• শিরোনাম

    কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচন

    মেয়র নির্বাচনে মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে ১৬ হাজার নতুন ভোটার

    মুকুল কান্তি দাশ | ২৫ জুলাই ২০১৮ | ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

    মেয়র নির্বাচনে মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে ১৬ হাজার নতুন ভোটার

    দেশের পর্যটন রাজধানী খ্যাত জেলা কক্সবাজার। এই জেলার সাগর ঘেষা কক্সবাজার পৌরসভা। এই পৌরসভা প্রাচীনতম পৌরসভাগুলোর মধ্যে একটি। মামলা জটিলতার কারণে পাঁচ বছরের স্থলে সাত বছর পর আজ বুধবার অনুষ্টিত হতে যাচ্ছে বহুল প্রতিক্ষিত পৌরসভা নির্বাচন। এই নির্বাচনকে ঘিরে নানা উদ্বেগ-উৎকন্ঠা দেখা দিলেও সেই উদ্বেগ চাপা দিতে কঠোর নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলার প্রস্ততি নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। আজ অনুষ্টিতব্য নির্বাচনে পৌর পিতার আসনে বসতে লড়ছেন পাঁচজন প্রার্থী। এই নির্বাচনে জয়-পরাজয়ে নেয়ামক হতে পারে নতুন ভোটাররা। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ১৮৬৯ সালে কক্সবাজার পৌরসভা প্রতিষ্টিত হয়। আগামী বছর এই পৌরসভা দেড়শ বছরে পদার্পন করবে। ৩২ দশমিক ৯০ বর্গকিলোমিটারের প্রথম শ্রেনীর পৌরসভাটিতে লোক সংখ্যা রয়েছে তিন লাখ। তন্মধ্যে ভোটার রয়েছেন ৮৩ হাজার ৭২৮ জন। এরমধ্যে গত সাত বছরে নতুন ভোটার হয়েছেন ১৬ হাজার ১৫১জন। নতুন ভোটারের বয়স ১৯ থেকে ২৫ বছর।

    এই ভোটারদের বেশিরভাগই কলেজ ও ভার্সিটির শিক্ষার্থী। ২০১১ সালে অনুষ্টিত নির্বাচনে ৬৭ হাজার ৫৭৭ জন ভোটার ছিলেন পৌরসভায়। ওই নির্বাচনে ২ হাজারের সামান্য বেশি ভোটের ব্যবধানে জামায়াত প্রার্থী সরওয়ার কামালের কাছে পরাজিত হন আওয়ামীলীগের প্রার্থী মুজিবুর রহমান। ওই সময় আওয়ামীলীগের ২জন বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নেন। অন্যদিকে বিএনপি দলীয় প্রার্থী না দিয়ে জামায়াতের প্রার্থীকে সমর্থন করেছিলো। এবার বদলে গেলে দৃশ্যপট। জামায়াত ও বিএনপি নিজ দলের নেতাদের প্রার্থী ঘোষনা করেছেন। আওয়ামীলীগে নেই কোন বিদ্রোহী প্রার্থী। তাই ভোটের মেরুকরণও উল্টে যেতে পারে বলে ভোটারদের আলোচনায় উঠে আসছে। পৌরসভার মেয়র নির্বাচনে এবার অন্যতম ভুমিকা রাখতে পারে নতুন ভোটারদের সমর্থন। ১৬ হাজার ১৫১জন নতুন ভোটারের রায়ে ব্যবধান গড়ে দিতে পারে জয়-পরাজয়ে। এদিকে, কয়েকজন প্রার্থী নিরপেক্ষ ভোট নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করলেও নির্বাচন কমিশন শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ট নির্বাচন আদায়ে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে।

    পৌরসভার ১২টি কেন্দ্রে ১ হাজার পুলিশ, ২ প্লাটুন বিজিবি, ৬ দলে ৯০ জন র‌্যাব সদস্য প্রতিটি কেন্দ্রে ১০জন করে আনসার বিচারিক দায়িত্ব পালন করতে ১৩জন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেয়া হয়েছে বলে রিটার্নিং অফিসার মো.মোজাম্মেল হোসেন নিশ্চিত করেছেন। অন্যদিকে, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো.হেলালুজ্জামান সরকার স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে পৌরসভায় অবস্থিত সরকারী-বেসরকারী-আধাসরকারী ও স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারী অফিস ও প্রতিষ্টানকে ছুটি ঘোষনা করেছেন। এছাড়া মঙ্গলবার রাত ১২টা থেকে বুধবার রাত ১২টা পর্যন্ত পৌর এলাকায় যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষনা করেছেন। তবে, রিটার্নিং কর্মকর্তার অনুমতি সাপেক্ষে প্রার্থী, প্রার্থীর নির্বাচনি এজেন্ট, সাংবাদিক ও পর্যবেক্ষকরা যানবাহন ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়া অ্যাম্বুলেন্স, দমকল, বিদ্যুৎ, ডাক, টেলিযোগাযোগের যানবাহনগুলো নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে।

    দেশবিদেশ /২৫ জুলাই ২০১৮/নেছার

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ