শুক্রবার ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

রুগ্ন বিসিক শিল্প নগরী

সকল মৎস্য, চিংড়ি প্রক্রিয়াজাতকরণ কারখানা বন্ধ

এম.আর মাহবুব   |   শুক্রবার, ০৫ জুলাই ২০১৯

সকল মৎস্য, চিংড়ি প্রক্রিয়াজাতকরণ কারখানা বন্ধ

কক্সবাজারের প্রধান শিল্পাঞ্চল বিসিক শিল্প নগরী বড্ড বেশি রোগাক্রান্ত। অনেকটা ‘সর্বাঙ্গে ব্যাথা, ঔষুধ দিব কোথা’- অবস্থা হয়েছে। কক্সবাজার বিসিক শিল্প নগরীর ঐহিত্য চিংড়ি প্রক্রিয়াজাতকরণ কারখানার সবক’টি একে একে বন্ধ হয়ে গেছে। পুরো শিল্পাঞ্চলে ড্রেনেজ ব্যবস্থার অস্তিত্ব নেই বললেই চলে। অভ্যন্তরীণ সড়ক গুলো যেন একেকটি মরণ ফাঁদ, বড়-ছোট অসংখ্য গর্ত, খানা-খন্দকে ভরপুর।
সরেজমিন ঘুরে এসে জানা যায়-৬০ দশকে ২১ একর জায়গার উপর প্রতিষ্ঠিত কক্সবাজার বিসিক শিল্প নগরীতে প্লট রয়েছে ৮৯টি। ৮/৯টি প্লটে নামকাওয়াস্তে কিছু শিল্প কারখানা চালু থাকলেও বন্ধ রয়েছে প্রায় ৮০টি প্লটে উৎপাদন কার্যক্রম। আবার এদের অধিকাংশই প্লট হিসেবের খাতায় বুকিং থাকলেও খালি পড়ে রয়েছে, না হয় স্ক্র্যাব ব্যবসায়ীদের ভাড়া দিয়েছে। আবার যে গুলোতে স্থাপনা রয়েছে, অথচ ব্যাংক ঋনের দায়ে বন্ধ, এরকম সাতটি শিল্প কারখানা রোহিঙ্গা ত্রাণ কাজে নিয়ম বহির্ভূত ভাবে এনজিওদের ভাড়া দেয়া হয়েছে। এক সময়ের চিংড়ি রপ্তানিতে আন্তর্জাতিক খ্যাতি পাওয়া মীনহার, কুলিয়ার চর,কনসেপশন, আকোয়া, প্রিমিয়ার এখন শুধুই ইতিহাস। শেষের দু’টি বন্ধ রয়েছে প্রায় তিন দশক ধরে। রোহিঙ্গা সংকটের পর গেল বছর বন্ধ হয়ে গেছে শত শত কোটি টাকার বিনিয়োগের কুলিয়ার চর। একই সমস্যায় পড়ে চলতি বছরের শুরুতে গেইটে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে ঐতিহ্যবাহি মিনহার। কোটি কোটি টাকা ঋনের দায়ে জর্জরিত প্রিমিয়ার বন্ধ রয়েছে ২৩ বছর ধরে। মৎস্য ফ্যাক্টরিটি এখন ব্যবহৃত হচ্ছে ভাড়া বাসা ও হাঁস-মুরগি,গরু-ছাগল পালনের ক্ষেত্র হিসেবে।
এদিকে চালু রয়েছে-গনস্বাস্থ্য, নিরিবিলি ফিস ফিড, তাজ রেজা ফ্লাওয়ার মিল, নিপা ফ্লাওয়ার মিল, এস এম এন্টার প্রাইজ, বী-রিচের মত কিছু প্রতিষ্ঠান। তবে বী রিচ বিশুদ্ধ পানি প্রক্রিয়াজাতকরণ প্রতিষ্ঠান হলেও একই ভবণে পানির সাথে বিক্রি হচ্ছে সিলিন্ডার গ্যাস। তবে আশার কথা-নতুন করে বনফুল, ব্রাদার্স অটো ফ্লাওয়ার মিল, বসুন্ধরা ডাল এন্ড রাইচ মিল নামের তিনটি প্রতিষ্ঠান নতুন করে বিনিয়োগে যাচ্ছে।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে-বিসিক শিল্প নগরীর উপ-মহাব্যবস্থাপক সৈয়দ আহমদ জানান, রোহিঙ্গা সংকটের পর মূলতঃ মায়ানমার থেকে চিংড়ি আমদানি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চালুরত মৎস্য প্রক্রিয়াজাতকরন কারখানা গুলো বন্ধ হয়ে গেছে। তিনি বলেন-আমি যোগদানের পর নিয়ম না মানায় ৬টি প্লটের বুকিং বাতিল করেছি। বাতিলের প্রক্রিয়ায় রয়েছে আরও ৩টি। তিনি আরও জানান-কক্সবাজারে ট্রেন এবং গ্যাস সংযোগ চালু হলে আগামীতে কক্সবাজারে ভালো উদ্যোক্তা আসবে। পাশাপাশি বিসিকের আশ-পাশের পাহাড় কাটা বন্ধ না হলে অভ্যন্তরীণ সড়ক ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নতি হবে না।
এদিকে আজ রুগ্ন-মরা কক্সবাজার বিসিক শিল্প নগরী পরিদর্শনে আসছেন শিল্প মন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন এম.পি। তিনি আজ দুপুর ১টায় বিসিক শিল্প নগরী এলাকা পরিদর্শন করবেন। কক্সবাজার সচেতন মহলের মতে-বিসিক শিল্প নগরীরর সমস্যা ও সম্ভাবনা চিহ্নিত করে শিল্প মন্ত্রী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করলে হয়তো ঝিমিয়ে পড়া কক্সবাজারের শিল্প বিনিয়োগ নতুন করে প্রাণ পাবে। নচেৎ আরও কঠিন রোগে আক্রান্ত হতে পারে কক্সবাজার তথা দেশের সম্ভাবনার বিসিক শিল্প নগরী।####

Comments

comments

Posted ১:২৩ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, ০৫ জুলাই ২০১৯

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com