• শিরোনাম

    মহেশখালী চ্যানেলে তান্ডব চালানো ড্রেজারটি আবারো আটক

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ০৭ অক্টোবর ২০১৯ | ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

    মহেশখালী চ্যানেলে তান্ডব চালানো ড্রেজারটি আবারো আটক

    ফাইল ছবি

    কক্সবাজারের মহেশখালী চ্যানেলের দুই তীর জুড়ে তান্ডব চালানো সেই ড্রেজারটি গতকাল রবিবার আবারো আটক করা হয়েছে। এই ড্রেজারটি নিয়ে চকরিয়ার একটি সংঘবদ্ধ বালু কারবারি মাসের পর মাস ধরে পরিবেশ বিধ্বংসী কাজ করে আসছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সংঘবদ্ধ বালু কারবারির দলটিতে রয়েছে আরো কয়েকটি ড্রেজার।
    এসব ড্রেজার নিয়ে মহেশখালী চ্যানেলের দুই তীর জুড়ে কারবারিরা দীর্ঘদিন ধরে বালু উত্তোলন, মাটি কাটা, জলাধার ভরাট সহ বালু সংগ্রহ করে আসছিল। ড্রেজার দিয়ে সংগৃহীত বালু চকরিয়ার বদরখালীতে স্তুপ করা হচ্ছে। সেই স্তুপ থেকেই করা হচ্ছে কোটি কোটি টাকার বালুর কারবার।
    এর আগে ২০১৮ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে একই বছরের ৫ নভেম্বর পর্যন্ত একটানা ৪৬ দিন ব্যাপি অনুমােদনহীন ভাবে ড্রেজারটি নিয়ে ১.৪৮ একর বা ৬৪,৫২৮ বর্গফুট জলাধার অবৈধভাবে বালু উত্তোলন পুর্বক ভরাট করা হয়েছিল। এতে আনুমানিক ৩৮ লাখ ৭১ হাজার ৬৮০ টাকা মূল্যের ক্ষতি সাধন করা হয়। অনুমোদনহীনভাবে জলাধার ভরাটের মাধ্যমে ওই এলাকার জীব-বৈচিত্র, প্রাকৃতিক পরিবেশ, মাটির ভু-প্রকৃতির পরিবর্তন, ভুমির উর্বরতা নষ্ট সহ নানাবিধ ক্ষতি করা হয়।

    কক্সবাজার জেলা পরিবেশ কার্যালয় ও চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে চকরিয়ার বদরখালীর হাজী নুরুল আলম সিকদার ও আবুল কাশেম সিকদার ভুট্টোকে বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৫ এর ধারা-৭ এর পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতিসাধনের জন্য দন্ডিত করা হয়।
    চলতি বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিবেশ কার্যালয়ের পরিচালক মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসাইন এ অর্থ দন্ডাদেশ দেন। দন্ডিত ব্যক্তিদের ভুল স্বীকার করা এবং ভরাট করা মাটি অপসারণ করার শর্তে ড্রেজারের উপরোক্ত মালিকদের ৬ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য করা হয়। অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও ভরাটের বিষয়টি মাতারবাড়ি বিদ্যুৎ প্রকল্পের পিডিকেও অবহিত করা হয়।

    গতকাল রবিবার মহেশখালীর গোরকঘাটা উপকূলীয় বন রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা হাবিবুল হক জানিয়েছেন, মহেশখালী চ্যানেলের জেএম ঘাট এলাকায় সরকারি বনাঞ্চলীয় এলাকা থেকে মাটি কাটা এবং বালু উত্তোলনের সময় সেই ড্রেজারটিই আবার আটক করা হয়। তিনি জানান, সেই দন্ডিত লোকজনের মালিকানাধীন ড্রেজারটি নিয়ে সরকারি বনভুমির মাটি কেটে বনভুমির বাগানের মাটি নিঃশেষ করা হচ্ছিল। এ ব্যাপারে ড্রেজারের মালিকের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি। ###

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ