• শিরোনাম

    কক্সবাজার জেলাব্যাপী জাতীয় শোক দিবস পালিত

    মৃত্যুঞ্জয়ী বঙ্গবন্ধু বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে আছে

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৬ আগস্ট ২০১৯ | ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

    মৃত্যুঞ্জয়ী বঙ্গবন্ধু বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে আছে

    স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যদা ও ভাব গাম্ভীর্য্যরে মধ্য দিয়ে কক্সবাজার জেলাব্যাপী পালিত হয়েছে।
    জেলা শহর কক্সবাজারে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত শোক দিবসের তাৎপর্য বিশ্লেষন করে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিয়াম ফাউন্ডেশনে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তারা বলেন, বিশে^র কয়েকজন নেতা আজ বিশ^বাসীর মধ্যে স্মরনীয় হয়ে রয়েছেন। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধু একজন। যাকে নিয়ে বিশে^র বিভিন্ন দেশে গবেষনাও হচ্ছে। তিনি শুধু একটি রাষ্ট্রের জন্ম দেননি , তিনি বহু বৈচিত্র্যময় প্রতিভার অধিকারি একজন মহান পুরুষ। এই রকম ক্ষণজন্মা পুরুষ বাংলায় একজনই জন্মেছে। যার সাক্ষ্য দেয় নবান সিরাজুল্লাহ থেকে শুরু করে কোন নেতা স্বাধীনতা দিতে পারেননি। একমাত্র সম্ভব হয়েছে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বের কারনে। এছাড়া নানা কারনে তিনি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী। শুধু তিনি সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী তাই নয়, তিনি হচ্ছেন বিশ^নেতাদের একজন। বঙ্গবন্ধুর ভাষন বিশে^র সেরা ভাষন হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘ। বক্তারা আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা সম্ভব হয়নি। তার দেহকে গুলি করা হয়েছে । কিন্তু তার আদর্শ সবার মাঝে বেঁচে রয়েছে বলে আজ বাঙ্গালীর ঘরে ঘরে তার কীর্তির ইতিহাস ছড়িয়ে পড়েছে। তার আদর্শে বাংলাদেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে উন্নয়ন শিখরে।
    জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, পুলিশ সুপার (ট্যুরিষ্ট) জিল্লুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো: শাজাহান আলী সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল। এর আগে সকাল ৯ টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় প্রাঙ্গনে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, মুক্তিযোদ্ধা, জেলা আওয়ামী লীগ, কউক, সিভিল সার্জন, জেলা সদর হাসপাতাল, আনসার বাহিনী, কক্সবাজার প্রেসক্লাব, জেলা আইনজীবী সমিতি, পৌর আওয়ামী লীগ, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট, জেলা শিল্পকলা একাডেমি, নার্সিং ইনস্টিটিউট, ৩য় শ্রেণি সরকারি কর্মচারিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা। এরপর জেলা প্রশাসন, জেলার সরকারি দপ্তর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক, সামাজিক সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের অংশগ্রহনে শোক র‌্যালী হয়। জেলাব্যাপী মিলাদ মাহফিল, আলোচনা সভা, র‌্যালী, মোনাজাত, প্রতিযোগিতা, পুরষ্কার বিতরণসহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে।
    জেলা আইনজীবী সমিতি
    কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করছে। এ উপলক্ষে সমিতির পক্ষ থেকে বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়।
    দিবসের কর্মসূচীর মধ্যে ছিল সূর্যোদয়ের সাথে সাথে আইনজীবী সমিতি ভবনে অর্ধনমিতভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও কালো পতাকা উত্তোলন, সকাল ৯ টায় জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বিকেল ৩ টায় সমিতির মিলনায়তনে কোরআন খানি ও দোয়া মাহফিল ও ৫ টায় আলোচনা সভা ও শেষে বিশেষ মোনাজাত।
    এদিকে সকাল ৯ টায় সমিতির সভাপতি এডভোকেট আ.জ.ম. মঈন উদ্দীন ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট ইকবালুর রশিদ আমিন এর নেতৃত্বে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মুখে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
    এসময় উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট সুলতানুল আলম, এডভোকেট ফরিদুল আলম, এডভোকেট এ.কে. ফজলুল হক চৌধুরী, এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমদ, এডভোকেট প্রতিভা দাশ, এডভোকেট মোহাম্মদ ইব্রাহিম, এডভোকেট সাইফুদ্দিন খালেদ, এডভোকেট এ.বি.এম মহিউদ্দীন, এডভোকেট আরিফুল মোস্তফা প্রমুখ।
    এদিকে বিকেল ৩ টায় সমিতির মিলনায়তনে পবিত্র কোরআন খানি। পরবর্তীতে আলোচনা সভা শুরু হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি এডভোকেট আ.জ.ম মঈন উদ্দীন। সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট ইকবালুর রশিদ আমিন।
    উক্ত শোকসভায় বক্তব্য প্রদান করেন যথাক্রমে এডভোকেট সেলিম উদ্দিন, এডভোকেট মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ, এডভোকেট এ.কে ফজলুল হক চৌধুরী, এডভোকেট আবদুল শুক্কুর, এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমদ, এডভোকেট ফরিদুল আলম, এডভোকেট আব্বাছ উদ্দিন চৌধুরী, এডভোকেট মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম, এডভোকেট মমতাজ আহমদ প্রমুখ।
    আলোচনা সভা শেষে ১৯৭৫ এর ১৫ই আগস্ট নিহত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের অপরাপর সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত ও দেশের সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন মৌলানা নুরুল হক।
    কক্সবাজার সরকারি কলেজ
    স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস- ২০১৯ যথাযোগ্য মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে কক্সবাজার সরকারি কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও অর্ধনমিতকরণ এবং কালো পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিনের কর্মসূচির সূচনা হয়। সকাল ৯ টায় কাল ব্যাজ ধারণের পর বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য প্রদান এবং সকাল ১০ টায় বিশাল শোক র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। উল্লেখ্য যে, ইতোপূর্বে জেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত শোক র‌্যালীতে অধ্যক্ষ মহোদয়ের নেতৃত্বে শিক্ষক কর্মকর্তাসহ শতাধিক শিক্ষার্থী শোক র‌্যালীতে অংশগ্রহণ করেন।
    কলেজ মিলনায়তনে সকাল সাড়ে ১০ টায় উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনের সঞ্চালনায় এবং জাতীয় শোক দিবস- ২০১৯ পালন কমিটির আহবায়ক রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোঃ অহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হিসাববিজ্ঞান ৩য় বর্ষের ছাত্র আবু তাহের, গীতা থেকে পাঠ করেন গণিত ৩য় বর্ষের ছাত্র শান্তু দাশ, ত্রিপিটক থেকে পাঠ করেন একাদশ বিজ্ঞান শ্রেণির ছাত্রী মেঘলা বড়–য়া।
    অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলেজের অধ্যক্ষ বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর এ.কে.এম ফজলুল করিম চৌধুরী। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে তরুণ প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ গড়ার কাজে সবাইকে আত্মনিয়োগ করার এবং বঙ্গবন্ধুর লালিত স্বপ্ন ‘সোনার বাংলা’ বিনির্মাণে কার্যকর ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।
    এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর পার্থ সারথি সোম এবং শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক ও পদার্থবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মফিদুল আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন হিসাববিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শেখ দিদারুর আলম। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, হিসাববিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ নুরুল আলম, ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর হোসাইন আহমেদ আরিফ ইলাহী, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দীন, ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক মিঠুন চক্রবর্তী, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রভাষক মোহাম্মদ হাসানুল ফরহাদ প্রমুখ। ছাত্র-ছাত্রীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি জাকের হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন, অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্র আবরার শাকিব ও মোহাম্মদ শাকিব।
    ১৫ আগস্ট ১৯৭৫ এ শাহাদত বরণকারী বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারবর্গের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া পরিচালনা করেন কলেজ জামে মসজিদের খতীব মাওলানা সুলতান আহমদ।
    অনুষ্ঠান শেষে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। উল্লেখ্য যে, জেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত বিতর্ক প্রতিযোগিতায় কক্সবাজার সরকারি কলেজ বিতার্কিক দল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করায় উক্ত দলকেও পুরস্কৃত করা হয়।
    চকরিয়ায় মুকুল কান্তি দাশ, চকরিয়া থেকে জানান-
    কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪-তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনাসভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্টিত হয়েছে।
    বৃহস্পতিবার সকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী, রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন স্তরের সাধারণ মানুষ। পরে উপজেলা পরিষদ মোহনা মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়।
    চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন-চকরিয়া-পেকুয়া আসেনর সংসদ সদস্য আলহাজ্ব জাফর আলম।
    এতে আরো উপস্থিত ছিলেন-চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, চকরিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার কাজী মতিউল ইসলাম, চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম শফিকুল ইসলাম চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আমিনুর রশিদ দুলাল, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান মকছুদুল হক চুট্টু, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান জেসমিন হক জেসি প্রমুখ।
    আলোচনা সভা শেষে উপজেলা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্টানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
    পেকুয়া থেকে জানান-
    পেকুয়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান উপকুলীয় কলেজে বঙ্গবন্ধুর ৪৪ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। ১৫ আগস্ট (বৃহস্পতিবার) জাতীয় শোক দিবস উদযাপন উপলক্ষে এক শোক সমাবেশ অনুষ্টিত হয়। সকাল ৯ টার দিকে শোক র‌্যালী সড়ক প্রদক্ষিন করে। শোক র‌্যালীতে নেতৃত্ব দেন পেকুয়া-চকরিয়ার জাতীয় সংসদ সদস্য জাফর আলম। কলেজের শিক্ষক ও বিপুল শিক্ষার্থী র‌্যালীতে অংশ নেয়। এ ছাড়া পেকুয়ায় ক্ষমতাসীন দলের বিপুল নেতা-কর্মী ও কর্মী সমর্থকরাও কলেজ আয়োজিত শোক র‌্যালীতে মিলিত হয়েছেন। ওই দিন সকাল ১১ টার দিকে শহীদ জিয়াউর রহমান উপকুলীয় কলেজ প্রাঙ্গনে এক বিশাল শোক সমাবেশ অনুষ্টিত হয়। এ সময় প্রধান অতিথি ছিলেন সাংসদ জাফর আলম। কলেজের অধ্যক্ষ ওবাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে ও একই কলেজের প্রভাষক মোস্তফা জামান খারেছের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) উম্মে কুলসুম মিনু, জেলা আ’লীগ সদস্য এস,এম গিয়াস উদ্দিন, সহকারী পুলিশ সুপার সার্কেল মতিউল ইসলাম, পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহাবুব উল করিম, আলোচক ছিলেন উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক আবুল কাসেম, পেকুয়া থানার ওসি জাকির হোসাইন ভূইয়া, গভর্ণিং বডির সাবেক সভাপতি লায়ন মুজিবুর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক ওয়াহিদুর রহমান ওয়ারেচী, আ’লীগ নেতা আবুল শামা শামীম, এম আজম খান, তোফাজ্জল করিম, সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, শাহজামাল এমইউপি, বেলাল উদ্দিন বিএসসি, বেলাল উদ্দিন, আবুল কাসেম আজাদ, আবুল হোসাইন শামা, কামাল হোসেন, বশিরুল আলম মেস্ত্রী, সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম হিরু, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ওসমান গণি, শ্রমিকলীগ সভাপতি নুরুল আবছার, সম্পাদক নেজাম উদ্দিন, সম্পাদক এস,এম শাহাদাত হোসাইন, সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির বিএ, আ’লীগ নেতা হেলাল উদ্দিন বিএ, সাবেক ছাত্র নেতা আমির আশরাফ রুবেল, মহিলা আ’লীগ নেত্রী মর্জিনা বেগম, ছেনুয়ারা বেগম, জন্নাতুল তাহমিনা শিমু, যুবলীগ নেতা সাংবাদিক নাজিম উদ্দিন, সাংবাদিক মুহাম্মদ হাসেম, ছাত্রলীগ সভাপতি কফিল উদ্দিন বাহাদুর, সাবেক ছাত্রনেতা নাছির উদ্দিন বাদশা, বেলাল উদ্দিন মিয়াজী, কলেজ শিক্ষক আজম খান, জাকির হোসেন হাওলাদার, আবুল হাসেম, পেকুয়া সদরের প্যানেল চেয়ারম্যান মাহাবুব উল করিম, ইউপি সদস্য ইসমাইল সিকদার, ওয়ার্ড আ’লীগ নেতা নাছির উদ্দিন, আবুল কালাম, মো: কাইয়ুম, আরমান চৌধুরী, দিদারুল ইসলাম, মামুনুর রশিদ নুরী, নুরুল আজিম, রুহুল আমিন, মোহাম্মদ কালু মাঝি, নেজাম উদ্দিন, আলী আহমদ, নাছির উদ্দিন মাঝি, ওসমান, শহিদুল ইসলাম, কাইছার, কাইছার ভূট্টো, আবদুল কাদের, মোহাম্মদ সোহেল প্রমুখ। ৪৪ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে পেকুয়ায় বৃহৎ পরিসরে কাঙ্গালী ভোজ অনুষ্টিত হয়েছে। উপজেলা আ’লীগের উদ্যোগে ওই দিন প্রায় ১০ হাজার মানুষ কাঙ্গালী ভোজে অংশ নেয়। উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে ওই কাঙ্গালী ভোজ হয়েছে। দু’টি কলেজে প্রায় তেরশত শিক্ষার্থীকে খাবার বিলি করা হয়। অনাথ, দরিদ্র ও বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষের মাঝে কাঙ্গালী ভোজের রান্না করা খাবার বিলি করে।
    টেকনাফ অফিস জানান-
    কক্সবাজারের টেকনাফে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে টেকনাফ উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে শোক র‌্যালী, জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে মালদান, আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের উদ্যোগে জাতীয় পতাকা উওোলন-অধনমিত, কালো পতাকা উত্তোলন ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। সকাল নয়টায় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান, শহীদ মিনার চত্বর হতে এক শোক র?্যালী বের হয়ে উপজেলার প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। উপজেলা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী র্কমর্কতা মো. রবিউল হাসান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারী কমিশিনার (ভুমি) আবুল মনসুর, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার দাশ, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব নুরুল বশর, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মৌলভী ফেরদৌস আহমদ জমিরি, তাহেরা আক্তার প্রমুখ। একাডেমিক সুপারভাইজার নুরুল আবসারেরে সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন আওয়ামীলীগ নেতা জহির হোসেন ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শ্রুতিপুর্ণ চাকমা। পরে ইসলামী ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দোয়া মাহফিলের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়। এদিকে উপজেলা-পৌর আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় পৃথকভাবে দিবসটি পালন করা হয়েছে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ