বৃহস্পতিবার ৯ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

সহায়তায় শখের কারটি বিক্রিরও ঘোষণা দিয়েছেন একজন

‘সেভ এ মাাদার, সেভ এ লাইফ’

তারেকুর রহমান   |   বুধবার, ২৮ এপ্রিল ২০২১

‘সেভ এ মাাদার, সেভ এ লাইফ’

প্রকৃতির খেলায় বিধ্বস্ত চার সদস্যের পরিবারের পাশে আজ দু হাজারেরও বেশি সদস্যের পরিবার- ‘সেভ এ মাদার, সেভ এ লাইফ’। যদিও প্রথম পরিবারের চার সদস্য থেকে পরিবার প্রধান বিশিষ্ট সাংবাদিক নজরুল ইসলাম বকশি করোনা আক্রান্ত হয়ে চেন্নায়ের গান্ধী রোডের জামিয়া মসজিদ সংলগ্ন কবরস্থানে চিরদিনের জন্য শুয়ে আছেন। স্ত্রী লুৎফা বকশি ক্যান্সার ও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। তাদের দুই সন্তান দিশে হারা হয়ে কাঁদছে আর কাঁদছে।

এমন সময় অসহায় পরিবারটির পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করলেন কক্সবাজার বিয়াম ল্যাবরেটরী স্কুলের বর্তমান ও প্রাক্তন ১৪ জন শিক্ষার্থী। পরিবারটিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে এগিয়ে আসার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে খোলা হয়েছে অনলাইন প্লাটফর্ম গ্রুপ, নাম দেয়া হয়েছে ‘সেভ এ মাদার, সেভ এ লাইফ’।
১৯ এপ্রিল (সোমবার) অনলাইন প্লাটফর্মের গ্রুপটি খোলার পর ওই গ্রুপের এডমিন ইরফানুল হক নামের যুবক লিখেন- ‘এই ফেইসবুক গ্রুপটি খোলার একমাত্র উদ্দেশ্য হল, সিদরাতুল মুরসালিন ভাষার আম্মু লুতফা আন্টির ক্যান্সার এর চিকিৎসার জন্যে টাকা উত্তোলন করা। বর্তমানে আন্টির কেমোথেরাপি চলছে ভারতের চেন্নাইয়ের ভেলোরে অবস্থিত ক্রিসটিয়ান মেডিকেল হাসপাতালে।

উল্লেখ্য, দূর্ভাগ্যবশত পুরো পরিবার ইন্ডিয়া যাওয়ার পর, গত ১৮ই এপ্রিল পিতা- নজরুল ইসলাম বকশি করোনা আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন। তার পিতা মারা যাওয়াতে পুরো পরিবারের দায়িত্ব এখন সিদরাতুল মুরসালিন ভাষার কাধে এসে পড়েছে। আমরা চাইলে কি পারি না একজন মায়ের জীবন বাঁচাতে? দয়া করে সবাই এই অসহায় ছেলেটার পাশে দাঁড়ান। ইনশাআল্লাহ এই উসিলায় আল্লাহও আপনাকে বিপদ থেকে দূরে রাখবেন।’

এরপর স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের গণমাধ্যমে অসহায় পরিবারের কথা তুলে ধরা হয়েছে। প্রচারিত হয়েছে- ক্যান্সার আক্রান্ত স্ত্রীকে চিকিৎসার জন্য ভারত নিয়ে নিজেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করা নজরুল ইসলাম বকশির খবর ও এবং স্ত্রী লুৎফা বকশির সংকটাপন্নের খবর।

সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়ার জন্য জনে জনে খবর পৌঁছানোর দায়িত্ব থেকে বাদ যায়নি এদেশের সেলিব্রিটিরাও। সাবেক জাতিসংঘ কর্মকর্তা, আন্তর্জাতিক এনজিও সংস্থা মোয়াসের লজিস্টিকস এন্ড ফিল্ড কো-অর্ডিনেটর টেকনাফ শামলাপুরের শহিদ উল্লাহ শহিদ ও তাঁর বড় মেয়ের জামাই জনপ্রিয় ব্যান্ড মাইলস এর সদস্য মিউজিশিয়ান ফায়সাল আহমদ পাভেলের সহযোগিতায়- কণ্ঠশিল্পী হাবিব ওয়াহিদ, ফুয়াদ মুক্তাদির, এভয়েড রাফা, ইউটিউবার সালমান মুক্তাদির, এলিটা করিমসহ অনেক তারকারা তাদের নিজস্ব ভেরিফাইড একাউন্ট থেকে স্ট্যাটাস দেন অসুস্থ মায়ের পাশে দাঁড়াবার জন্য।
চারদিকে খবরটি ছড়িয়ে পড়লে অনেক হৃদয়বান ব্যক্তি ‘সেভ এ মাদার, সেভ এ লাইফ’ স্লোগানে এগিয়ে আসেন একজন মাকে বাঁঁচাতে।

শাহেদ আলী সারজিল নামের এক হৃদয়বান তো অসুস্থ লুৎফা বকশির চিকিৎসার জন্য ২০ লাখ টাকা দিয়ে কেনা শখের মোডিফাইড টয়েটা গাড়িটা বিক্রি করে ১৩ লাখ টাকা দেয়ার ঘোষণাই দিয়ে দিলেন। তবে ক্রেতা না পাওয়ায় গাড়িটা এখনো বিক্রি সম্ভব হয়নি। তারপরও সহায়তা তহবিল অল্প কয়েকদিনে অনেক বেশি । ১৯ এপ্রিল থেকে সহায়তা সংগ্রহ শুরু করে এ পর্যন্ত টাকার পরিমাণ চমকে উঠার মতো!
যদি গাড়িটা বিক্রয় করা যেত তাহলে আরো অনেক বেশি সহায়তা তহবিল মজবুত হতো বলে জানান শহিদ উল্লাহ শহিদ।

তিনি বলেন, ‘১৮ এপ্রিল আমার দীর্ঘদিনের সহকর্মী প্রিয় ব্যক্তি নজরুল ইসলাম বকশি ভাইয়ের মৃত্যুবরণ করেন। জানতাম তাঁর স্ত্রী ক্যান্সার ও করোনা আক্রান্ত হয়ে ভারতে চিকিৎসাধীন আছেন। ভাবছিলাম কুল হারা পরিবারটির জন্য কিছু করা যায় কিনা। পরে ২১ এপ্রিল আমি গ্রুপটিতে যুক্ত হই।

এরপর সহায়তার কথা দেশবিদেশের বিভিন্ন জনের নজরে আনার চেষ্টা করি। আমার বড় মেয়ের জামাই মিউজিশিয়ান ফায়সাল আহমদ পাভেলের দৃষ্টি আকর্ষন করলে সে বিভিন্ন তারকাদের জানান। এবং তারকারা তাঁদের ভেরিফাইড করা নিজস্ব ফেসবুক একাউন্ট থেকে সহায়তার হাত বাড়ানোর জন্য মানুষকে আহ্বান জানান।

অল্প এই ক’দিনে আমাদের অকল্পনীয় তহবিল সৃষ্টি হয়েছে। দুয়েকদিনের মধ্যেই একটা সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সংগ্রহীত অর্থ উক্ত পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করতে চাই। সেদিন এই অল্প সময়ের মধ্যে সংগ্রহীত টাকার পরিমাণটা প্রকাশ করা হবে। আশা করছি সকলের মনের মতো একটা ফিগার আমরা প্রস্তুত করতে সক্ষম হয়েছি। আর এ জন্য দেশবিদেশের যারা আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছেন তাদের কৃতজ্ঞতা জানাই।

বৃস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) এর আগে অনলাইন প্লাটফর্মের এ ফেসবুক গ্রুপটি বন্ধ করে দেয়া হবে। এরই মধ্যে যারা সহযোগিতা করতে চান গ্রুপে উল্লেখিত বিকাশ নং- ০১৮১২-৭৬৪২৫৮, ০১৭৮৩-০৩১১৫২ এবং একই নাম্বারে নগদ সহায়তা পাঠাতে পারেন। উল্লেখিত গাড়িটা বিক্রি করতে পারলে আমাদের তহবিল আরো বড় হতো। ক্রেতার অভাবে গাড়িটা বিক্রি করা সম্ভব হচ্ছে না। ক্রেতা পেলে পরিবারটি বাড়তি ১৩ লাখ টাকা সহায়তা পেতো।’

Comments

comments

Posted ২:১২ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ২৮ এপ্রিল ২০২১

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com