বুধবার ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
শিরোনাম

মেয়র-সহ সংশ্লিষ্ট সবাই নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত, দায়িত্ব নেবে কে?

সড়কের উপর যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনার স্তুপ, দূর্গন্ধে পরিবেশ ভারি

সাইফুল ইসলাম   |   মঙ্গলবার, ১০ জুলাই ২০১৮

সড়কের উপর যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনার স্তুপ, দূর্গন্ধে পরিবেশ ভারি

পৌরসভার বার্মিজ স্কুল সংলগ্ন যাত্রী ছাউনির পাশে প্রধান সড়কের উপর থেকে তোলা

আগামী ২৫ জুলাই আসন্ন কক্সবাজর পৌরসভা নির্বাচন। মেয়র ও কাউন্সিলর-সহ সংশ্লিষ্ট সবাই নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত। বর্তমানে এ পৌরসভার বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ফেলা ময়লা-আবর্জনার সরিয়ে ফেলার দায়িত্ব নেবে কে? প্রশ্ন সচেতন মহলের। এদিকে প্রধান সড়ক-সহ পৌরসভার অলিগলিতে যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনার স্তুপ তৈরি হচ্ছে। আগের মতো নিয়মিত পরিস্কার না করায় এসব স্তুপ থেকে ছড়াচ্ছে দূর্গন্ধ।

পাশাপাশি পৌরসভায় ময়লা-আবর্জনা ফেলার নির্ধারিত জায়গা ও পর্যাপ্ত ডাস্টবিনের অভাবে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে সড়কের উপরে যত্রতত্র এসব ময়লা-আবর্জনা ফেলা হয়েছে। ফলে দূর্গন্ধে পরিবেশ ভারি ও চরম দূর্ভোগ সৃষ্টি হচ্ছে। একদিকে নির্বাচনের প্রচারণা নিয়ে মেয়রসহ সংশ্লিষ্ট সবাই ব্যস্ত, অন্যদিকে নির্ধারিত ডাস্টবিন না থাকায় প্রধান সড়কসহ পয়োনিষ্কাশনের নালায় এসব ময়লা-আর্বজনা ফেলা হচ্ছে। এতে নালা আটকে পড়ে জলাবদ্ধাতা সৃষ্টি হয়েছে অভিযোগ সংশ্লিষ্টদের। শহরের বার্মিজ মার্কেট এলাকার বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সামনে পৌরসভা নির্বাচন। এ নির্বাচনের প্রচারণায় মেয়র-সহ সবাই ব্যস্ততার মধ্যে রয়েছে।

এসব ময়লা-আবর্জনা দেখার লোক কোথায়? পাশাপাশি পৌরসভার প্রতিদিনের বর্জ্য নিষ্কাশনের জন্য পর্যাপ্ত ডাস্টবিন নেই। প্রায় সপ্তাহ দু’য়েক ধরে এই ময়লা-আবর্জনা প্রধান সড়কের উপরে যত্রতত্র পড়ে রয়েছে। দেখার কেউ নেই। ফলে পর্যটন নগরীকে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে পরিনত হয়েছে। যেদিকে যায়,সেদিকে দূর্গন্ধ। পৌরসভার কিছু এলাকায় ডাস্টবিন থাকলেও তা ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে শহরবাসী যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা ফেলছে। তবে মানুষ ময়লা ফেলার জায়গা খুঁজে পায় না। তাই একটু ফাঁকা জায়গা পেলেই ময়লা ফেলে। এভাবে একজন যেখানে ফেলে সবাই সেখানে ফেলতে শুরু করে। এতে সড়কের উপর ও মোড়ে মোড়ে ময়লা জমে রয়েছে। নির্দিষ্ট ডাস্টবিন না পেয়ে পৌরবাসী বিভিন্ন বাসাবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত, হাসপাতাল-ক্লিনিকসহ বিভিন্ন হোটেল মোটেল রেস্তোঁরা থেকে প্রতিদিন সংগৃহীত ময়লা-আর্বজনা সড়কের উপর ও বিভিন্ন স্থানে যত্রতত্রে ফেলছে পৌর কর্তৃপক্ষ। ময়লা আবর্জনার ফেলার স্থানে পঁচা গন্ধে মশামাছি, পোকামাকড়, জন্ম নিচ্ছে প্রতিনিয়তে।

এর কারণে স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসার ছাত্রছাত্রী সহ পৌরবাসী ভুগছে নানা রোগ ব্যাধিতে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এসব ময়লা আর্বজনা ফেলা হচ্ছে পৌরসভার বার্মিজ মার্কেট সংলগ্ন প্রধান সড়কের উপরে,কস্তুরাঘাট, মাইকে সার্ভিসের পাশের গলি সড়কের উপরে, রুমালিয়ারছড়া জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের সামনে সড়কের উপর, আলিরজাঁহাল সাইফুল কমিউনিটি সেন্টারের দক্ষিণে সড়কে উপর, সুগন্ধা পয়েন্টের সাগরের বালিয়াড়িতে, সাংস্কৃতি কেন্দ্রের সামনে প্রধান সড়কের পাশে, বাহারছড়ার অলিগলিতে সড়কের উপরেসহ বিভিন্ন নদীর তীরে এসব ময়লা ফেলা হচ্ছে। দুর্গন্ধে ওইসব এলাকার মানুষজনের বসবাস কঠিন হয়ে পড়েছে। ফলে ওই পাশ দিয়ে নাকে মুখে রুমাল দিয়ে চলতে হয়। না হয় যেকোন কোন মুহুর্তে বুমি আসতে পারে। পৌরসভার রুমালিয়ারছড়া এলাকার বাসিন্দা ও সাউথ ইষ্ট ব্যাংকের কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের সামনে সড়কের উপরে যত্রতত্র ময়লা আর্বজনা ফেলা হচ্ছে।

সড়কের পাশ দিয়ে শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ চলাচল করার সময় নাকে মুখে রুমাল দিয়ে যেতে হয়। এতে দূর্গন্ধে পরিবেশ ভারি ও দূভোর্গে পোহাতে হচ্ছে। পর্যটন নগরী হিসেবে পৌরসভায় নির্দিষ্ট ডাস্টবিন না থাকায় নিজেকে পর্যটন এলাকার বাসিন্দা বলতেও লজ্জা লাগে। দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া এলাকা থেকে কক্সবাজার সরকারী কলেজে যাওয়া ছাত্রী মেশকাত সামিহা সাকি বলেন, অপরিকল্পিতভাবে সড়কের উপর যত্রতত্র আবর্জনার স্তুপে ভয়াবহ পরিবেশ দূষণ হচ্ছে। প্রায় সপ্তাহ ধরে এ ময়লা-আবর্জনা সড়কের উপরে দেখা যাচ্ছে। দিন দিন এসব আবর্জনার স্তুপ বাড়তে রয়েছে। এসব ময়লা থেকে মশা-মাছির উপদ্রুব আর অসহনীয় দূর্গন্ধ। প্রতিদিন কলেজে যাওয়ার সময়ে নাকে মুখে রুমাল দিয়ে যেতে হয় না হয় সড়কের উপর যত্রতত্র ময়লার দূর্গেন্ধে যেকোন মুর্হুর্তে বমি আসতে পারে। এই কারণে দূর্গন্ধে বিপন্ন হয়ে উঠেছে জনজীবন। এ ব্যাপারে কক্সবাজার পৌরসভার (ভারপ্রাপ্ত মেয়র) মাহবুবুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে মুঠোফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয় সম্ভব হয়নি। দেশবিদেশ /১০ জুলাই ২০১৮/নেছার

Comments

comments

Posted ১০:০৭ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ১০ জুলাই ২০১৮

ajkerdeshbidesh.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সম্পাদক
মোঃ আয়ুবুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়
প্রকাশক : তাহা ইয়াহিয়া কর্তৃক প্রকাশিত এবং দেশবিদেশ অফসেট প্রিন্টার্স, শহীদ সরণী (শহীদ মিনারের বিপরীতে) কক্সবাজার থেকে মুদ্রিত
ফোন ও ফ্যাক্স
০৩৪১-৬৪১৮৮
বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন
০১৮১২-৫৮৬২৩৭
Email
ajkerdeshbidesh@yahoo.com