মঙ্গলবার ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

সার্ভেয়াররা গোপন রাখেন আসল তথ্য

দেশবিদেশ রিপোর্ট   |   রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

সার্ভেয়াররা গোপন রাখেন আসল তথ্য

ফাইল ছবি

কক্সবাজার ভুমি অধিগ্রহণ অফিসে (এলএও) কর্মরত বেপরোয়া সার্ভেয়ারগন ভুমির নথিপত্রের বাস্তব চিত্র লুকিয়ে রাখতেন পদস্থ কর্মকর্তাদের কাছে। যেসব নথিতে কোটি টাকার ক্ষতিপূরণের অংক রয়েছে সেই সব নথিগুলো রাখতেন সযত্নে সার্ভেয়ারগন। কম টাকার ক্ষতিপূরণের নথির দিকে এসব সার্ভেয়ারদের আদর যতœ বলতে কোন কালেই ছিল না।

কোটি টাকার রোয়েদাদগুলো নিয়ে দালালগনদের মধ্যেও রয়েছে প্রচন্ড প্রতিযোগিতা। জমির মালিকগণদের মধ্যে যে রোয়েদাদে ওয়ারিশ বেশী থাকে সেইসব নিয়ে দালালদের সুবিধাও বেশী। কেননা দালালগনই ওয়ারিশদের মধ্যে নানা ফন্দিফিকির শিখিয়ে দিয়ে কেলেংকারি সৃষ্টি করে দেয়। আর তখন কমিশনও বেশী মিলে।
সার্ভেয়ারগন দায়িত্বরত ভুমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তাকে (এলএও) যে কোন ব্যাপারে রোয়েদাদগুলোর কাগজ পত্র নিয়ে বশ করে ফেলে। এর পরই রোয়েদাদের নির্দ্দিষ্ট দালালের সাথে দফারফা করেন সার্ভেয়ার। আবার সার্ভেয়ার দালালের সাথে যত কমিশন রফাদফা করেন তার সঠিক অংকও এলও’র কাছে সঠিকভাবে বলতে চান না। বিপদে পড়ার মুহূর্তেই আসল কথাটি বলে থাকেন।

কক্সবাজার এলএ অফিসে বর্তমানে তিনটি গ্রুপে সার্ভেয়ারগন কর্মরত রয়েছেন। আবার এলএও রয়েছেনও তিনজন। এসব গ্রুপের মধ্যে এক নম্বর গ্রুপ রয়েছে রেল লাইন প্রকল্পে। দুই নম্বর গ্রুপ রয়েছে মেরিন ড্রাইভের দায়িত্বে। তিন নম্বর গ্রুপের সার্ভেয়ারগন মহেশখালী দ্বীপের অধিগ্রগণ করা জমির ক্ষতিপূরণ প্রদানের দায়িত্বে রয়েছেন।
দুই নম্বর গ্রুপের সার্ভেয়ারদের সাথে থাকা শাপলাপুরের সেলিম নামের একজন দালাল হচ্ছেন সবচেয়ে বড় দালাল হিসাবে পরিচিত। কর্মরত অন্যান্য দালালদের মতে কেবল মাত্র সেলিম একাই এক হাজারের বেশী চেক এ গ্রুপের মাধ্যমে নিয়েছেন। যার কমিশন হিসাব করা হলে সে অনেক টাকা। দালাল সেলিমের সাথে এক নম্বর গ্রুপের ৫ জন সার্ভেয়ারের রয়েছে মধুর সম্পর্ক। সেলিম যাই বলেন সেভাবেই চলে সার্ভেয়ারগন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, সার্ভেয়ারগনই ভুমির সরেজমিন দখল-বেদখল থেকে শুরু করে যাবতীয় কাজগুলো করে থাকেন। এ কারনে একটি নথি ও জমির বিষয়ে সার্ভেয়ারগনেরই নখদর্পনে থাকে যাবতীয় তথ্য। কিন্তু অতি লোভে পড়ে সার্ভেয়ারগন অনেক সময় দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের প্রকৃত ত্য জানাতে চান না। এ কারনেই ঘটে বিপত্তি।

Comments

comments

Posted ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com