রবিবার ৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

সাগরপথে মালয়েশিয়াগামি ১৪ রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করলো বিজিবি

রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে আবারো সক্রিয় মানবাপাচার চক্র

নিজস্ব প্রতিবেদক/টেকনাফ অফিস   |   মঙ্গলবার, ০৬ নভেম্বর ২০১৮

রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে আবারো সক্রিয় মানবাপাচার চক্র

বঙ্গোপসাগর কেন্দ্রীক মানবপাচারকারী চক্রের অপতৎরতা শুরু হচ্ছে। এবারো পাচারের টার্গেট করা হচ্ছে রোহিঙ্গাদের। রোহিঙ্গাদের আর্থিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে পাচারকারী চক্র রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে এখন সক্রিয়। পুরুষের পাশাপাশি নারীরদেরও টার্গেট করেছে তারা। পাচারের নিরাপদ রুট হিসেবে বেছে নেয়া হচ্ছে বহুল সমালোচিত শাহপরীরদ্বীপকে।
পাচারকারি চক্রের এমন একটি অপতৎপরতা ঠেকিয়ে দিলো বিজিবি। উদ্ধার করলো প্রতারণার ফাঁদে পড়ে মালয়েশিয়া যাত্রায় যোগ দেয়া ১৪ রোহিঙ্গা নর -নারীকে। তাদের মধ্যে ৯জন পুরুষ এবং ৫জন রোহিঙ্গা নারী। গত ৫ নভেম্বর রাত সাড়ে ১১ টায় শাহপরীরদ্বীপের ঘোলারচর দক্ষিণ পাড়া সৈকত থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। আটককৃতদের সবাই উখিয়া এবং টেকনাফের বিভিন্ন শরণার্থী ক্যাম্পের বাসিন্দা। তাদের কাছে বাংলাদেশের পক্ষে রোহিঙ্গা শনাক্তকরণের পর দেয়া কার্ড রয়েছে। বিজিবি-২ সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গা নাগরিকরা হলো, জামতলী শরণার্থী ক্যাম্পের মৃত নুরুল আলমের ছেলে মোঃ ইয়াছিন (২২), বালুখালী ক্যাম্পের সালামের ছেলে ইসলাম (২৬), থাইংখালী ক্যাম্পের শফিকের ছেলে খায়রুল আমিন (১৮), মোহাম্মদ আলীর ছেলে রহিমুল্লাহ (১৬), মৃত ইমান হোসেনের ছেলে জাকের আহাম্মেদ (১৯), কুতুপালং ক্যাম্পের মৃত আবুল কাসেমের ছেলে ছাইদুল আমিন (১৯) ও সুলতান (৪৫), মৃত কামালের ছেলে ফরিদুল আলম (১৮), নয়াপাড়া ক্যাম্পের মোঃ আলীর ছেলে মোঃ হোসেন (১৭), থাইংখালী ক্যাম্পের আব্দুর রবের মেয়ে নুর বাহার (১৮), বালুখালী ক্যাম্পের আব্দুল গফুরের মেয়ে বিবি খাদিজা (১৮), কুতুপালং মধুরছড়া ক্যাম্পের মৃত আবুল কাশেমের মেয়ে খোরশিদা (১৬), নুর ছালামের মেয়ে রাফিজা (১৮), এবং থাইংখালী ক্যাম্পের সৈয়দ কালামের মেয়ে আনোয়ারা বেগম (১৮)।
টেকনাফস্থ বিজিবি-২ ব্যাটলিয়ন অধিনায়ক লে.কর্নেল আছাদুদ জামান চৌধুরী জানিয়েছেন,আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের আটককৃত রোহিঙ্গা নর-নারীরা বিজিবি’র কাছে স্বীকার করে, কুতুপালং ডি- ব্লকের বাসিন্দা আয়ুব আলী নামে এক রোহিঙ্গার কাছে তারা প্রত্যেকে ১০ হাজার টাকা করে দিয়েছিল। সাগরপথে মালয়েশিয়া নিয়ে যাওয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে এই টাকা নেয়া হয়। সেই অনুযায়ী ২ নভেম্বর রাত ১১ টায় তাদের টেকনাফ উপজেলার কচুবনিয়া থেকে নৌকায় তুলা হয়। দুই দিন সাগরে চলাচলের পর সেই নৌকা ভেড়ানো হয় শাহপরীর দ্বীপের ঘোলারচরে। মালয়েশিয়া পৌঁছেছে এই কথা বলে তাদের নৌকা থেকে নামিয়ে দেয় দালাল চক্র।
উদ্ধার ৬ নভেম্বর নিজ নিজ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পৌঁছে দিয়েছে বিজিবি।

Comments

comments

Posted ১১:৩৭ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৬ নভেম্বর ২০১৮

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com