• শিরোনাম

    রোহিঙ্গায় ক্ষতিগ্রস্থ স্থানীয়দের জন্য ইউএনএইচসিআর এর সহায়তা কার্যক্রম উদ্বোধন

    দেশবিদেশ রিপোর্ট | ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১:২৮ পূর্বাহ্ণ

    রোহিঙ্গায় ক্ষতিগ্রস্থ স্থানীয়দের জন্য ইউএনএইচসিআর এর সহায়তা কার্যক্রম উদ্বোধন

    মিয়ানমারের রাখাইন থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গার কারনে কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা উখিয়া ও টেকনাফের ক্ষতিগ্রস্থ স্থানীয় জনগোষ্ঠিকে জাতিসংঘের শরনার্থী বিষয়ক হাই কমিশন (ইউএনএইচসিআর) এর পক্ষ থেকে আর্থিক সহায়তামূলক কর্মসুচির উদ্বোধন করা হয়েছে। মঙ্গলবার কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের শহীদ এটিএম জাফর আলম সম্মেলন কক্ষে অনলাইনে অনুষ্টিত এক সভায় এ কার্যক্রমের উদ্ভোধন করেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন। উখিয়া এবং টেকনাফ উপজেলার ৩৫ হাজার ৮৮৭ টিরও বেশী পরিবারকে কোভিড-১৯ কার্যক্রমের আওতায় মাসিক অথবা এককালীন আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে। সভায় তথ্য প্রকাশ করা হয় যে, এই কার্যক্রমের আওতায় ১৬ হাজার ৮৮৭ টি পরিবার বাংলাদেশ সরকারের বিদ্যমান সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমের অংশ হিসাবে বাংলাদেশ ডাকঘর থেকে সহায়তা গ্রহণ করছে।
    ২০২০ সালের শুরুর দিকে আর্থ সামাজিক সূচকের সমন্বয়ে পরিচালিত চাহিদা নিরুপণ প্রক্রিয়ার ধারাবাহিকতায় আরো ১৯ হাজারটি পরিবার ‘মোবাইল মানি’র মাধ্যমে জরুরি নগদ অর্থ সহায়তার জন্য নির্বাচিত হয়েছে। এমনকি ইতিমধ্যে ৫ হাজার ৬০০ টিরও বেশী পরিবার তাদেও প্রথম দফার অর্থ গ্রহণ করেছেন।
    কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন অনলাইন উদ্ভোধনী অনুষ্টানে বলেন-‘আমি আশা করি স্থানীয় জনগোষ্ঠির মধ্যে যারা সত্যিকার অর্থেই অসহায় তাদের কাছেই এ সাহায্য পৌঁছে যাবে। কক্সবাজারে আরো অনেক অসহায় মানুষ যারা আছেন তাদের সবাইকেই সাহায্য করা সম্ভব যদি কিনা আমরা সবাই সম্মিলিতভাবে কাজ করি।’ তিনি স্থানীয় জনগোষ্ঠি সহ দেশত্যাগি রোহিঙ্গাদের সহায়তা দেয়ার জন্য ইউএনএইচসিআর এবং এর অংশীদারদের ধন্যবাদ জানান।
    জেলা প্রশাসক আরো জানান, ইউএনএইচসিআর ইতিমধ্যে কক্সবাজার জেলাবাসীর চিকিৎসা সহায়তার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে আইসিও ব্যবস্থা সহ অত্যাধুনিক চিকিৎসা কার্যক্রমে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্টানে সংস্থাটি দিয়েছে ৫ টি বাস। উখিয়ায় ১০০ টি স্কুল ও মাদ্রাসায় সুপেয় পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেই সাথে টেকনাফের সুপেয় পানির জন্য জাপান সরকারও একটি কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। জেলা প্রশাসক স্থানীয় জনগোষ্ঠি সহ দেশত্যাগি রোহিঙ্গাদের সহায়তা দেয়ার জন্য ইউএনএইচসিআর এবং এর অংশীদারদের ধন্যবাদ জানান।
    উক্ত অনুষ্টানে ইউএনএইচসিআর এর কক্সবাজারস্থ হেড অব অপারেশন মারিন ডিন কাজদোমকাজ বলেন, বাংলাদেশ সরকার বিশে^র সবচেয়ে বড় শরনার্থী ক্যাম্প হিসাবে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে মানবতা ও সহানুভুতিশীলের এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। অনুষ্টানে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্টের মহাসচিব ফিরোজ সালাউদ্দিন, কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ শাজাহান আলী, ইউএনএইচসিআর এর লিঁয়াজো অফিসার ইকতিয়ার উদ্দিন বায়েজীদ ও লাইভলীহোড অফিসার সুব্রত কুমার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ