• শিরোনাম

    সরকারিভাবে আরও ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের উদ্যোগ

    দেশবিদেশ অনলাইন ডেস্ক | ২২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৯:০৭ অপরাহ্ণ

    সরকারিভাবে আরও ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের উদ্যোগ

    সরকারিভাবে ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া ৩৯তম বিসিএস এর মাধ্যমে প্রায় ৪ হাজার ৬০৭ জন নতুন ডাক্তার পদায়ন করা হয়েছে। রোববার (২২ ডিসেম্বর) সংসদের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ তথ্য জানানো হয়।
    কমিটির সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সদস্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এম এ মান্নান, সাবের হোসেন চৌধুরী, হাফিজ আহমদ মজুমদার, বীরেন শিকদার, মনজুর হোসেন, রওশন আরা মান্নান এবং আবিদা আনজুম মিতা বৈঠকে অংশ নেন।
    সংসদ সচিবালয় থেকে জানা গেছে, দেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে তার বাস্তব অবস্থা ও করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা হয় বৈঠকে। এসময় জানানো হয়, মৌলিক স্বাস্থ্যসেবা বাড়ানোর জন্য বর্তমানে ১৩ হাজার ৭৪৩টি কমিউনিটি ক্লিনিকে ১২ হাজার ৮৫০ জন কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) কর্মরত আছেন এবং প্রতিটি কমিটিনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে প্রায় ৬ হাজার জনগোষ্ঠী সেবা পাচ্ছে।

    এছাড়া চিকিৎসদের পাশাপাশি সেবা বৃদ্ধির জন্য ১০ হাজার নার্স নিয়োগ শেষ হয়েছে এবং অন্যান্য জনবলের নিয়োগ কার্যক্রমও চলমান রয়েছে। ওষুধসহ অন্যান্য সংকট উত্তরণের জন্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য অধিদফতরের সিবিএইচসি অপারেশনাল প্ল্যানের আওতায় কাজ চলছে বলে উল্লেখ করা হয়।
    বৈঠকে ২০১৮-১৯ ও ২০১৯-২০ অর্থ বছরে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে নেওয়া প্রকল্পগুলোর বাস্তব অগ্রগতি সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৩২টি ও ২০১৯-২০ অর্থবছরে (নভেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত) ২৫টি প্রকল্প নিয়েছে এবং স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৬টি ও ২০১৯-২০ অর্থবছরে (নভেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত) ৪টি প্রকল্প নিয়েছে বলে বৈঠকে উল্লেখ করা হয়।
    পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরীকে আহ্বায়ক করে ৫ জন সদস্যের সমন্বয়ে ইতোমধ্যে গঠিত ১নং সাব-কমিটি বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নাধীন উন্নয়ন প্রকল্পসমূহ সঠিক ও যথাযথভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে। সেখানের সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে তা সমাধানে সুপারিশমালা প্রনয়ণ করে মূল কমিটিতে উপস্থাপন করবে বলেও বৈঠকে উল্লেখ করা হয়। সাব কমিটির প্রথম বৈঠকে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কে আলোচনা করা হবে বলেও জানানো হয়। এ কমিটির মেয়াদ হবে আগামী ২০২১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত।

    দেশবিদেশ/নেছার

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    মাতারবাড়ী ঘিরে মহাবন্দর

    ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক আজকের দেশ বিদেশ