্ছে। মহেশখালী আদিনাথ মন্দিরের উন্নয়নমূলক কাজে ধর্মপ্রাণ ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে তারা বলেন, মহেশখালী আদিনাথ মন্দির এটি একটি ঐতিহাসিক মন্দির। এ মন্দিরের কোন প্রকার ত্রুটি দেখলে মন্দির কর্তৃপক্ষকে অবহিত করুন। যদি কোন প্রকার দূর্নীতি বা অপরাধ ধরা পড়ে তাহলে অবশ্যই তার শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন অধ্যাপক দিপক কান্তি ভট্টাচার্য্য ও মাষ্টার ব্রজ গোপাল ঘোষ।

Comments

comments

Posted ১০:২৩ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০৬ জুলাই ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com